সত্তরোর্ধ্ব স্বামীর হাতে ষাটোর্ধ্ব স্ত্রী খুন

ঢাকা, শুক্রবার   ০৩ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২০ ১৪২৬,   ০৯ শা'বান ১৪৪১

Akash

সত্তরোর্ধ্ব স্বামীর হাতে ষাটোর্ধ্ব স্ত্রী খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৫১ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ২১:২১ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

রাজধানীতে ষাটোর্ধ্ব স্ত্রীকে খুন করে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে ধরা পড়ল সত্তরোর্ধ্ব স্বামী। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটে মতিঝিলের আরামবাগে। নিহতের নাম ছবি কুড়ি।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃদ্ধ গোপাল চন্দ্র ও তার স্ত্রী ছবি কুড়ি থাকতেন রাজধানীর মতিঝিল আরামবাগ এলাকায়। দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে প্যারালাইজডসহ নানা রোগে ভুগছিলেন তারা। তাদের তিন মেয়ে থাকলেও দুইজন থাকেন ভারতে, একজন অস্ট্রেলিয়ায়। তাই নিজে মারা যাওয়ার পর বৃদ্ধা স্ত্রীকে কে দেখবেন, প্রায়ই এমন চিন্তা করতেন তার স্বামী। আর এই চিন্তা থেকেই স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন গোপাল চন্দ্র কুড়ি। 

মঙ্গলবার ভোরে রাজধানীর মতিঝিল আরামবাগ ১৮২/এ নম্বর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী গোপাল চন্দ্র কুড়িও আহত হন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা দিয়ে তাকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। নিহতের লাশ উদ্ধারের পর গোপাল চন্দ্র কুড়ির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে পুলিশ।  

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, মঙ্গলবার সকালের দিকে হাতে আঘাত নিয়ে মেডিকেলে চিকিৎসা নিতে আসেন গোপাল চন্দ্র কুড়ি। তার ডান হাত কিছুটা কাটা ছিল। হাত কাটার রহস্য জানতে গেলেই তার স্ত্রীকে হত্যার বিষয়টি প্রকাশ পায়। পরে খবর দিলে মতিঝিল থানা পুলিশ ওই বাসা থেকে বৃদ্ধার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। 

মতিঝিল থানার এসআই শফিকুল ইসলাম আকন্দ জানান, গোপাল চন্দ্র কুড়ির বাড়ি মাগুরা সদর উপজেলায়। মতিঝিলে কেমিকেল রিচার্জ কোম্পানীর মালিক তিনি। তার তিন মেয়ের মধ্যে দুই মেয়ে ভারতে, এক মেয়ে অস্ট্রেলিয়া থাকে। মতিঝিলের ওই ফ্ল্যাটটি তার নিজের। স্বামী-স্ত্রী দুইজনই  ওই বাসায় থাকতেন। আহতের বরাত দিয়ে তিনি জানান, তারা স্বামী-স্ত্রী দু’জনই অসুস্থ। তাদের মধ্যে গোপাল বেশি অসুস্থ। এজন্য তিনি সব সময় বলতেন, তিনি মারা গেলে তার স্ত্রীকে কে দেখবেন। তিন মেয়েও দেশের বাইরে। এই চিন্তা থেকে মঙ্গলবার ভোরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীর মাথায় আঘাত করেন গোপাল। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান ছবি কুড়ি।  

মতিঝিল থানার পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) মনির হোসেন মোল্লা জানান, গত ১৬ বছর ধরে ওই বৃদ্ধা  প্যারালাইজড অবস্থায় রয়েছেন। বৃদ্ধ স্বামীও অসুস্থ। তার পরিবার জানায়, তিনি (গোপাল) মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ছয় থেকে সাত মাস তিনি বাড়ি থেকেই বের হননি। তাদের তিন মেয়ে থাকলেও দেখার মতো কেউ নেই। ধারণা করা হচ্ছে, মানসিক হতাশা থেকে স্ত্রীকে খুন করেন গোপাল। নিহতের মরদেহের পাশ থেকে একটি ছুরিও উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসসি/এসএএম