শ্রীলংকায় মুসলিমদের মরদেহ পোড়ানোর বিরুদ্ধে পিটিশন
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=192221 LIMIT 1

ঢাকা, সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

শ্রীলংকায় মুসলিমদের মরদেহ পোড়ানোর বিরুদ্ধে পিটিশন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:১১ ৫ জুলাই ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া মুসলিমদের মরদেহ পুড়িয়ে ফেলার ওপর জোর দিচ্ছে শ্রীলংকা। তবে এমন কাজে নিন্দা জানিয়েছে দেশটির সংখ্যালঘু মুসলিমরা। তাদের মতে, মহামারির সুযোগ নিয়ে তাদের সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ করা হচ্ছে।

মে মাসের শুরুতে শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোতে ৪৪ বছর বয়সী ৩ সন্তানের মা ফাতিমা রিনোজা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সন্দেহে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তার স্বামী মোহামেদ শাফিক বলেন, কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর লোকেরা বাড়িতে এসে আমাদের বের করে দিয়ে জীবাণুনাশক ছিটালো। তবে আমাদেরকে কিছুই বলেনি তারা। আমার ৩ মাসের বাচ্চাকেও পরীক্ষা করা হলো। এরপর কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে কুকুরের মতো করে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে গেলো।

কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকা অবস্থাতেই পরিবারটি খবর পেলো যে, ফাতিমা মারা গেছেন। তার বড় ছেলেকে হাসপাতালে গিয়ে মায়ের মরদেহ শনাক্ত করতে বলা হলো। শাফিককে বলা হলো করোনাভাইরাসে মারা যাওয়ার কারণে ফাতিমার মরদেহ পরিবারের কাছে ফেরত দেয়া হবে না।

এর পরিবর্তে তাকে একটি কাগজে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করা হলো। কাগজটিতে ফাতিমাকে পুড়িয়ে ফেলার অনুমতি দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

মুসলিমদের মরদেহ দাহ করার এই বিধানের বিরুদ্ধে পিটিশন দায়ের করা হয়েছে দেশটির আদালতে। এ বিষয়ে আগামী ১৩ই জুলাই শুনানি শুরু হবে বলে জানা গেছে।

সূত্র- বিবিসি

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ