Alexa শেষ ভরসা যাদের ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজ

ঢাকা, শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ৪ ১৪২৬,   ২০ সফর ১৪৪১

Akash

শেষ ভরসা যাদের ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজ

সরকারি তিতুমীর কলেজ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৪৬ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১২:৫০ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

এইচএসসি পরীক্ষার পর বেশিরভাগ শিক্ষার্থী পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির স্বপ্ন দেখেন। তবে খুবই অল্প সংখ্যক শিক্ষার্থীই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পান। এ নিয়ে মন খারাপের কিছু নেই। কারণ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স না পাওয়া ভর্তিচ্ছুদের ভরসার আরেক নাম ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজ।

এই সাত কলেজে ভর্তিচ্ছুদের সুখবরও আছে। তাদেরকে ঢাবি থেকে সমাবর্তনের মাধ্যমে সার্টিফিকেট দেয়া হবে।

ঢাকার সরকারি সাত কলেজ ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অন্তর্ভুক্ত হয়। এর আগে এসব কলেজ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ছিল। বর্তমানে সম্মান ও মাস্টার্সে সাত কলেজে আছেন প্রায় ১ লাখ ৬৭ হাজার ৩৬৪ শিক্ষার্থী। তাদের বিপরীতে শিক্ষক আছেন ১ হাজার ১৪৯ জন।

সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষা ও নানা তথ্য তুলে ধরা হলো।

ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজগুলো হলো: ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি তিতুমীর কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, সরকারি বাঙলা কলেজ। প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদা কোনো আবেদন বা পরীক্ষা হবে না। একটি আবেদন এবং একটি পরীক্ষা হবে।

যারা বলে সেশনজট

এখন আর সেশনজটের আশঙ্কা নেই। গত বছর যারা ভর্তি হয়েছিল তাদের পরীক্ষা নভেম্বরে শেষ। তাহলে কিভাবে সেশনজট হবে? আগে যারা ছিল তাদের সেশনজট হয়েছে কিন্তু ২০১৯-২০ এ যারা ভর্তি হবে তাদের কোনো সেশনজট হবে না। কারণ ২০১৭-১৮ সেশন থেকে এখন পর্যন্ত সবগুলো পরীক্ষা সময়তো হচ্ছে। এর আগের সেশনের যারা তাদের একটু সমস্যা হয়েছে রেজাল্ট নিয়ে। ক্লাস করতে হবে। ৭৫% উপস্থিতি না থাকলে ফাইনাল পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ থাকবে না। নিয়মিত ক্লাস না করে এখানে ভারো রেজাল্ট দূরে থাক পাস করাই কঠিন হবে। প্রশ্ন করেন ঢাবির স্যারেরা, খাতাও দেখেন তারাই।

যারা ২০১৯ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় পাস করেছ তারাই পরীক্ষা দিতে পারবে। পাস মার্ক পাওয়ার পর আপনাকে কলেজ ও সাবজেক্ট চয়েস দিতে হবে, আপনার রেজাল্টের উপর ভিত্তি করে কলেজ ও সাবজেক্ট দেয়া আছে।

বিভাগ ও আসন সংখ্যা

সাত কলেজের তিনটি ইউনিটে আসন সংখ্যা ২৩৩১৫টি। বিজ্ঞান- ৬৫০০ টি, ব্যবসায়- ৫১৮৫টি, মানবিক -১১৬৩০ টি। এর মধ্যে ঢাকা কলেজে বিষয় রয়েছে ১৯টি আর আসন সংখ্যা ৩৫১৫টি। ইডেন মহিলা কলেজে বিষয় আছে ২২টি আর আসন সংখ্যা ৪৬৮৫টি। সরকারি তিতুমীর কলেজে বিষয় আছে ২২টি আসন সংখ্যা ৫৬৮০টি। বেগম বদরুন্নেসা কলেজে বিষয় ২০টি, আসন সংখ্যা ১৩৯৫টি। সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে বিষয় ১৭টি আসন সংখ্যা ১৫৭০টি। সরকারি কবি নজরুল কলেজে বিষয় ১৭টি আসন সংখ্যা ১৮২০টি। মিরপুর সরকারি বাংলা কলেজে ১৮টি আসন সংখ্যা ২৩৬০টি।

আবেদনের যোগ্যতা:

আলাদা ভাবে পয়েন্ট লাগবে না। বিজ্ঞান- ৭.০০, ব্যবসায় - ৬.৫০, মানবিক- ৬.০০ যাদের থাকবে তারাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

ভর্তি পরীক্ষার রুটিনঃ

বিজ্ঞান ইউনিটের পরীক্ষা ৯ নভেম্বর বিকেল ৩.০০ থেকে ৪.০০। সমাজ বিজ্ঞান ইউনিটের পরীক্ষা ১০ নভেম্বর ২০১৯ সকাল ১০.০০ থেকে ১১.০০ টা। ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটের পরীক্ষা ১৬ নভেম্বর ২০১৯ সকাল ১০.০০ থেকে ১১.০০টা।

ইউনিট ও বিষয়

ক- ইউনিট (বিজ্ঞান বিভাগ): বাংলা, ইংরেজি, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত, জীববিজ্ঞান। ৬টি বিষয়ের মধ্যে চারটির উত্তর দিতে হবে। খ –ইউনিট (মানবিক বিভাগ):  বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান থেকে প্রশ্ন হবে। গ - ইউনিট (ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ): বাংলা, ইংরেজি, হিসাববিজ্ঞান, ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ, মার্কেটিং/ ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং।

পরীক্ষা হবে ১২০ মার্কের। কোনো নেগেটিভ মার্কিং নেই। SSC I HSC রেজাল্টের উপর ৮০ নাম্বার থাকবে। পরীক্ষার সময় ১ঘণ্টা। পরীক্ষা হবে MCQ পদ্ধতিতে (তবে এইবার লিখিত পরীক্ষা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।) প্রতিটি প্রশ্নের মান ১.২০ করে। পাস নাম্বার ৪৮ (বিষয়গত পাস প্রয়োজন)। ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্র ঢাকার মধ্যেই পড়বে।

অনলাইন আবেদন করার পদ্ধতি:

সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষা অনলাইন ভিত্তিক। আপনি ৭ কলেজে ভর্তির জন্য www.7college.du.ac.bd  তে লগ ইন করুন। সেখানে আপনার সমস্ত তথ্য পরীক্ষা করতে পারেন।

ঢাবি অনুমোদিত সাত কলেজ ভর্তি জন্য নিচের তথ্য অনুসরণ করুন। www.7college.du.ac.bd এ যান। লগইন করুন। এখন আপনি একটি ফর্ম দেখতে পারেন। ফর্ম পূরণ করুন। (আপনার এইচএসসি রোল, বছর এবং বোর্ড পাশাপাশি আপনার এসএসসি রোল দিন) আপনার ইউনিট নির্বাচন করুন। এখন, আপনার স্ক্যান করা ছবি দিন। যোগাযোগ নাম্বার এবং অন্যান্য তথ্য লিখুন।

এখন, আপনি সম্পূর্ণ ঢাবি সাত কলেজ ভর্তির পেমেন্টের জন্য একটি বেতন স্লিপ পাবেন। আবেদন ফি ৪০০ টাকা।

তারপরে, জমা দেয়ার জন্য এই কপিটি ডাউনলোড এবং প্রিন্ট করুন। আপনার আবেদন সম্পন্ন হলে প্রবেশ পত্রের নির্দিষ্ট তারিখে ২ কপি ডাউনলোড করুন। পরিক্ষার হলে অবশ্যই কোন প্রকার ইলেকট্রিক ডিভাইস নেয়া যাবে না। আর অবশ্যই প্রবেশপত্র সঙ্গে নিতে হবে এবং রেজিস্ট্রেশনের কপি সঙ্গে থাকতে হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম