শেষ ওয়ানডেতেও ব্যাটিং-বোলিংয়ে ব্যর্থতা
SELECT bn_content_arch.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content_arch INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content_arch.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content_arch.ContentID WHERE bn_content_arch.Deletable=1 AND bn_content_arch.ShowContent=1 AND bn_content_arch.ContentID=15358 LIMIT 1

ঢাকা, বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ৯ ১৪২৭,   ০৬ সফর ১৪৪২

শেষ ওয়ানডেতেও ব্যাটিং-বোলিংয়ে ব্যর্থতা

 প্রকাশিত: ২১:৫৭ ২২ অক্টোবর ২০১৭   আপডেট: ২১:৫৮ ২২ অক্টোবর ২০১৭

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে কোনও প্রতিরোধই গড়ে তুলতে পারল না বাংলাদেশ। টেস্ট সিরিজের পর ইস্ট লন্ডনে এবার ওয়ানডেতেও হোয়াইটওয়াশ হতে হলো মাশরাফিদের।

৩ ম্যাচের সিরিজে প্রাপ্তি বলতে মুশফিকের সেঞ্চুরি আর রুবেলের বোলিংটা। মুশফিক-রুবেল ছাড়া আর কেউ মনে রাখার মত কিছু করতে পারেননি। যা করেছেন সেটা কেবল আত্মসমর্পণ।

রবিবার ৩৭০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৩৯ ওভারে মাত্র ১৬৯ রানেই থামল মাশরাফি বিন মুর্তজার বাংলাদেশ। প্রোটিয়ারা জয় পেল ২০০ রানের বিশাল ব্যবধানে।

পাহাড়সম রানের কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নেমে দ্বিতীয় ওভারেই ইমরুল কায়েসকে হারায় বাংলাদেশ। প্যাটারসনের বলে বেহারদিনের হাতে ক্যাচ দেন ১ রান করা ইমরুল। ৬ রান করা লিটন দাসকেও এলবিডাব্লিউ করে প্যাভিলিয়নে পাঠান প্যাটারসন। সিরিজে প্রথম সুযোগ পেয়ে আবারও ব্যর্থ সৌম্য সরকার (৮) রাবাদার বলে মার্করামের তালুবন্দী হন।

প্রথম দুই ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরি করা মুশফিক আজ ভরসা দিতে পারেননি। ফেলোকায়োর বলে আউট হয়ছেন মাত্র ৮ রান করে।

মুশফিকের বিদায়ের পর মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদও টানা ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে ২ রান করে অভিষিক্ত মুলডারের শিকার হন। ৬১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে নিশ্চিত পরাজয় দেখে টাইগাররা। বেশ কিছুক্ষণ সাব্বিরকে নিয়ে ৬৭ রানের জুটি গড়ে লড়াই করেন সাকিব। কিন্তু ক্যারিয়ারের ৩৫তম হাফ সেঞ্চুরির পর ৬৩ রানে মার্করামের বলে ক্যাচ দেন তিনি। ঠিক আগের বলেই একই রকম শটে ক্যাচ দিয়ে জীবন পেয়েছিলেন। পরের বলেই আত্মহত্যা।

সাকিব আউট হওয়ার পর নূন্যতম লড়াইয়ের আশাটাও শেষ হয়ে যায়। ভালো খেলতে খেলতে মার্করামের দ্বিতীয় শিকার হন ৩৯ রান করা সাব্বির। খেলাটা এর আগেই শেষ হয়ে গেছে। বাকী ছিল আনুষ্ঠানিকতা। অধিনায়ক মাশরাফি আউট হন ১৭ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ১৭ রান করে। তাসকিন (২) আর মেহেদী মিরাজের (১৩) বিদায়ে ১৬৯ রানে শেষ হলো বাংলাদেশের ইনিংস।

লন্ডন পার্কে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই বাংলাদেশি বোলারদের ওপর চড়াও হন দুই প্রোটিয়া ওপেনার। জুটি ছাড়িয়ে যায় শতরান। শেষ পর্যন্ত প্রোটিয়াদের দলীয় ১১৯ রানে বাভুমাকে (৪৮) ব্রেক থ্রু এনে দেন সিরিজে প্রথমবার সুযোগ পাওয়া অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। ৬৮ বলে ৭৩ রান করা কুইন্টন ডি ককও শিকার হন মিরাজের।

দুই ওপেনারের বিদায়ের দলের হাল ধরেন অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস এবং অভিষিক্ত এইডেন মার্করাম। পেশিতে টান লেগে ডু-প্লেসিসের (৯১) মাঠ ছাড়ার আগে দুজনের জুটিতে এসেছে ১৫১ রান। এইডেন মার্করাম টেস্টের মত অভিষেক ওয়ানডেতেও রান-আউট হয়েছেন। টেস্টে হয়েছিলেন ৯৭ রানে; এবার ৬৬ রানে।

উইকেট গেলেও রানের গতি কমেনি প্রোটিয়াদের। তবে আজ ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠার আগেই রুবেল হোসেনের বলে মাশরাফির তালুবন্দী হন দ্বিতীয় ওয়ানডেতে সাইক্লোন বইয়ে দেওয়া এবিডি ভিলিয়ার্স (২০)। এরপর জোড়া আঘাতে অভিষিক্ত মুলডার (২) এবং ফিলোকায়োকে (৫) প্যাভিলিয়নে পাঠান তাসকিন আহমেদ। শেষ পর্যন্ত পেসার রাবাদার ১১ বলে ২৩ রানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৬ উইকেটে ৩৬৯ রান তোলে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে