Alexa শুনানির মুখে সাব্বির-নাসির-মোসাদ্দেক

ঢাকা, শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৬ ১৪২৬,   ২১ মুহররম ১৪৪১

Akash

শুনানির মুখে সাব্বির-নাসির-মোসাদ্দেক

 প্রকাশিত: ২১:০৯ ৩১ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ২১:০৯ ৩১ আগস্ট ২০১৮

শাস্তির মুথোমুখি তিনজন

শাস্তির মুথোমুখি তিনজন

জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নারীঘটিত বিষয়ে বিতর্কিত সকল কর্মকাণ্ডে বিব্রত বিসিবি। বাধ্য হয়ে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই সংস্থা এখন কঠোর পথে হাটছে।

আর তাই সাব্বির, নাসির, মোসাদ্দেকের ভাগ্যে কি আছে তা আগে থেকে বলা মুশকিল। অভিযুক্ত এই তিন ক্রিকেটারকে শুনানির জন্য ডেকেছে বিসিবি।

আগামী শনিবার বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটির কাছে শুনানিতে ডাকা হয়েছে তাদের।

বৃহস্পতিবার বিকালে এশিয়া কাপের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। দল ঘোষণার পরপরই মিরপুর স্টেডিয়ামে বিসিবির কার্যালয়ে বোর্ড পলিচালকদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ওই বৈঠকেই সাব্বির-নাসির-মোসাদ্দেককে শুনানিতে ডাকার সিদ্ধান্ত হয়।

সর্বশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের ওয়ানডে দলে ছিলেন সাব্বির রহমান। কিন্তু বাজে পারফরম্যান্সের কারণে এশিয়া কাপের দলে তার জায়গা হয়নি। তবে বাজে পারফরম্যান্সের পাশাপাশি বিতর্কিত কর্মকাণ্ডও সাব্বিরের বাদ পড়ার অন্যতম কারণ। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের কথাতেও সেটা স্পষ্ট। তিনি জানিয়েছেন, ক্রিকেটারদের বিতর্কিত কর্মকাণ্ড রোধে কিছু উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে বিসিবি।

এদিকে নাসিরও কথিত এক মডেল বান্ধবীর কারণে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হন। নাসিরের ওই মডেল বান্ধবী নিজেই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে নিজেদের সম্পর্কের বিষয়ে নানা রকম বোমা ফাটান। ঘটনাটা বিসিবিকেও বেশ বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে ঠেলে দেয়। সম্প্রতি মোসাদ্দেকের ঘটনাটা তো সবার জানা।

শুনানিতে ক্রিকেটারদের জবানবন্দি শুনেই বিসিবি ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন নাজমুল হাসান, কথা বলেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কথা না বলে, একজনকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়াটা সঠিক হবে না। তবে কথা বলার পর যেটা নেওয়া উচিত, তেমন সিদ্ধান্তই নেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, ব্যক্তিগত অনেক সমস্যা আছে। সেটা থাকতেই পারে। সবকিছুতে বিসিবিকে জড়ালে হবে না। বিসিবির পক্ষে সব সমস্যা সমাধান করাও সম্ভব নয়।

শাস্তির পাশাপাশি বিতর্কিত কর্মকাণ্ড রোধে ক্রিকেটারদের মনোভাব পাল্টানোর উদ্যোগও নিতে যাচ্ছে বিসিবি। মনোবিদের স্মরণাপন্ন হওয়ার কথা ভাবছে, আমরা মনোবিদ নিয়ে আসার কথা ভাবছি। যাতে খেলোয়াড়দের এসব বিষয় নিয়ে (নারী সম্পর্কিত) কিছূ পরামর্শ বা উপদেশ দেওয়া যায়। আমরা শুধু খেলোয়াড়দের খেলায় জেতার প্রশিক্ষণই দিই। এখন এসব ব্যাপারেও কিছু করা যায় কিনা ভাবছি। খেলোয়াড়েরা কি করতে পারবে, কি করতে পারবে না, এসব বিষয় আর কি।

তবে সিদ্ধান্ত যাই নিক, সেটা নেওয়া হবে শুনানীর পর। এখন সবার কৌতুহল তাই শনিবারের শুনানির দিকেই।

ডেইলি বাংলাদেশ/সালি