শুধু দর্শনার্থী নয়, বই বিক্রিও বেড়েছে

ঢাকা, বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ১৮ ১৪২৬,   ০৭ শা'বান ১৪৪১

Akash

শুধু দর্শনার্থী নয়, বই বিক্রিও বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:০৬ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

একুশে বইমেলার ১৬তম দিন শনিবার প্রচুর দর্শানার্থীর ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। এদিন সকাল ১১টা থেকে মেলা শুরু হয়ে রাত ৯টায় শেষ হয়। দর্শনার্থীর তুলনায় বেচা-বিক্রি বেশ ভালো ছিলো স্টলগুলোতে। ক্রেতাদের চাহিদার শীর্ষে উপন্যাস, বিজ্ঞান, সাইন্স ফিকশন, প্যারাসাইকোলজি ও শিশুদের বইয়ের চাহিদা বেশি বলে জানান একাধিক প্রকাশনীর বিক্রয় কর্মীরা।

অনুপম প্রকাশনীর স্টলে দেখা যায় দর্শনার্থীদের ভিড়। স্টলেই কথা হয় প্রতিষ্ঠানটির প্রকাশক ও সম্পাদক মিলন কান্তি নাথের সঙ্গে। তিনি বলেন, আজ দর্শনার্থীর তুলনায় বেচা-বিক্রি বেশ ভালো। মেলার শুরু থেকে এ পর্যন্ত গত শুক্রবার সব থেকে বেশি বিক্রি হয়েছে। এরপর বলতে গেলে শনিবারের কথাই বলতে হবে। আমাদের প্রকাশিত বইগুলোর মধ্যে বিজ্ঞান, শিশু ও বিষয়ক বই এবং উপন্যাস বেশি বিক্রি হচ্ছে। শিশুদের বইয়ের মধ্যে মুহাম্মদ জাফর ইকবালে ‘যখন টুনটুনি তখন ছোটাচ্চু’ বইটির চাহিদা সব থেকে বেশি। আর উপন্যাসের কথা বলতে গেলে প্রায়ত হুমায়ুন আহমেদের ধারে কাছেও কেউ নেই।

একই রকম ভিড় দেখা যায় অনিন্দ্য প্রকাশের স্টলে। বিক্রয় কর্মীরাও বই বিক্রিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এই স্টলের বিক্রয় কর্মী নুর আহমেদ শিবলী জানান, বেচা-বিক্রিতে দারুন খুশি তারা। শুক্র ও শনিবার যে বেচা-বিক্রি হয়েছে তা মেলার শুরু থেকে অন্যকোন দিনও হয়নি। অনিন্দ্য প্রকাশের স্টলে চাহিদার শীর্ষে রয়েছে সাইন্স ফিকশন ও প্যারাসাইকোলজি বইগুলো। এর মধ্যে সব থেকে বেশি বিক্রি হচ্ছে মোশতাক আহমেদের ‘স্বপ্নস্বর্গ’ বইটি। তাদের স্টলে চাহিদার দ্বিতয়ি স্থানে রেদয়ান মাসুদের ‘অপেক্ষা’ ও ‘অপেক্ষা-২’ বই দুটি। এছাড়া তাদের প্রকাশিত অন্য বইগুলোও বেশ ভালো বিক্রি হচ্ছে বলে জানান শিবলী।

এদিকে সকাল ১০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় শিশু-কিশোরদের সাধারণ জ্ঞান ও উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত নির্বাচন। প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে ২১ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতায় মো. মুনতাজিম রহমান সায়মন (প্রথম স্থান), তাইয়্যেবা ও নুসাইবা নাজমী খান (দ্বিতীয় স্থান) ও মো. শাহারিয়ার আহম্মেদ (তৃতীয় স্থান) অধিকার করে। 

উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় নিসার বিন সাইফুল্লাহ জাহিন (প্রথম স্থান), কাশফিয়া কাওসার চৌধুরী (দ্বিতীয় স্থান) ও শাঁওলী সামরিজা (তৃতীয় স্থান) অধিকার করে। প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্পী অণিমা মুক্তি গমেজ, হাসান মাহমুদ এবং ক্রীড়াবিদ রঞ্জিত চন্দ্র দাস।

ডেইলি রাংলাদেশ/এসএম/এমআরকে