শীর্ষ ৫ ব্যর্থ হত্যাচেষ্টা

.ঢাকা, বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১০ ১৪২৬,   ১৮ শা'বান ১৪৪০

শীর্ষ ৫ ব্যর্থ হত্যাচেষ্টা

 প্রকাশিত: ১৪:৫২ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:৫২ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ব্যর্থ হত্যাচেষ্টা

ব্যর্থ হত্যাচেষ্টা

ইতিহাসের পাতায় খুঁজলে বিশ্বকে নাড়িয়ে দেয়া এমন অনেক হত্যাকাণ্ডের কথা জানা যায়। যা পরিবর্তন করে দিয়েছে পৃথিবীর চালচিত্র। অাবার এমন অনেক হত্যাচেষ্টা আছে যেগুলো সফল হয়নি। বিখ্যাত অনেকেই বেঁচে গেছেন ওইসব হত্যাচেষ্টা থেকে। যদি সেসব চেষ্টা সফল হত তাহলে হয়তো বদলে যেতো আজকের এই পৃথিবী। আজকে থাকছে এমন ৫টি ব্যর্থ হত্যাচেষ্টার গল্প।

অ্যাডলফ হিটলার:

অ্যাডলফ হিটলারকে ৪২ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়। এরমধ্যে বেশি আলোচিত ‘অপারেশন ভালকিয়ের’। এই অপারশনের অংশ হিসেবে বিস্ফোরক ভর্তি একটি ব্যাগ আসন্ন একটি সভায় হিটলারের চেয়ারের পাশে রাখা হয়। কিন্তু কোন এক অজ্ঞাত কারনে দেখা যায় হিটলার সভায় ঠিক ওই চেয়ারে বসেননি। তার জায়গায় মারা যান জেনারেল হেইঞ্জ ব্র্যান্ডট্। আর হিটলার সে হামলায় কানে সামান্য আঘাত পান।

বেনিটো মুসোলিনি:

বন্ধু অ্যাডলফ হিটলারের মতো মুসোলিনিও তার জীবনে অনেকবার হত্যাচেষ্টার স্বীকার হন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরপরই ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত হওয়ার আগে ইতালির এই স্বৈরশাসকের উপর বিভিন্ন সময় হামলা চালানো হয়। কিন্তু প্রতিবারই হামলা থেকে বেঁচে যান তিনি। এরমধ্যে আলোচিত ছিল এক আইরিশ মহিলার ঘটনা। আইরিশ এই মহিলা মুসোলিনির নাকে সামান্য আঘাত করতে পারা ছাড়া আর কিছু করতে পারেননি।  

গামাল নাসের:
কিন্তু প্রায় দুই দশক আরব জাতীয়তাবাদের চালিকাশক্তি ছিলেন মিশরের নেতা গামার নাসের। এবং এই কারণেই তিনি ইসরায়েলের চোখে শত্রু হয়ে যান। ১৯৫৪ সালের অক্টোবরে তার উপর হামলা চালানো হয়। নাসের বেতারের সরাসরি সম্প্রচারকৃত একটি অনুষ্ঠানে ভাষণ দিচ্ছিলেন। হঠাৎই পরপর আটটি গুলি চালানো হয় তাকে লক্ষ্য করে। কিন্তু সৌভাগ্যক্রমে তার গায়ে বুলেট আঘাত করতে পারেনি। বেঁচে যায় গামাল নাসের। ওইদিন যদি তার মৃত্যু ঘটতো তাহলে মিশরের ইতিহাস অন্যরকমও হতে পারত।

ফিদেল কাস্ত্রো:

শোনা যায় কিউবার এই নেতাকে ৬৩৪ বার হত্যার চেষ্টা চালানো হয় যার অধিকাংশের পেছনে ছিল সিআইএ। মার্কিন গোয়েন্দাদের পাশাপাশি নির্বাসিত কিউবানরাও চেষ্টা চালিয়েছেন। যদিও এ নিয়ে অনেক বির্তক রয়েছে তবে এটা সত্য যে কাস্ত্রো প্রতিবারই বেঁচে ফিরেছেন হত্যাচেষ্টা থেকে। সিআইএ এর করা কিছু পরিকল্পনাও ছিল মজার। স্কুবা ডাইভিং ভালোবাসতেন কাস্ত্রো। সুযোগ লুফে নিয়ে সিআইএ একটি ডাইভিং পোশাক তৈরি করে যা কাস্ত্রোর ত্বকে জীবাণু আক্রমণ করবে। কিন্তু সিআইএ এর চেষ্টা সফল হয়নি। এরপর কাস্ত্রোর এক প্রাক্তন প্রেমিকাকে প্রলুব্ধ করে কাস্ত্রোকে হত্যার সিআইএ'র  চেষ্টাও ব্যর্থ হয়।

ফ্র্যাঙ্কলিন রুজভেল্ট:
রুজভেল্টকে বলা হয় সব থেকে বেশি সময় ক্ষমতায় থাকা মার্কিন প্রেসিডেন্ট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরবর্তী সংকটময় মুহুর্তে যুক্তরাষ্ট্রকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। হত্যার জন্য তার ওপরও হামলা চালানো হয়। ১৯৩৩ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারী মিয়ামিতে এক জনসভায় বক্তৃতা করার সময় এক ইটালিয়ান তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। প্রথম গুলি ফসকে যায়। জনসভায় সবার ছুটোছুটি শুরু হয়ে যায়। তাই পরের চারটি গুলিও লক্ষ্যভ্রষ্ঠ হয়। আহত হন শিকাগোর মেয়র। পরে জানা যায় হামলাকারী মানসিকভাবে অসুস্থ ছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসজেড