Alexa ‘শিল্প কারখানাগুলোতে শতভাগ জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে’ 

ঢাকা, বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ২ ১৪২৬,   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪০

‘শিল্প কারখানাগুলোতে শতভাগ জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে’ 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:০৯ ১১ এপ্রিল ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বিদ্যুৎ,জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রি নসরুল হামিদ  বলেছেন, অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে স্থাপিত শিল্পকারখানাগুলোতে শতভাগ জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে। 

বৃহস্পতিবার ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ‘জ্বালানির মূল্য নির্ধারণ: শিল্পখাতে এর প্রভাব’ বিষয়ক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তবে এ কথা বলেন তিনি।

সে সময় প্রতিমন্ত্রি বলেন,বর্তমান সরকার ২০০৯ সাল থকেইে গ্যাস ব্যবস্থাপনার বিষয়টিকে  গুরুত্ব দিয়েছে। এ জন্য গ্যাস ব্যবস্থাপনার একটি মহাপরিকল্পনাও  হাতে নিয়েছে

গ্যাস ক্ষেত্রে  কূপ খননের বিষয়টি মোটেও সহজসাধ্য নয় উল্লেখ করে নসরুল হামিদ বলেন, এই কাজের জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থ ও সময় প্রয়োজন। সেই সঙ্গে প্রাপ্ত গ্যাসের পরিমাণ সময় ও খরচের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত করা খুবই জরুরি।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রি আরো বলেন, গ্যাসের পরিমিত ব্যবহার নিশ্চিত করা জরুরি। সরকার বিদ্যুৎ ও গ্যাস খাতে বিপুল পরিমাণ ভর্তুকি দিয়ে থাকে অথচ এই দুই খাতে অপরিশোধিত বিলের পরিমাণ প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা। কাজেই এই বকয়ো বলি পরশিোধ করা খুবই জরুরি।

তিনি গ্যাস ও বিদ্যুৎ সম্পদের যথাযথ ব্যবহার ও ব্যবস্থাপনার জন্য শিল্প  উদ্যোক্তাদের  প্রতি পরিকল্পিত অর্থনৈতিক এলাকায় শিল্প উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান।

প্রস্তাবতি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে শিল্প কারখানা স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হলে নিরবিচ্ছিন্ন গ্যাস ও বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দেন বিদ্যুৎপ্রতিমন্ত্রী।

ঢাকা চেম্বারের  সভাপতি ওসামা তাসীর বলেন, চলতি বছররে মার্চে পেট্রোবাংলা এবং অন্যান্য গ্যাস সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো  গ্যাসের ক্ষেত্রে গড়ে ১০২শতাংশ মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব করে। এর মধ্যে ১৩২শতাংশ শিল্পখাত, ক্যাপটিভ পাওয়ারের জন্য ৯৬শতাংশ এবং বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ২০৮শতাংশ মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাবনা করা হয়। 

তিনি বলেন, শিল্প উৎপাদন অব্যাহত রাখতে অধিকতর চাপ সম্পন্ন গ্যাসের নিরবিচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করা জরুরি। প্রস্তাবিত মূল্য বৃদ্ধির হার কার্যকর হলে শিল্পখাতের উৎপাদন খরচ বাড়বে যা বিশেষ করে সার, বস্ত্র, ডেনিম, তৈরি পোশাক, সিমেন্ট প্রভৃতি খাতের ওপর প্রভাব পড়তে পারে। প্রতিযোগী দেশগুলোর সঙ্গে ব্যবসায় টিকে থাকতে হলে স্বল্পমূল্যে নিরবিচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে। সেই সঙ্গে এলএনজির মূল্য নির্ধারণে গবেষণা পরিচালনাসহ তিন থেকে পাঁচ বছর মেয়াদি গ্যাস মূল্য নীতিমালা প্রণয়নের উপর জোর দেন চেম্বার সভাপতি।               

সেমিনারে বিদ্যুৎ বিভাগের প্রাক্তন সচিব ড.এম ফওজুল কবির খান মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন।    

সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ডিসিসিআেই পরিচালক শামস মাহমুদ, আলহাজ্ব দ্বীন মোহাম্মদ, এনামুল হক পাটোয়ারী, ইঞ্জিনিয়ার মো. আল আমিন, মোহাম্মদ বাশীর উদ্দিন, এস এম জিল্লুর রহমান এবং আহ্বায়ক মালিক তালহা বারী প্রমুখ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএস/এমআরকে