Alexa শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের মুনাফা ২১% বেড়েছে

ঢাকা, শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২২ ১৪২৬,   ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের মুনাফা ২১% বেড়েছে

 প্রকাশিত: ১৩:৫২ ২২ জুলাই ২০১৭  

চলতি হিসাব বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের মুনাফা ২০ দশমিক ২১ শতাংশ বেড়েছে। এপ্রিল-জুন সময়ে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৫২ পয়সা। হিসাব বছরের প্রথমার্ধ শেষে এর ইপিএস দাঁড়িয়েছে ১ টাকা ৩ পয়সা। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি হিসাব বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ইপিএস হয়েছে ৫২ পয়সা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৪৩ পয়সা। জানুয়ারি-জুন সময়ে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৩ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৮১ পয়সা। ৩০ জুন কোম্পানির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ১৯ টাকা ৭ পয়সায়। ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০১৬ হিসাব বছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সম্প্রতি বার্ষিক সাধারণ সভায় তা অনুমোদন করেছেন শেয়ারহোল্ডাররা। গেল হিসাব বছরে প্রতিষ্ঠানটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ২৬ পয়সা, আগের বছর যা ছিল ১ টাকা ৭৯ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর এর এনএভিপিএস দাঁড়ায় ১৭ টাকা ৭০ পয়সায়। দীর্ঘমেয়াদে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ঋণমান ‘ডাবল এ টু’ ও স্বল্পমেয়াদে ‘এসটি-টু’। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও হালনাগাদ অন্যান্য তথ্যের ভিত্তিতে এ প্রত্যয়ন করেছে ক্রেডিট রেটিং এজেন্সি অব বাংলাদেশ লিমিটেড (সিআরএবি)। ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ১৩ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় ব্যাংকটি। ডিএসইতে শাহজালাল ব্যাংক শেয়ারের সর্বশেষ দর ছিল ১৭ টাকা ২০ পয়সা। সমাপনী দর ছিল ১৭ টাকা ১০ পয়সা, আগের কার্যদিবসেও যা ছিল ১৭ টাকা ১০ পয়সা। গত এক বছরে শেয়ারটির দর ১১ টাকা ২০ পয়সা থেকে ১৮ টাকা ২০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। ২০০৭ সালে তালিকাভুক্ত ব্যাংকটির অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি টাকা ও পরিশোধিত ৭৭১ কোটি ৪২ লাখ ২০ হাজার টাকা। রিজার্ভ ৫২৯ কোটি টাকা। মোট শেয়ারের সংখ্যা ৭৭ কোটি ১৪ লাখ ২২ হাজার ৫৩৯। এর মধ্যে ৪১ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ এর উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, ৩৩ দশমিক ৩১ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও বাকি ২৫ দশমিক ৬২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে। ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই