Alexa শপথ নেয়ার আজই শেষ সুযোগ

ঢাকা, সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৫ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

শপথ নেয়ার আজই শেষ সুযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৩ ২৯ এপ্রিল ২০১৯   আপডেট: ১৭:৪৩ ২৯ এপ্রিল ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে নির্বাচিত পাঁচজনকে আজকের মধ্যে শপথ নিতে হবে। অন্যথায় তাদের সদস্যপদ খারিজ হয়ে যাবে।

শপথ না নেয়া পাঁচজন হলেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর (বগুড়া-৬), আমিনুল ইসলাম (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২), মো. হারুনুর রশীদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩), উকিল আবদুস সাত্তার (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২) ও মো. মোশাররফ হোসেন (বগুড়া-৪ আসন)। এর আগে গত বৃহস্পতিবার জাহিদুর রহমান শপথ নিয়েছেন। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বাদে অন্যদের সংসদে যোগ দেওয়ার জোর গুঞ্জন আছে।

সংবিধান অনুসারে সংসদের প্রথম বৈঠকের পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচিত এমপিদের শপথ গ্রহণ করতে হবে। তা না হলে সদস্যপদ বাতিল করে আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। একাদশ সংসদের প্রথম বৈঠক বসে গত ৩০ জানুয়ারি। এই হিসাবে ২৯ এপ্রিলের মধ্যে নির্বাচিতদের শপথ নিতে হবে।

বিএনপি থেকে নির্বাচিতরা শপথ নিতে আগ্রহী। কিন্তু জাহিদুর রহমান শপথ নেওয়ার পর দলের শীর্ষ নেতৃত্বের তৎপরতার কারণে অন্যরা দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছেন বলে জানা গেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচিত হারুনুর রশীদ একাদশ জাতীয় সংসদের আইনপ্রণেতা হিসেবে শপথ নিতে চান, তবে সেজন্য ‘দলের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়’ থাকার কথা বলেছেন তিনি।

শপথ গ্রহনের শেষ দিন সোমবার দুপুরে তিনি বলেন, আমরা দলের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। আমরা অভিমত জানিয়েছি দলকে। আশা করছি একটা ভালো খবর পাব। তার আগে অন্য কোনো মন্তব্য করতে পারছি না। আজই শেষ দিন। ইয়েস অর নো একটা সিদ্ধান্ত আসবেই। তিনি বলেন, সংসদ অধিবেশন চলছে। সুতরাং যে কোন সময় আমরা শপথ নিতে পারব।

নির্বাচিত আমিনুল ইসলাম ও হারুনুর রশীদ আজ শপথ নিতে পারেন বলে আলোচনা আছে। এর মধ্যে হারুনুর রশীদ বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব পদে আছেন। পুরোনো নেতা উকিল আবদুস সাত্তারের ভূমিকা কী হয়, তা নিয়ে উৎকণ্ঠা আছে। গত বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে তিনি বলেছিলেন, যাতে একটি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি, সে জন্য দোয়া করবেন।

উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনে মাত্র ছয়টি আসন পায় বিএনপি। আর গণফোরামের দুটি মিলিয়ে জোট হিসেবে ঐক্যফ্রন্ট পায় মোট আটটি আসন। এর মধ্যে গণফোরামের দু’জন ও বিএনপির একজন এমপি হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস

Best Electronics
Best Electronics