শতাব্দী পরিবহনে ধর্ষণের শিকার এক গার্মেন্টস কর্মী

ঢাকা, সোমবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৭,   ১০ সফর ১৪৪২

শতাব্দী পরিবহনে ধর্ষণের শিকার এক গার্মেন্টস কর্মী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:৩৭ ৬ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ০১:১৫ ৭ আগস্ট ২০২০

ধর্ষক বাস চালক মো. রাফি ও তার সহকারি বিদ্ধান মিয়া

ধর্ষক বাস চালক মো. রাফি ও তার সহকারি বিদ্ধান মিয়া

রাজধানীর মিরপুরের শাহ আলী এলাকায় চলন্ত বাসে এক গার্মেন্টস কর্মী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। গত কাল বুধবার রাতে অচেতন অবস্থায় ওই কিশোরীকে মিরপুর চিড়িয়াখানা রোডের উমা মেডিকেলের সামনে থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

শাহ আলী থানার ওসি আবুল বাসার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানের নির্দেশে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ মেহেদী হাসান একটি চৌকশ টিমের অভিযানে বুধবার রাতেই আসামি বাস চালক মো. রাফি ও চালকের সহকারি বিদ্ধান মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় ধর্ষকদের ব্যবহার করা গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-২০২৭) আটক করা হয়েছে।

শাহ আলী থানার ওসি ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, এই কিশোরী একটি পোশাক কারখানার কর্মী। তার বাবা-মা নেই। পালিত কন্যা হিসেবে পল্লবীর কালশী এলাকায় একটি পরিবারের সঙ্গে থাকে।

তিনি আরো বলেন, মেয়েটি গত বুধবার দুপুরে তার এক আত্মীয়ের বাসা আমিন বাজারে যাওয়ার উদ্দেশ্যে আব্দুল্লাহপুর-চিড়িয়াখানা রোডের শতাব্দী পরিবহনের বাসে উঠে। কিন্তু কিশোরীকে ভুল বুঝিয়ে গাড়ির ড্রাইভার রাফি ও হেলপার বিদ্ধান তাকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করেন। এরপর রাতে চিড়িয়াখানা রোডে এক নির্জন স্থানে জোর করে ধর্ষণ করে।

ওসি বলেন, ধর্ষিতা ওই কিশোরীকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পরীক্ষা ও চিকিৎসা করানোর পর তাকে কাস্টডিতে রাখা হয়েছে। এই বিষয়ে শাহ আলী থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণের একটি মামলা করা হয়েছে।

ওসি আরো বলেন, গ্রেফতার আসামিদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালতে তারা দু’জনই ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি  দেয়। পরে তাদেরকে কারাগারে পঠানো হয়। এ ঘটনায় আর কেউ জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসবি/আরএ