লোহা-লক্করের দোকানে আইফেল টাওয়ার বিক্রি!

ঢাকা, সোমবার   ১৭ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৩ ১৪২৬,   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

লোহা-লক্করের দোকানে আইফেল টাওয়ার বিক্রি!

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:০৪ ২৪ মে ২০১৯   আপডেট: ১৩:৫৬ ২৫ মে ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

আইফেল টাওয়ার বিক্রি করাও কি সম্ভব! তা না হলে এই ব্যক্তি কীভাবে প্যারিসের জনপ্রিয় এই টাওয়ারটি বিক্রি করলেন? অনেকটাই হিন্দি ছবি ‘বান্টি ঔর বাবলি’র প্রথম সংস্করণ। পার্থক্য, এখানে বাবলি নেই। একা বান্টি থুড়ি ভিক্টর লাস্টিং-ই কামাল করেছেন। একবার নয় দু’বার আইফেল টাওয়ার বিক্রি করে দিয়েছেন। তাও আবার যারা পুরনো লোহা-লক্কর কেনেন তাদের কাছে। ভাবছেন, এমন উদ্ভট খেয়াল কেন চাপল এমন চোর চূড়ামণির মাথায়? উত্তরটা খুব সোজা। বিনা পরিশ্রমে চটজলদি অনেক টাকা রোজগার করবেন বলে। আর এই কাজ করেই তিনি হাসতে হাসতে নিজের নাম তুলে ফেলেছেন ইতিহাসের পাতায়।

গত ২১ মে, এক ভবঘুরে প্যারিসের এই গর্বকে ছুঁয়ে দেখবেন বলে টাওয়ার বেয়ে উঠে পড়েন অনেকটা। তিনি বোধহয় খবর পাননি, টাওয়ারটি দু'বার বিক্রি হয়ে গেছে! টাওয়ার বিক্রির গপ্পো তো শুনবেনই। তার আগে পরিচয় হোক ভিক্টর লাস্টিংয়ের সঙ্গে। ১৮৯০ সালে অস্ট্রেলিয়া-হাঙ্গারিতে জন্ম ভিক্টরের। পড়াশোনা প্যারিসে। যদিও ভিক্টর পড়তেন কম চুরি-জোচ্চুরি-পকেটমারি করতেন বেশি। এভাবেই ছিঁচকে চুরিতে হাত পাকাতে পাকাতে ১৯২৫-এ তিনি পাক্কা জুয়াচোর। তখন আর মন ভরছে না ছোটোখাটো চুরিতে। এই সময়েই একদিন মাথায় বুদ্ধি এল, ভাঙা লোহা-লক্করের দোকানে আইফেল টাওয়ারকে বেঁচে দিলে কেমন হয়! 

আইফেল টাওয়ার বেঁয়ে উঠছেন এক ব্যক্তিটাওয়ারটাও তো অনেকদিনের পুরনো। যেমন ভাবা তেমনি কাজ। প্রথমে নিজেকে সরকারি অফিসার বলে পরিচয় দিলেন ভিক্টর। তারপর, নিয়ম মেনে টেন্ডারও ডাকলেন। সবচেয়ে আশ্চর্যের ব্যাপার, সেই ডাকে সাড়া দিল শহরের সবচেয়ে নামী পাঁচ সংস্থা! তাদের মধ্যে ভিক্টর বাঁছলেন আন্দ্রে পয়সনকে। একটি ইংরেজি দৈনিকের খবর পড়ে কর্তৃপক্ষের কাছে এত সুন্দর বর্ণনা দিলেন টাওয়ারের যে এক কথাতেই রাজি হয়ে গেল কিনতে! তারপর, ৭০ হাজার ডলারে বেঁচে দিলেন আইফেল টাওয়ার! যা আজকের দিনে কয়েক লাখ কোটি টাকার সমান। 

তারপর? প্যারিস ছেড়ে ভিক্টর উধাও হয়ে গেলেন অস্ট্রেলিয়ায়। কিছুদিন সেখানে গা ঢাকা দিয়ে থাকার ফের এলেন প্যারিসে। ফের কাজে লাগালেন চুরি বিদ্যের মতো মহাবিদ্যাকে। আবার বেঁচে দিলেন আইফেল টাওয়ার।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস