.ঢাকা, সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ৮ ১৪২৬,   ১৬ শা'বান ১৪৪০

লেবু পানির ম্যাজিক

 প্রকাশিত: ১৪:৪৩ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:২৩ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

লেবু পানি

লেবু পানি

লেবুর উপকারিতা বলে শেষ করা কঠিন! খাবারের স্বাদ বাড়াতে কিংবা সরবত তৈরি করতে লেবুর ব্যবহার সর্বাধিক। লেবুতে ভিটামিন সি ও খনিজ উপাদান সমূহ শরীরের জন্য অনেক উপকারি।

হৃদযন্ত্রের অতিরিক্ত কম্পন কমানো থেকে ফুসফুসকে নিয়ন্ত্রণ করতে এর জুড়ি নেই। সকাল সকাল লেবু পানি পান করা যে কতটা ভালো, তা অনেকেই জানেন না। যদি রোজ এক কাপ লেবু পানি পান করেন তবে আপনার দেহ পাবে অনেক জাদুকরী উপকারিতা।  

১. লেবুতে থাকে ইলেকট্রোলাইশিয়াম (পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ইত্যাদি)। তাই সকালে লেবু পানি পান করলে এটি আপনাকে হাইড্রেড করে তুলবে। এটি শরীরে যোগান দেয় এমন সব প্রয়োজনীয় উপাদান, যা দেহের পানি শূণ্যতা দূর করতে সাহায্য করে।

২. লেবু পানি হাড় জয়েন্ট ও মাংসের ব্যথা দ্রুত কমাতে সাহায্য করে।

৩. ঘনঘন কৃমির আক্রমণ প্রতিরোধ করবে লেবু পানি।

৪. লেবু পানি লিভারের জন্য খুব উপকারি। কারণ এটি পান করার ফলে লিভার অনেক বেশি দেহের জন্য প্রয়োজনীয় এনজাইম তৈরি করতে পারে। 

৫. লেবু পানি লিভার থেকে টক্সিন উপাদান দূর করতে সাহায্য করে। এর ফলে লিভার পরিষ্কার হয়ে যায়।

৬. পেট পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে লেবু পানি। যার ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়ে যায়।

৭. লেবু পানি দেহের মেটাবেলিজম বৃদ্ধি করে। এছাড়াও লেবুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে থাকে।

৮. লেবু পানি নার্ভাস সিস্টেমের জন্য কাজ করে। সকাল সকাল লেবু পানি পান করলে এটি আপনার বিষন্নতা ও উৎকণ্ঠা দূর করতে সাহায্য করবে।

৯. লেবু পানি রক্তবাহী ধমনী ও শিরাগুলোকে পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। যার ফলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে।

১০. লেবু পানি উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

১১. লেবু পানি শরীরের পি এইচ লেভেল উন্নত করতে সাহায্য করে থাকে। শরীরের পিএইচ লেভেল যত বেশী বৃদ্ধি পাবে, এর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও তত বেশি বৃদ্ধি পাবে।

১২. লেবু পানি ইউরিক এসিড সমস্যা দূর করতেও সাহায্য করে।

১৩. ত্বকের জন্যও এই পানীয় খুবই ভালো। লেবুতে আছে ভিটামিন সি, যা ত্বক ও টিসুর জন্য খুবই উপকারি।

১৪. লেবু পানি বুক জ্বালা কমাতে সাহায্য করে। এই সমস্যা থাকলে রোজ আধা কাপ পানির সঙ্গে ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পান করতে পারেন।

১৫. কিডনি ও প্যানক্রিয়াসের পাথর দূর করতেও অসাধারণ কাজ করে লেবু পানি।

১৬. লেবু পানি দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে। কারণ লেবুতে পেকটিক ফাইভার থাকে। যা ক্ষুদা নিয়ন্ত্রণ করে। 

১৭. গর্ভবতী নারী ও গর্ভের শিশুর জন্য লেবু পানি খুবই উপকারি। লেবুতে বিদ্যমান উপাদান (ভিটামিন সি ও পটাশিয়াম) শিশুর হাড়, মস্তিষ্ক ও দেহের কোষ গঠনে সাহায্য করে।

১৮. দাঁতের সমস্যা প্রতিরোধ ও দাঁত ব্যথা কমায় লেবু পানি।

১৯. ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে লেবু পানি। যার ফলে ক্যান্সার প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

২০. লেবু পানি গিটে ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে।

২১. গলা ব্যথা, টন্সিলের সমস্যা, শ্বাসযন্ত্রের ইনফেকশন সারিয়ে তুলতেও অনেক ভালো কাজ করে।

২২. লেবু পানি দেহের ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে থাকে। তাই রোজ এক গ্লাস করে লেবু পানি পান করলে উচ্চ রক্তচাপ প্রায় ১০ শতাংশ কমে যায়।

২৩. আধা গ্লাস পানির সঙ্গে সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে পোড়া ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। লেবুর পানি নতুন কোষগুলোকে সজীব করে তুলতে সাহায্য করবে। যার ফলে যেকোন ক্ষত দ্রুত নিরাময় হয়। 

২৪. লেবু পানি পিত্তথলী, অগ্নাশয় ও কিডনির পাথর প্রতিরোধ করে থাকে।

২৫. লেবু পানি মুখের দুর্গন্ধ দূর করতেও খুব উপকারী। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস/এসজেড/আরআই