লালচে বেগুনি টিপা ফল

.ঢাকা, বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১১ ১৪২৬,   ১৮ শা'বান ১৪৪০

লালচে বেগুনি টিপা ফল

 প্রকাশিত: ১৮:৪০ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৮:৪০ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

টিপা ফল

টিপা ফল

লালচে বেগুনি রঙের মার্বেল আকৃতি ফলটির নাম টিপা ফল। রাস্তার ধারে আমলকি, বড়ই আমড়া বিক্রেতার ঝুড়িতে এ ফল দেখতে পাওয়া যায়। অনেকের হয়তো এর নাম জানা নেই বা এর স্বাদ হয়তো পাওয়া হয়নি।এ ফলটি খেতে টক মিষ্টি স্বাদযুক্ত। বাংলাদেশের একেক অঞ্চলে এই ফলের নাম একেক রকম। যেমন: পেলা গোটা, টরফই, পানিয়ালা, লুকলুকি, বৈঁচি, টিপফল, টিপাটিপি, পায়েল, পানি আমলা, ঝিটকি, বেহূই ইত্যাদি।

এটি বাংলাদেশের অপ্রচলিত একটি ফল। ঝোপঝাড় বন-জঙ্গলে এ গাছ খুঁজে পাওয়া যায়। বর্তমানে এর ব্যাপক চাষ হচ্ছে। টিপা ফলের বৈজ্ঞানিক নাম Flacourtia jangomas বা Flacourtia cataphracta। এর ইংরেজি নাম Indian plum বা coffee plum । এটি নিচু ভূমি ও বৃষ্টিবহুল অঞ্চলের উইল ও পরিবার ভুক্ত বৃক্ষ। বর্তমানে দক্ষিণ এশিয়া ও পূর্ব এশিয়াতে এ গাছের ব্যাপক চাষ হয়। এর আদি নিবাস জানা যায়নি তবে ধারণা করা হয় এশিয়ার ক্রান্তীয় অঞ্চল বা ভারতবর্ষে উদ্বুদ্ধ।

এটি ছোট গুল্ম বা বৃক্ষ জাতীয় কাঁটাযুক্ত উদ্ভিদ। উচ্চতা ১০ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। কাঁটাগুলো যুক্ত ও যুথ বদ্ধ। ডালগুলো কাঁটাযুক্ত। পাতা সবুজ রংয়ের, একক, ডিম্বাকৃতি, কিছুটা লম্বাটে, অগ্রভাগ সূঁচালো ও ঢেউ খেলানো। পাতার কিনারা সামান্য খাঁজকাটা। গাছে মার্চ-এপ্রিলে ফুল আসে। ফল পাকে আগস্ট-সেপ্টেম্বরে। নভেম্বর মাস পর্যন্ত গাছ থেকে ফল সংগ্রহ করা যায়। ফুল সাধারনত গুচ্ছাকারে হয়ে থাকে, আকৃতি ছোট, সাদাটে সবুজ থেকে বেগুনি রংয়ের এবং সুগন্ধি। ফল গোলাকার মার্বেলের মতো, চামড়া মসৃণ ও পাতলা। কাঁচা অবস্থায় এটি সবুজ রঙের। পাকলে লালচে বেগুনি। পাকা ফলের ভেতরটা বাদামী বা কালচে গোলাপি রঙের।  

টিপে টিপে এ ফল খেতে হয়। না টিপেও খাওয়া যায়। কিন্তু সেক্ষেত্রে এর স্বাদ টক এবং কষ্টি। টেপার পর ভিতরে নরম ও মিষ্টি স্বাদযুক্ত হয়ে যায়। আচার ও ভর্তা করে এ ফল খাওয়া যায়। টিপা ফলের প্রায় ৬০ ভাগে রয়েছে আয়রন। এ ছাড়াও রয়েছে সালফার, ফসফেট, ও প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি।এ  গাছের ছালে রয়েছে ঔষধি গুন। গ্রামাঞ্চলে দাঁত ব্যথা উপসমে এ গাছের শিকড় ব্যবহৃত হয়। পাকা ফল হজমশক্তি ও মুখের স্বাদ বৃদ্ধি করে, লিভারের ক্যান্সার দমন করতে সহায়তা করে। হৃদরোগ ও ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য দারুন উপকারী এ টিপা ফল।