মাছের চিকিৎসায় অ্যাপ

.ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১২ ১৪২৬,   ১৯ শা'বান ১৪৪০

মাছের চিকিৎসায় অ্যাপ

 প্রকাশিত: ১৩:৫৭ ৭ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:০৪ ৭ নভেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গাজীপুরের কালীগঞ্জের মৎস্য অফিসার মৎস্য সংশ্লিষ্ট সেবা সহজতর করাতে উদ্ভাবন করলেন মোবাইল অ্যাপ ‘Dr. Fish (মাছের ডাক্তার)’। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্পকে বাস্তবায়নে এই প্রযুক্তির উদ্ভাবন।

মাছের ডাক্তার হিসেবে সেবা প্রদান করবেন অ্যাপটির উদ্ভাবক কালীগঞ্জ উপজেলা মৎস্য অফিসার মো. লতিফুর রহমান ও বাগেরহাট জেলার মোল্লারহাট উপজেলার সিনিয়র মৎস্য অফিসার রাজকুমার বিশ্বাস।  

এই অ্যাপটির মাধ্যমে রোগাক্রান্ত মাছ, পুকুরের রং ও অবস্থার ছবি পাঠিয়ে মৎস্য অফিসারের সঙ্গে অডিও বা ভিডিও কলের মাধ্যমে সেবা পাবেন। ফলে মৎস্য চাষিগণ সঠিক সময়ে সঠিক সেবা পাবেন। মৎস্য পরামর্শ সেবা প্রাপ্তিতে এ অ্যাপটি ব্যবহারের মাধ্যমে মৎস্য চাষির সময়, খরচ ও যাতায়াত হ্রাস পাবে।

একজন মৎস্য চাষিকে মৎস্য পরামর্শ/সেবা প্রাপ্তিতে ৫০/৩০০ টাকা খরচ করে ১/৫ দিনে ১/৩ বার যাতায়াত করতে হয়েছে। আর অ্যাপটি ব্যবহারের ফলে নিজস্ব স্থানে থেকে ১/১০ টাকা খরচ করে মাত্র ৫/১০ মিনিটের মধ্যেই প্রত্যাশিত সেবা পাচ্ছেন। এতে সময় মত সঠিক পরামর্শ প্রদানের ফলে মাছের মৃত্যু হ্রাস অর্থাৎ চাষির আর্থিক ক্ষতি হ্রাস পায়।

নাগরী এলাকার মৎস্যচাষি নাদিম মাহমুদ জানান, যখন প্রথম মাছ চাষ শুরু করেন, তখন বিভিন্ন সময় মাছ মারা যেত। স্থানীয়দের পরামর্শে উপজেলা মৎস্য অফিসে যোগাযোগ করেন। কিন্তু মৃত মাছ নিয়ে যেতে নানা সমস্যায় পড়তে হতো। ‘Dr. Fish (মাছের ডাক্তার)’ মোবাইল অ্যাপটি ব্যবহারের মাধ্যমে সহজেই তিনি তার সমস্যা সমাধান করতে পারেন।

মৎস্যচাষি আল-আমিন জানান, অনেক সময় সমস্যা নিয়ে উপজেলা মৎস্য অফিসে গেলে দেখা যেত মৎস্য অফিসাররা মিটিং বা ট্রেনিং এ আছে। তখন সেবা পাওয়া যেত না। কিন্তু এখন আর মৎস্য অফিসে যেতে হয় না। মোবাইলেই মাছের ডাক্তার পাওয়া যায়।

মৎস্য অফিসার ও‘Dr. Fish(মাছের ডাক্তার)’ উদ্ভাবক মো. লতিফুর রহমান জানান, মৎস্য চাষিরা যাতায়াত ভাড়ার কথা চিন্তা করে মৎস্য অফিসে সেবা নিতে আসেন না। মৃত মাছ মৎস্য অফিসে নিতে আসতে আসতে পঁচে যাওয়ায় রোগ সনাক্তকারী বৈশিষ্ট নষ্ট হয়ে যায়। মৎস্য চাষিদের সঠিক পরামর্শ প্রদানের মাধ্যমে মাছের মৃত্যু হ্রাস পায় সে লক্ষ্যে ‘Dr. Fish (মাছের ডাক্তার)’ উদ্ভাবন করা হয়েছে ।

তিনি আরো জানান, অ্যাপটি তৈরির ব্যাপারে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান এবং এটুআই প্রকল্প তাকে সহযোগিতা করেছেন।  

উপজেলার নির্বাহী অফিসার খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান জানান, মৎস্য সংশ্লিষ্ট সেবা সহজলভ্য করা। সেবার মানের উৎকর্ষতা বৃদ্ধি এবং তাৎক্ষণিক সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিতকরণে ‘Dr. Fish (মাছের ডাক্তার)’ অ্যাপটি অনন্য মাত্রা ও গতি সঞ্চার করবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসকে