লক্ষ্মীপুরে দরিদ্রদের ঘরে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে ত্রাণসামগ্রী 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭,   ০৯ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

লক্ষ্মীপুরে দরিদ্রদের ঘরে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে ত্রাণসামগ্রী 

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:০৮ ৩০ মার্চ ২০২০  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে লক্ষ্মীপুরে বাড়িতে অবস্থান করা নিম্নআয়ের মানুষের মাঝে সরকারি বরাদ্দের ত্রাণসামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে। 

হতদরিদ্র পরিবারগুলোর খাদ্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে সরকারের এমন কর্মসূচি বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা।

সরকারি ত্রাণ সহয়তায় প্রাথমিকভাবে প্রতিটি পরিবারকে ত্রাণসামগ্রী হিসেবে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি মসুর ডাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ, ৫০০ গ্রাম সরিষার তেল ও একটি সাবান দেয়া হচ্ছে। 

জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে এসব সামগ্রী প্যাকিং করা হয়। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে দরিদ্র পরিবারগুলোর তালিকা করে তালিকা অনুযায়ী তাদের ঘরে ঘরে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মানবিক সহায়তা হিসেবে জেলায় প্রায় ৬০০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। এরমধ্যে ১০০ মেট্রিক টন চাল ও ১০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। প্রয়োজনে পর্যায়ক্রমে বাকি ৫০০ মেট্রিক টন চাল ও ৭ লাখ ৪৯ হাজার টাকা জেলা প্রশাসকের ত্রাণ তহবিল থেকে দেয়া হবে। এরইমধ্যে জেলার ৫টি উপজেলার সবকটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ত্রাণের ৭২ মেট্রিক টন চাল ও ৮ লাখ ২০ হাজার টাকার নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

এদিকে রোববার দুপুরে জেলা কালেক্টরেট ভবন প্রাঙ্গণে ভিক্ষুক, দিনমজুর ও রিকশাচালকসহ নিম্নআয়ের শতাধিক মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছেন ডিসি অঞ্জন চন্দ্র পাল। এই মানুষগুলো অভাবের তাড়নায় সড়কে বের হয়েছিল। পরে ডিসি তাদের ডেকে এনে তাদের হাতে ত্রাণসামগ্রী তুলে দিয়ে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ি থেকে বের না হওয়ার আহ্বান জানান। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত ডিসি (সার্বিক) মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভূঁইয়া, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাহীদুল ইসলাম, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মাহফুজুর রহমান, এনডিসি বনি আমিন প্রমুখ।

ডিসি বলেন, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবিলায় লক্ষ্মীপুর জেলার সার্বিক পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত ভালো রয়েছে। এই দুর্যোগে মানবিক সহায়তা হিসেবে জেলার হতদরিদ্র পরিবারগুলোর মাঝে ত্রাণসামগ্রী যথাযথভাবে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। এতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা নিরলসভাবে কাজ করছেন। 

তিনি আরো বলেন, সরকারি নির্দেশনা মেনে চলমান সংকট কাটিয়ে ওঠা পর্যন্ত ঘরে থাকুন। সামাজিক ও নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় এই সংকট মোকাবিলা করা সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে করোনা মোকাবিলায় লক্ষ্মীপুরে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে এরইমধ্যে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন লক্ষ্মীপুর সদর-৩ আসনের এমপি সাবেক মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহার কামল, এসপি ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামন, লক্ষ্মীপুর পৌরসভার মেয়র আবু তাহের, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু, সদরের ইউএনও শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল, রামগঞ্জের ইউএনও মুনতাসির জাহান, রায়পুরের ইউএনও সাবরীন চৌধুরী, রায়পুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মারুফ বিন জাকারিয়াসহ রাজনৈতিক নেতা ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অনেকেই।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ