লকডাউন বাড়িতে করোনা রোগীর আকুতি, মাঝরাতে ছুটে গেলেন দুই যুবক

ঢাকা, শনিবার   ৩০ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭,   ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

লকডাউন বাড়িতে করোনা রোগীর আকুতি, মাঝরাতে ছুটে গেলেন দুই যুবক

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:১৫ ২৩ মে ২০২০   আপডেট: ২১:৪০ ২৩ মে ২০২০

করোনা রোগীর ফেসবুক পোস্ট ও সাহায্যকারী দুই যুবক

করোনা রোগীর ফেসবুক পোস্ট ও সাহায্যকারী দুই যুবক

ঘড়িতে তখন রাত দেড়টা। চট্টগ্রামের করোনায় আক্রান্ত এক ব্যক্তি তীব্র শ্বাসকষ্টের যন্ত্রণায় ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট দিয়ে জানান একটি নেবুলাইজারের আকুতি।

‘করোনা আপডেট চট্টগ্রাম’ নামক গ্রুপটিতে তিনি লিখেন- আজ আমার করোনাভাইরাস পজেটিভ আসছে। এখন আমার অবস্থা খুব খারাপ, শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। গ্রুপের অ্যাডমিন তানভীর ভাইয়ের সহযোগিতায় জেনারেল হাসপাতালের ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করি। উনি এই মুহূর্তে নেবুলাইজার ব্যবহার করতে বলেছেন। আমি এত রাতে নেবুলাইজার কোথায় পাবো? তাছাড়া আমার বিল্ডিং লকডাউন। গ্রুপে এমন কেউ আছেন, আমাকে একটা নেবুলাইজার জোগাড় করে দিতে পারেন? আমার খুব কষ্ট হচ্ছে।

মুহূর্তেই পোস্টটি ছড়িয়ে পড়ে। সাড়া দেন অনেকেই। কেউ দেন পরামর্শ। আবার কেউ জানতে চান ঠিকানা।

পোস্টের কমেন্ট বক্সে সামিরা জোহারা নামে একজন লেখেন- ফুটন্ত গরম পানিতে একটু বাম অথবা ভিক্স দিয়ে মাথা মুড়ে ভাপ নিন। গরম ভাপ আপনার নাক দিয়ে প্রবেশের ফলে শ্বাস নেয়া সহজ হবে কিছুটা।

কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীনকে মেনশন করে একজন এম সাকিবুর রহমান নামে লেখেন- মহসীন স্যারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এই মুহূর্তে অসুস্থ ব্যক্তিটিকে একমাত্র পুলিশ ভাইয়েরাই সাহায্য করতে পারে বলে আমি মনে করি।

এরইমধ্যে ওই ব্যক্তির ঠিকানা জোগার করেন ‘করোনা আপডেট চট্টগ্রাম’ গ্রুপের অ্যাডমিন তানভীর রনি। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন জাহেদুল ইসলাম শাকিল নামে আরো এক যুবক। তানভীর রনির সঙ্গে যোগাযোগ করে নেবুলাইজার কিনে নিয়ে গেলেন তিনি।

এদিকে ঘটে গেছে আরেকটি চমকপ্রদ ঘটনা। পোস্ট দেখে কাউকে না জানিয়েই একটি নেবুলাইজার কিনে আক্রান্ত ব্যক্তির বাসায় পৌঁছে দেন রিদওয়ানুল হক নামে আরেক যুবক। সেই নেবুলাইজার পেয়ে শাকিলকে কল করে জানান করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি। তবু পিছপা হননি শাকিল। নিজের কেনা নেবুলাইজারটি পৌঁছে দেন আক্রান্ত ব্যক্তির ছেলের হাতে।

যোগাযোগ করলে ‘করোনা আপডেট চিটাগং’ অ্যাডমিন তানভীর রনি ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, পৃথিবীতে কিছু ভালো মানুষ আছে বলেই করোনায় আক্রান্ত মানুষরা এখনো বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখে। রাত দেড়টায়ও সাহায্যের পোস্ট পেয়ে এগিয়ে আসেন গ্রুপের দুই শতাধিক সদস্য। পোস্ট দেখে নেবুলাইজার কিনতে বেরিয়ে পড়েন শাকিল ভাই। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সামনের ফার্মেসি থেকে নেবুলাইজার কিনে পৌঁছে দেন আক্রান্ত ব্যক্তির বাসায়। তার ছেলে নেবুলাইজারটি পেয়ে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর