Exim Bank Ltd.
ঢাকা, শনিবার ১৯ জানুয়ারি, ২০১৯, ৬ মাঘ ১৪২৫

র‌্যাবের হাতে জাল টাকা-রুপি ব্যবসায়ী আটক

শফিকুল বারীডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
র‌্যাবের হাতে জাল টাকা-রুপি ব্যবসায়ী আটক
ফাইল ছবি

র‌্যাবের হাতে ধরা পড়েছে জাল টাকা ও রুপি ব্যবসায়ী চক্রের এক সদস্য। জাল রুপি তৈরির এই কারিগরের নাম শামসুল হক (৪৪)। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় জাল রূপি তৈরির সারঞ্জামাদি।

রাজধানীর শ্যামলী রিং রোডের একটি ফ্ল্যাটে র‌্যাব-২ অভিযান পরিচালনা করে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে গভীর রাতে রিং রোডের গার্ডন স্ট্রিজ ভবনের একটি ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করা হয় ১৫ লাখ ৭৪ হাজার ভারতীয় জাল রুপি। ওই সময় তাকে হাতে নাতে আটক করা হয়।

দেশের বিভিন্ন জাতীয় উৎসবের সময় বা ধর্মীয় উৎসবে জাল টাকা-রুপির ব্যবসায়ীরা সুযোগ কাজে লাগায়। বিশেষ করে ঈদুল আজহার সময় বা পূজা-পালনে তাদের সক্রিয় হয়ে উঠতে দেখা যায়। দেশের অর্থনীতি ধ্বংসকারী এই জাল মুদ্রার ব্যবসায়ীরা বিভিন্নভাবে নেমে পড়েন। তবে দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিশেষ করে র‌্যাবের কর্মতৎপরতায় তারা সুবিধা করে উঠতে পারে না। একের পর এক জাল রুপির কালোবাজারিরা র‌্যাবের জালে ধরা পড়ে।

এদিক গেল শুক্রবার রাজশাহীর বোয়ালীয়া থানা থেকে আটক করা অপর এক জাল মুদ্রার কালোবাজারিকে। তিনি হলেন মো. দরুদুজ্জামান বিশ্বাস (৫৭)। গোয়েন্দা তথ্য ও আগে আটক হওয়া আসামির দেয়া তথ্যে তাকে আটক করা হয়। তার কাছ থেকে র‌্যাব উদ্ধার করে ১০ লাখ ৩৮ হাজার ভারতীয় জাল রুপি। এখান থেকেও জাল রুপি তৈরি করার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. আনোয়ারুজ্জামান।

একান্ত আলাপে তিনি ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, জাল রুপির কারবারিরা দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে। তাদের প্রতারণার কারণে অনেকে চিকিৎসা বা ভ্রমণে ভারতে গিয়ে এসব জাল রুপি নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়েন। এরা দেশের শত্রু। আমাদের গোয়েন্দারা সব সময় এ বিষয়ে কঠোর নজরদারি বজায় রাখছে। এবার ঈদুল আজহায় র‌্যাবসহ আইন-শৃঙখলা বাহিনীর কঠোর নজরদারির কারণে জাল টাকা বা রুপির কারবারিরা তেমন সুবিধা করতে পারেনি।

জানা গেছে, গোয়েন্দা তথ্য ও প্রযুক্তির সহায়তায় র‌্যাব রিং রোড থেকে জাল রুপির কারিগির শামসুলকে আটক করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শ্যামলী থেকে আটক শামসুল হক জানান, তার গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবপুরে। সে এক সময় সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় গরু এনে গাবতলীর হাটে বিক্রি করতো। এ সময় ভারতীয় জাল রুপি চক্রের সঙ্গে তার সম্পর্ক হয়। সীমান্তে গ্রামের বাড়ি হওয়ায় তার জন্য এ কাজ করতে সুবিধা হয়। এলাকার সবাই জানে তিনি গরুর ব্যবসাই করেন। কিন্তু গরুর ব্যবসা ছেড়ে তিনি গত ৫ বছর ধরে জাল রুপির ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। দেশের বিভিন্ন জায়গায় তার ডিলার রয়েছে। তিনি জাল রুপি তৈরি করার পর এসব ডিলারদের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন এলাকায় কারেন্সিগুলো পাঠান। ভারতেও তার বিভিন্ন স্তরের সহযোগী রয়েছে।

তাদের মাধ্যমে র‌্যাব-২ এর সিনিয়র এএসপি রবিউল ইসলাম জানান, শামসুল হককে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। তার দেয়া তথ্য ও গোয়েন্দা তৎপরতা চালিয়ে রাজশাহীর বোয়ালীয়া থেকে দরুদুজ্জামানকে আটক করা হয়। সেও জাল রূপি তৈরির দক্ষ কারিগর। জিজ্ঞাসাবাদে দরুদুজ্জামান এ বিষয়ে অনেক তথ্য দিয়েছেন।

জাল রূপি নিয়ে বিড়ম্বনার বিষয়ে গৃহবধূ শামীম আক্তার পুতুল ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, তার এক আত্মীয় ভারতে চিকিৎসার জন্য যান এ বছরের জানুয়ারির প্রথম দিকে। ভারতে গিয়ে বাংলাদেশ থেকে নিয়ে যাওয়া রুপি দিয়ে বিল পরিশোধের সময় বিড়ম্বনায় পড়েন তিনি। রুপিগুলো জাল ছিল। পরে চিকিৎসার জন্য যাওয়া অপর এক ব্যক্তির সাহায্যে উদ্ধার পান তিনি।

এর আগে এ বছরের ৮ এপ্রিল তেজগাঁওয়ে ভারতীয় জাল রুপির সন্ধান পাওয়া যায়। ওই দিন বিকেলে অভিযান চালানো হয়। সেখান থেকে জাল রূপি তৈরি করার সরঞ্জামসহ আটক করা হয় জাল রুপি ও কারিগরকে।

এছাড়া গেল আগস্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ অভিযান চালায় র‌্যাব-৫। সহড়াতলা এলাকার থেকে ভারতীয় জাল রুপিসহ ২ জাল মুদ্রা ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। তারা হলেন-শিবগগঞ্জ উপজেলার পৌর এলাকার বাগানটুলির মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মতিউর রহমান (৫৫) এবং তার ছেলে জয় রহমান (২৫)। এ সময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় ৮ লাখ ৬ হাজার ভারতীয় জাল রুপি। রাণীহাটি-সোনামসজিদগামী মহাসড়কের পশ্চিমে সহড়াতলা গ্রামে সাজ্জাদ দারোগার আমবাগানের ভিতর থেকে জালরুপিসহ হাতেনাতে তাদেরকে আটক করা হয়। ওই সময় র‌্যাব সদর দফতরের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক এএসপি মিজানুর রহমান ভুইয়া এ তথ্য জানিয়েছিলেন।

তিনি আরো জানান, তারা দীর্ঘদিন যাবৎ একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ভারতীয় জাল রুপি চোরাচালানের মাধ্যমে সংগ্রহ করে বিক্রি করছে। এসব জাল রুপি অস্ত্র, মাদক ও অন্যান্য চোরাচালান সামগ্রী লেনদেনের জন্য ব্যবহার করা হতো।

এর আগে ২০১৭ সালের ২৯ ডিসেম্বর র‌্যাব-৩ এর হাতে ধরা পড়েন অপর এক নকল টাকার কারিগর। এই জাল টাকার কারিগর হলেন লিয়াকত আলী (৩৫)। ছোটবেলা থেকেই টাকা তৈরির স্বপ্ন দেখতেন বলে তিনি র‌্যাবকে জানান। তবে সে স্বপ্ন নকল টাকা তৈরির স্বপ্ন। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ভারতীয় ১০ লাখ টাকার জাল রুপি। জাল রুপি তৈরির কাজে ব্যবহার করা ল্যাপটপ, মুদ্রা তৈরিতে ব্যবহৃত ছয়টি স্কিন ডাইস, দুটি ডাইস প্লেট, স্ক্যানার প্রিন্টার, জাল রুপির নিরাপত্তা সুতা সাত বান্ডেলসহ রুপি ছাপানোর কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন যন্ত্র।

ওই সময় র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এমরানুল হাসান জানান, ১৯৯৬ সালে ছগির নামে এক জাল টাকা তৈরির ব্যবসায়ীর সঙ্গে পরিচয় হয় লিয়াকতের। পরে ছগিরের সহযোগী হিসেবে কাজ করতে থাকে লিয়াকত। একপর্যায়ে ছগিরের সঙ্গ ছেড়ে ২০০৭ সাল থেকে নিজেই কারিগর বনে যান সে। গড়ে তোলেন জাল টাকা তৈরির এক বিরাট সিন্ডিকেট। লিয়াকত বাংলাদেশি টাকায় সুবিধা করতে না পেরে ভারতীয় টাকা ও মুদ্রা তৈরিতে ঝোঁকেন। এই জাল টাকা তৈরি করে লিয়াকত প্রতি মাসে আয় করতেন প্রায় তিন লাখ টাকা।

তিনি আরো জানান, ১১ ডিসেম্বর লিয়াকতকে কেরাণীগঞ্জের শুভাড্যা উত্তর পাড়া থেকে গ্রেফতার করা হয়। ওই সময় জাহাঙ্গীর আলম (৪০) নামের তার এক সহযোগীকেও গ্রেফতর করা হয়। উদ্ধার করা হয় ১০ লাখ টাকা মূল্যের জাল রুপি। তখন উদ্ধার করা হয় নকল মুদ্রা তৈরির বিপুল সরঞ্জাম। কিন্তু জামিনে বের হয়ে এসেই সে আবারো নামে তার স্বপ্নের ব্যবসায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লিয়াকত জানায়, বাংলাদেশি জাল মুদ্রা বাজারজাত করা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। এ কারণে তিনি ভারতীয় মুদ্রা তৈরি করতেন। এই জাল টাকা তৈরির রঙিন কালি সরবরাহ করতেন গ্রেফতারকৃত তার সহযোগী জাহাঙ্গীর। পরে এসব জাল মুদ্রা স্থানীয় দালালদের মাধ্যমে রাজধানীর বিভিন্ন মানি এক্সচেঞ্জ এর মাধ্যমে বিক্রি করতেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসবি/জেডআর/আরএ/আরআই

আরোও পড়ুন
সর্বাধিক পঠিত
পোশাক শ্রমিকদের ৬ গ্রেডের বেতন বাড়ল
পোশাক শ্রমিকদের ৬ গ্রেডের বেতন বাড়ল
বাংলাদেশের মাঝে এক টুকরো ‌'কাশ্মীর'!
বাংলাদেশের মাঝে এক টুকরো ‌'কাশ্মীর'!
এমপি হচ্ছেন মৌসুমী!
এমপি হচ্ছেন মৌসুমী!
মদের চেয়ে দুধ ক্ষতিকর: মার্কিন পুষ্টিবিদ
মদের চেয়ে দুধ ক্ষতিকর: মার্কিন পুষ্টিবিদ
এই রিকশাচালক ৩৪টি কোম্পানির প্রধান!
এই রিকশাচালক ৩৪টি কোম্পানির প্রধান!
এশিয়ার সেরা ৭ বিশ্ববিদ্যালয়, নেই ঢাবি
এশিয়ার সেরা ৭ বিশ্ববিদ্যালয়, নেই ঢাবি
পাসওয়ার্ড না দেয়ায় স্বামীকে পুড়িয়ে মারল স্ত্রী
পাসওয়ার্ড না দেয়ায় স্বামীকে পুড়িয়ে মারল স্ত্রী
স্ত্রীর ‘বিশেষ’ আবেদনে মলম মাখিয়ে বিপাকে স্বামী!
স্ত্রীর ‘বিশেষ’ আবেদনে মলম মাখিয়ে বিপাকে স্বামী!
ফুলশয্যার রাতে স্ত্রীর কাছে কী চায় স্বামী
ফুলশয্যার রাতে স্ত্রীর কাছে কী চায় স্বামী
শুধুই নারীসঙ্গ পেতে পর্যটকরা যেসব দেশে ভ্রমণ করেন
শুধুই নারীসঙ্গ পেতে পর্যটকরা যেসব দেশে ভ্রমণ করেন
ওটিতে রোগীর সামনেই অন্তরঙ্গে নার্স-চিকিৎসক, ভিডিও ভাইরাল
ওটিতে রোগীর সামনেই অন্তরঙ্গে নার্স-চিকিৎসক, ভিডিও ভাইরাল
শাহনাজের স্কুটি উদ্ধার, হিরো পুলিশ
শাহনাজের স্কুটি উদ্ধার, হিরো পুলিশ
বিয়ের খবর প্রকাশ করলেন সালমা
বিয়ের খবর প্রকাশ করলেন সালমা
গণিতে ভীত ছাত্রী এখন নাসার ইঞ্জিনিয়ার
গণিতে ভীত ছাত্রী এখন নাসার ইঞ্জিনিয়ার
মিলিয়ে দেখুন, ১৮৯৫ ও ২০১৯ এর ক্যালেন্ডার হুবহু
মিলিয়ে দেখুন, ১৮৯৫ ও ২০১৯ এর ক্যালেন্ডার হুবহু
ষাট বছরের বরের সঙ্গে ১৫ বছরের কনে!
ষাট বছরের বরের সঙ্গে ১৫ বছরের কনে!
স্থগিত শনিবারের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন
স্থগিত শনিবারের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন
ইসলাম ধর্মে গোসলের প্রকারভেদ
ইসলাম ধর্মে গোসলের প্রকারভেদ
১৯ জানুয়ারি ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন
১৯ জানুয়ারি ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন
মাঝরাতে সালমানের বাড়ির গেট ভাঙচুর করলেন ‘জাস্টফ্রেন্ড’ জেসিয়া! (ভিডিও)
মাঝরাতে সালমানের বাড়ির গেট ভাঙচুর করলেন ‘জাস্টফ্রেন্ড’ জেসিয়া! (ভিডিও)
শিরোনাম :
বুকের তাজা রক্ত দিয়ে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস প্রতিষ্ঠা করব, বিজয় সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী বুকের তাজা রক্ত দিয়ে জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস প্রতিষ্ঠা করব, বিজয় সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী বিপিএল: টস জিতে চট্টগ্রাম ভাইকিংসকে ব্যাটিংয়ে পাঠালো খুলনা টাইটানস বিপিএল: টস জিতে চট্টগ্রাম ভাইকিংসকে ব্যাটিংয়ে পাঠালো খুলনা টাইটানস