রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জাতিসংঘের সঙ্গে মিয়ানমারের চুক্তি সই
SELECT bn_content_arch.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content_arch INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content_arch.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content_arch.ContentID WHERE bn_content_arch.Deletable=1 AND bn_content_arch.ShowContent=1 AND bn_content_arch.ContentID=40073 LIMIT 1

ঢাকা, রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জাতিসংঘের সঙ্গে মিয়ানমারের চুক্তি সই

 প্রকাশিত: ১৮:৪২ ৬ জুন ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বাংলাদেশের আশ্রয়ে থাকা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়ে মিয়ানমার ও জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর এবং উন্নয়ন কর্মসূচি ইউএনডিপি’র চুক্তিটি সই হয়েছে।

গেলো বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনী অভিযান শুরু করলে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা প্রতিবেশী বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। খবর ইউএনবি, সিএনএনের।

এর আগে গেলো সপ্তাহে মিয়ানমার ও জাতিসংঘ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে কাজ করার ব্যাপারে একমত হয়েছিল।

এর আগে, ১ জুন জাতিসংঘ এক বিবৃতিতে জানায়, রোহিঙ্গাদের আগের বাসস্থানে ফেরাতে ‘স্বেচ্ছা, নিরাপদ, মর্যাদাপূর্ণ ও দীর্ঘমেয়াদী’ পরিবেশ তৈরিতে উভয়পক্ষ একমত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ও জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) সঙ্গে মিয়ানমার এই চুক্তি সই করলো। এই চুক্তি অনুযায়ী রাখাইন রাজ্যে গেলো বছরের আগস্টে সহিংসতা শুরু হওয়ার পর প্রথমবারের মতো ইউএনএইচসিআর ও ইউএনডিপি প্রবেশের অনুমতি পাবে।

মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, হত্যা, নির্যাতন এবং রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্র বলছে, মিয়ানমার সেনাবাহিনী সেখানে জাতিগত শুদ্ধি অভিযান চালাচ্ছে।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য গত নভেম্বরে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সম্মত হয়। কিন্তু রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বলছেন, আন্তর্জাতিক তদারকি ছাড়া তাদের জীবন আবারও সংকটাপন্ন হতে পারে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই