Alexa রোহিঙ্গা তরুণীও ভুলে থাকতে চান সেই নৃশংসতা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৫ ১৪২৬,   ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

রোহিঙ্গা তরুণীও ভুলে থাকতে চান সেই নৃশংসতা

 প্রকাশিত: ২০:৪৫ ২৯ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ২০:৪৫ ২৯ আগস্ট ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মিয়ানমারে সহিংসতায় মাকে হারিয়েছে রোহিঙ্গা যুবতী আনোয়ারা বেগম। সেই ভয়াবহতা এখনো তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে তাকে। তবুও সে ভুলে থাকতে চায় মিয়ানমারের সেই নৃশংসতা। 

এই দৃশ্য ফুটে ওঠেছে কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে। রোহিঙ্গা আগমনের এক বছর উপলক্ষে ছবি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয় ও ইন্টার সেক্টর কো-অর্ডিনেশন গ্রুপ যৌথভাবে রোহিঙ্গা এই আয়োজন কনের। প্রদর্শিত একটি ছবিতে রোহিঙ্গা যুবতী আনোয়ারার এই দৃশ্য দেখা গেছে।

ছবির নিচের বর্ণনা অনুযায়ী ২০১৭ সালের কোরবানির ঈদের কয়েকদিন পর কক্সবাজারের বালুখালী রোহিঙ্গা শিবিরে পৌঁছে। এখন তার ঠাঁই হয়েছে বালুখালী-২ আশ্রয় শিবিরে। এখানে সে নিকটাত্মীয়দের সঙ্গে থাকে।

প্রদর্শনীতে রোহিঙ্গা ঢলের সময়ের বিভিন্ন করুণ দৃশ্যের ছবি স্থান পায়। বাবার হাতে গুলিবিদ্ধ সন্তান, সন্তানের কাঁদে বৃদ্ধ মা, সীমান্তে খাবারের জন্য হাহাকার ইত্যাদি। এই সকল ছবি দর্শণার্থীদের ফিরিয়ে নিয়ে যায় সেই অতীতে। তবে এখন আর সেই দৃশ্য নেই।

প্রদর্শনীতে প্রায় ৭০টি ছবি স্থান পায়। উখিয়া-টেকনাফের আশ্রয় শিবিরে নিরাপদে রোহিঙ্গারা। এখন তারা ভালই আছে। এমন দৃশ্যও প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে।

প্রদর্শনী দেখতে যান দুর্যোগ ব্যবস্থা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। সেখানে উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘের বাংলাদেশস্থ আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সাপ্পোও। এছাড়াও উখিয়া-টেকনাফের সাংসদ আব্দুর রহমান বদি, দুর্যোগ ব্যবস্থা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ফয়জুর রহমান, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. আবুল কালাম প্রদর্শনী দেখতে যান।

এছাড়াও প্রদর্শনী দেখতে যান জাতিসংঘের বিভিন্ন দাতা সংস্থা ও বিদেশি এনজিও সংস্থার উচ্চ পর্যায়ের কর্মকতারা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসকে