Alexa রোলাক কী, কেন খাবেন?

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৮ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

রোলাক কী, কেন খাবেন?

আয়েশা পারভীন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৪৩ ১৬ জুন ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রোলাক এমন একটি ট্যাবলেট, যেটি আমাদের শরীরের কিছু কিছু ব্যথাকে নিমিষেই দূর করে ফেলতে সক্ষম। এটি মূলত ব্যথা, ছানি অস্ত্রোপচারের পর ভিসুয়াল ক্ষতি, ব্যথা এবং চোখের অস্ত্রোপচারের রোগীদের মধ্যে আলোকাতঙ্ক রোগ, চোখ প্রদাহ, সেন্ট্রাল চোখ অক্ষিপট ব্যাধি, অক্ষিপট এর যন্ত্রণাহীন ব্যাধি ছানি নিষ্কাশন সঙ্গে যুক্ত এবং অন্যান্য অবস্থার চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়।

এই ট্যাবলেটের ব্যবহার

  • চিকিৎসায় ব্যবহৃত রোলাক ট্যাবলেট নিম্নলিখিত রোগের উপসর্গ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ করে:
  • পোস্টোপারিটিভ ব্যথা
  • ছানি অস্ত্রোপচারের পর ভিসুয়াল ক্ষতি
  • ব্যথা এবং চোখের অস্ত্রোপচারের রোগীদের মধ্যে আলোকাতঙ্ক রোগ
  • চোখ প্রদাহ
  • সেন্ট্রাল চোখ অক্ষিপট ব্যাধি
  • অক্ষিপট এর যন্ত্রণাহীন ব্যাধি ছানি নিষ্কাশন সঙ্গে যুক্ত প্রভৃতি রোগ নিয়ন্ত্রণে এটি ব্যবহৃত হয়।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

রোলাক ট্যাবলেটের কম্পোজিশনের ফলে সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে। তবে এটি সবসময় নয়। 

  • মাথা ব্যাথা
  • গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল আলসার
  • রক্তপাত
  • ছিদ্র
  • চটকা
  • ফুসকুড়ি
  • রক্তের নিম্নচাপ
  • মনোব্যাধি
  • শুষ্ক মুখ

এর মধ্যে উপরে উল্লেখিত তালিকার বাইরে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেলে অতিসত্বর ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করা ভালো। এছাড়াও আপনি আপনার স্থানীয় খাদ্য ও ড্রাগ প্রশাসন কর্তৃপক্ষকে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ঘটনার কথা রিপোর্ট করতে পারেন।
 
রোলাক কাদের সেবন করা উচিত নয়:

  • ১৮ বছরের নীচে কোন ব্যক্তির 
  • হাইপোভলেমিয়া 
  • এলকোহলিক ব্যক্তি
  • গর্ভবতী
  • নিরূদন
  • বুকের দুধ খাওয়ানো সময়
  • রক্তস্রাব

সাবধানতা

রোলাক কেনার আগে বেশকিছু বিষয় খেয়াল করুন। রেনেটা লিমিটেডের ওষুধ এটি। কেনার আগে যা দেখতে হবে, যারা ফার্মেসিতে কাজ করে, তারা যে কোম্পানীর ঔষধ লিখে, ফার্মেসির কর্তারা সেটা চেঞ্জ করে নাম সর্বস্ব কোম্পানির ঔষধ দেন। যেহেতু সরকার অনুমোদিত আর এমআরপি একই, তাই মানের দিকেও হয়তো উনিশ আর বিশ হবে সেটা ভেবে অনেকেই একাজ করে। কিন্তু রোগী যখন এসে বলে, ওমুক প্রফেসর, তমুক স্যারকে দেখাইছি, কিন্তু রোগই ধরতে পারে না। ওষুধে কোন কাজ করে না, ব্যাথাই কমেনা। তখন দোষটা ডাক্তারের নাকি ওষুধ বিক্রেতার সেটাই আড়াল হয়ে যায়।

ছবিতে খেয়াল করলে বিষয়টি স্পষ্ট হয়, রোলাক(রেনাটা) প্রতি পাতা কেনা ৮৮ টাকা, বিক্রি ১০০ টাকা। আর কেটো রোলাক (ব্রিস্টল ফার্মার) প্রতি পাতা কেনা ৪ টাকা, আর বিক্রি ১০০ টাকা। মনে রাখা জরুরি, ৪ টাকায় যে ঔষধটি বিক্রি করছে দোকানদার, সে কিন্তু লাভ ছাড়া বিক্রি করে নাই। সুতরাং এটা কেমন পেইন কমাবে, সহজেই অনুমেয়। এটা মূলত রোগী ঠকানোর পদ্ধতি। 

তাই রোলাক কেনার আগে প্যাকেটের গায়ে কোম্পানির নাম ভালোভাবে দেখে নিন। তা না হলে প্রতারণার শিকার হবেন আপনিও।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ