রোজাদারের জানা জরুরি (পর্ব-১)

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১১ ১৪২৬,   ২০ শাওয়াল ১৪৪০

রোজাদারের জানা জরুরি (পর্ব-১)

নুসরাত জাহান ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৩৬ ২৪ মে ২০১৯   আপডেট: ১৪:৩৮ ২৪ মে ২০১৯

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

(১) রোজাদার কুলির পর পানি গিলে ফেললে: কুলি করার পর পানির যে আর্দ্রতা মুখের মধ্যে থেকে যায় তা গিলে ফেলার দ্বারা রোজা নষ্ট হয় না।

শর্ত হলো, কুলি করার পর দুয়েকবার মুখের থুথু ফেলে দিতে হবে। কারণ কুলি করার পরও মুখের ভেতর কিছু পানি থেকে যায়। এভাবে থুথু ফেলে দেয়ার পরও মুখে পানি অথবা ভেজা কিছু থেকে গেলে তাতে কোনো ক্ষতি নেই। (সূত্র : ইলমুল ফিকাহ, খণ্ড ৩, পৃষ্ঠা ৩২)

আরো পড়ুন>>> রোজার জানা-অজানা বিষয়

(২) রোজাদার জমাকৃত থুথু ও লালা গিলে ফেললে: রোজা অবস্থায় মুখের জমাকৃত থুথু ও লালা গিলে ফেলার কারণে রোজার কোনো ক্ষতি হয় না। দাঁতের ফাঁকে কোনো খাদ্যদ্রব্য আটকে থাকলে তা যদি খিলাল বা জিহ্বা দিয়ে বের করে ফেলা হয়, তাহলে রোজা নষ্ট হবে না। কিন্তু ওই খাদ্যদ্রব্যের পরিমাণ যদি একটি বুট অথবা এর চেয়ে বেশি পরিমাণের হয়, তাহলে তাতে রোজা ভেঙে যাবে। (সূত্র : কিতাবুল ফিকহি, খণ্ড ১, পৃষ্ঠা ৯২০)

(৩) রোজাদার দাঁতের ফাঁকে গোশত বের করে আবার গিলে ফেললে: দাঁতের ফাঁকে গোশত বা সুপারির অংশ অথবা অন্য কোনো বস্তু আটকে থাকলে খিলাল করার মাধ্যমে তা বের না করে গিলে ফেলল। এ অবস্থায় ওই খাদ্যদ্রব্য যদি একটি চানা বুটের পরিমাণ অথবা এর চেয়ে বেশি পরিমাণের হয়, তাহলে রোজা ভেঙে যাবে। এর কম হলে রোজা ভাঙবে না। তবে তা যদি মুখ থেকে বের করে এনে পরে গিলে ফেলে, তখন এই পরিমাণের চেয়ে খাদ্যদ্রব্য কম হলেও রোজা ভেঙে যাবে। (সূত্র : ফাতাওয়া আলমগিরি, খণ্ড ১, পৃষ্ঠা ২০৮) চলবে...

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে