Alexa রূপগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধ, বাড়ি-ঘরে হামলা

ঢাকা, সোমবার   ২৬ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ১১ ১৪২৬,   ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

রূপগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধ, বাড়ি-ঘরে হামলা

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ২১:২৩ ২৯ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ২১:২৩ ২৯ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ দফায় দফায় হামলা চালিয়ে বাড়ি ঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

রোববার ও সোমবার রাতে উপজেলার ভোলাব ইউপির টাওরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলায় কমপক্ষে ১৮ জন আহত হয়েছে।

কয়েক মাস আগে টাওরা বন্দের বাড়ি এলাকার মোকছেদ আলীর ছেলে গিয়াসউদ্দিন তার ভগ্নিপতি আব্দুল বারেককে ভোলাব এলাকায় ১৩শতাংশ জমি ক্রয় করে দেয় বাড়ি তৈরি করা জন্য। কিন্তু সেই ক্রয়কৃত জমি পার্শ্ববর্তী পলাশ থানাধীন ডাঙ্গা ইউপির দক্ষিণ হাসানহাটা এলাকার লালু কসাইয়ের ছেলে দেলোয়ার হোসেন ও জাইদুল  আগেই বায়না বাবদ ২লাখ টাকা দিয়েছে বলে দাবি করেন।

এ নিয়ে রোববার দুপুরে ডাংগা বাজারে গিয়াসউদিনের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকটি হয়। এর জেরে রাতে ৭টার দিকে দেলোয়ার হোসেন ও জাইদুল হোসেন ২০-২৫ জন দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে টাওরা বন্দের বাড়ি এলাকায় গিয়াসউদ্দিনের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। হামলাকারীরা গিয়াসউদ্দিনের ভাতিজা মোস্তফা, ছোট ভাই আজিজুল, ভাতিজী মুন্নী,  তাছলিমা, গাফ্ফার হোসেনসহ ৮ জনকে পিটিয়ে আহত করে।

এ ঘটনায় সোমবার সকালে  রূপগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের  করেন গিয়াসউদ্দিন। অভিযোগের ভিত্তিতে রূপগঞ্জ থানা  পুলিশ ঘটনার তদন্ত করেন। এদিকে, থানায় অভিযোগ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে জাইদুল ও দেলোয়ার হোসেন তার লোকজন নিয়ে সোমবার রাত ৯টার দিকে টাওরা বন্দের বাড়ি এলাকায় অর্তকিত হামলা চালায়। হামলাকারী খোরশেদ, দেলোয়ার মিয়া, বারেক, শাহীনের ৭টি বসত ঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে। বাধা দেয়ায় হামলাকারীরা সোহেল, কাউসার, মোমেন, জহিরুলসহ ১০জনকে পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল হক বলেন, হামলার ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তাছাড়া এক পক্ষ পলাশ থানাধীন আরেক পক্ষ রূপগঞ্জ থানাধীন এলাকার। এজন্য আমি পলাশ থানা পুলিশের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি।  এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ                                                            

Best Electronics
Best Electronics