রিপোর্টে ধরা পড়ল শিশু অন্তঃসত্ত্বা

ঢাকা, শনিবার   ২৫ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৬,   ১৯ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

রিপোর্টে ধরা পড়ল শিশু অন্তঃসত্ত্বা

মিরপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:০৭ ১ এপ্রিল ২০১৯   আপডেট: ১৯:৪৫ ১ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

হঠাৎ করে কিছুদিন যাবত বার বছরের মেয়ের পেট মোটা দেখে মা ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। ডাক্তার আলট্রাসনো করতে বলেন। কুষ্টিয়ার মিরপুর সাদ আলী ডায়াগনস্টিক সেন্টারে আলট্রাসনোগ্রাম করানো হলে রিপোর্টে ধরা পড়ে মেয়ে ২৩ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা। পরে মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলে সে তার মাকে জানায় ওসমান ওরফে হামা নামে প্রতিবেশী নানা তার সঙ্গে জোর করে খারাপ কাজ করেন।  

এমনি এক ঘটনা ঘটেছে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার খন্দকবাড়িয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পে। এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর মা বাদী হয়ে সোমবার দুপুরে মিরপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

স্কুল ছাত্রীর মা বলেন, মেয়ের পেট মোটা হয়ে যাচ্ছে দেখে প্রথমে সন্দেহ করি কিডনির সমস্যা। রোববার চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাই। কিন্তু ডাক্তার জানালেন মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা। পরে মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলে সব ঘটনা আমাকে খুলে বলে। আমরা অনেক গরিব মানুষ। শোনার পর কি করবো কিছু বুঝতে পারছি না। মানুষ রুপী ওই পিশাচের শাস্তি চাই। 

মিরপুর সাদ আলী ডায়াগনষ্টিক সেন্টার প্রাইভেট হাসপাতালের সনোলজিস্ট মজিবুর রহমান বলেন, মেয়েটি তার মা’র সঙ্গে পরীক্ষা করার জন্য এসেছিল। পরীক্ষা করে দেখি মেয়েটি ২৩ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা। 

পারিবারিক ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মেয়েটি মিরপুর মডেল পাইলট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী। সে তার পরিবারের সঙ্গে উপজেলার খন্দকবাড়িয়া আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ তে বসবাস করেন। বেশ কিছুদিন আগে মেয়েটির মা বাড়িতে ছিল না। একা থাকায় সুযোগ নিয়ে পানি পানের কথা বলে বাড়িতে ঢুকে একই আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা সম্পর্কে প্রতিবেশী নানা ওসমান ওরফে হামা জোর করে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। এই কথা কাউকে বললে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। ফলে মেয়েটি ভয়ে কাউকে কিছু জানায়নি।

এদিকে খন্দকবাড়িয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পে ওসমান এর সন্ধানে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দুই সন্তানের জনক ওসমান মাছ ব্যবসায়ী। এ খবর জানাজানি হওয়ার পর সে গা ঢাকা দিয়েছে। লম্পট ওসমান ওরফে হামার বাড়ি নওগাঁয়।

মিরপুর থানার ওসি আবুল কালাম বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। মেয়ের মা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত ওসমান গা ঢাকা দিয়েছে। তাকে আটক করতে  অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

ডেইরি বাংলাদেশ/এমকে
 

Best Electronics