রায় যাই হোক, কর্মসূচি হবে ‘শান্তিপূর্ণ’: বিএনপি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৭ ১৪২৬,   ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

২১ আগস্ট হামলা মামলা

রায় যাই হোক, কর্মসূচি হবে ‘শান্তিপূর্ণ’: বিএনপি

 প্রকাশিত: ২০:৩৯ ৯ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ২০:৪৩ ৯ অক্টোবর ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বহুল আলোচিত ও চর্চিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় ‘সরকারের ‘ফরমায়েশি’ রায় বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে’ বলে দাবি করেছেন করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। তবে রায় যাই হোক বিএনপি ‘শান্তিপূর্ণ’ কর্মসূচি দেবে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২১ আগস্ট বোমা হামলা মামলার রায় নিয়ে প্রহসনের মঞ্চে পর্দা ওঠার পর কী দৃশ্যমান হবে তা নিয়ে চারিদিকে সংশয় দেখা দিয়েছে। সরকারের নির্দেশিত ফরমায়েশি রায় বাস্তবায়নের জন্যই নানা কিছু করা হচ্ছে। যেমন প্রধান বিচারপতিকে বন্দুকের জোরে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। গতকাল আমরা দেখলাম- সর্বোচ্চ আদালতে ১৩ বছরের সাজাপ্রাপ্ত একজন মন্ত্রীকে হাইকোর্ট খালাস দিয়েছে। এই খালাস কার নির্দেশে হয়েছে সেটির জন্য বেশি লেখাপড়ার প্রয়োজন পড়ে না। সাধারণ জনগণও তা বুঝে নিয়েছে।

রিজভী আরো বলেন, আগামীকাল ২১ আগস্ট বোমা হামলা মামলার রায়ও সরকারের ইচ্ছার বাইরে হতে পারবে কিনা তা নিয়েও জনগণের মধ্যে সন্দেহ রয়েছে। নিম্ন আদালতের বিচারকদের ওপর প্রতিনিয়ত চাপের কারণে মানুষ এখন ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির এই সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, দেখি কি রায় হয়। যে রায়ই হোক না কেন বিএনপি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দেবে।

সাংবাদিকদের কাছে দলের অবস্থান তুলে ধরে তিনি আরো বলেন, বিএনপি গণতন্ত্রে অঙ্গীকারাবদ্ধ একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল। বিএনপি বরাবরই জনগণের শক্তিকে অবলম্বন করে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করেছে। আপনাদের মাধ্যমে দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে আগামী যেকোনো কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালন করার জন্য আহবান জানাচ্ছি। সরকারের কোনো উস্কানিতে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আমি নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

রিজভী বলেন, অতীতের মতো বর্তমান অবৈধ সরকার নানাভাবে নিজেরাই নাশকতার সৃষ্টি করে ‘উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে’ চাপানোর মতো পরিকল্পনা করে তা বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর দায় চাপাতে পারে। এজন্য আমি নেতাকর্মীদেরকে সতর্ক থেকে দলীয় কর্মসূচি সাফল্যমণ্ডিত করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

‘গায়েবী’ মামলায় সারা দেশ ভাসিয়ে দিয়ে গ্রেফতারের ধুম শুরু করেছে ক্ষমতাসীনরা- এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, পূর্বের বিচ্ছিন্ন ধারার হামলা, মামলা এখন নিরবচ্ছিন্ন ধারায় পরিণত হয়েছে। টার্গেট বিএনপি, বিএনপিকে ধ্বংস করতে না পারা পর্যন্ত বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর ঘুম হারাম হয়ে গেছে। তাই ক্ষমতায় থেকে তিনি যা করছেন তা সবই চক্রান্তমূলক। এই চক্রান্ত গণতন্ত্র, বাক-স্বাধীনতা, নাগরিক স্বাধীনতা, বিবেক, মুক্তচিন্তার বিরুদ্ধে। এই চক্রান্ত বিএনপিসহ বিরোধী দল ও মতের বিরুদ্ধে।

গত ৭ অক্টোবর বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এর গ্রামের বাড়িতে তল্লাশির নামে পুলিশ তাণ্ডব চালিয়েছে অভিযোগ করে রিজভী বলেন, পুলিশের এই ন্যাক্কারজনক আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

এছাড়া দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব মিথ্যা মামলায় হাজিরা দিতে গেলে তার জামিন বাতিল করে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ সময় তিনি বিভিন্ন জেলা-উপজেলার নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের বিস্তারিত চিত্র তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবীবুর রহমান হাবীব, যুগ্ম-মহাসচিব মজিবুর রহমান সরোয়ার, শিশুবিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহম্মেদ, মুহাম্মদ মুনির হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই