রামেন্দু ও ফেরদৌসী মজুমদার দম্পতি করোনায় আক্রান্ত

ঢাকা, শুক্রবার   ০২ অক্টোবর ২০২০,   আশ্বিন ১৭ ১৪২৭,   ১৪ সফর ১৪৪২

রামেন্দু ও ফেরদৌসী মজুমদার দম্পতি করোনায় আক্রান্ত

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৩৪ ৭ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৮:২৯ ৭ আগস্ট ২০২০

রামেন্দু মজুমদার ও তার স্ত্রী অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার

রামেন্দু মজুমদার ও তার স্ত্রী অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার

করোনাভাইরানে আক্রান্ত নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার ও তার স্ত্রী অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার। রামেন্দু মজুমদার নিজেই গণমাধ্যমকে স্ত্রীসহ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বর্তমানে তারা নিজ বাসাতেই আইসোলেশনে রয়েছেন বলে জানান তিনি। 

রামেন্দু মজুমদার জানান, ফেরদৌসী মজুমদারের মধ্যে করোনা উপসর্গ দেখা দিলে ১৮ জুলাই টেস্ট করানো হলে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তখন থেকেই তিনি আইসোলেশনে ছিলেন।

তিনি আরো বলেন, ফেরদৌসীর করোনা ধরা পড়ার এক সপ্তাহ পর আমারো জ্বর অনুভব হয়। তখন আমিও টেস্ট করাই। আমারো পজিটিভ রেজাল্ট আসে। 

বর্তমানে দুজনই সুস্থ আছেন উল্লেখ করে রামেন্দ্র মজুমদার বলেন, এখন করোনার উপসর্গ দেখা যাচ্ছে না। আমরা দুজনই সুস্থ আছি। স্বাভাবিক খাবার খাচ্ছি, ফেরদৌসী নিজেই রান্না করছে। আমিও ঘরে আছি, সবকিছুই স্বাভাবিক আছে। দু-তিন দিনের মধ্যে আবার টেস্ট করাব। আশা করছি, করোনা নেগেটিভ আসবে।

রামেন্দু মজুমদারের জন্ম ১৯৪১ সালের ৯ আগস্ট লক্ষ্মীপুরে। তার পিতা কুন্তল কৃষ্ণ মজুমদার ও মাতা লীলা মজুমদার। তিনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে বিএ (অনার্স) ও এমএ পাস করেন। ১৯৫৮ সাল থেকে তিনি মঞ্চে নিয়মিত অভিনয় ও নির্দেশনার কাজ শুরু করেন। ১৯৬১ সালে বেতারে ও ৬৫ সালে টেলিভিশনে নাট্যশিল্পী হিসেবে যুক্ত হন। মঞ্চে অভিনয় করছেন ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে। দীর্ঘকাল তিনি সংবাদ উপস্থাপনায় করেছেন।

তিনি একাধারে অভিনেতা, মঞ্চ নির্দেশক, নির্মাতা। মঞ্চের পাশাপাশি তিনি টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। রামেন্দ্র মজুমদার ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউটের (আইটিআই) সভাপতি। শিল্পকলায় অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০০৯ সালে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।

অন্যদিকে, ফেরদৌসী মজুমদারের জন্ম বরিশালে হলেও তিনি বেড়ে উঠেছেন ঢাকাতে। ইডেন কলেজে ইন্টারমিডিয়েট পড়ার সময় তিনি তার বড় ভাই মুনীর চৌধুরী থেকে প্রস্তাব পান নাটকে অভিনয় করার, যার নাম ছিল ‘ডাক্তার আবদুল্লাহর কারখানা’। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর তিনি পাবলিক লাইব্রেরিতে ‘দন্ড ও দন্ডধর’ নাটকে অভিনয় করেন। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একটা নাটকের ফোরামে তিনি জড়িয়ে পড়েন। ১৯৭০ সালের ১৩ই জুন রামেন্দু মজুমদারকে বিয়ে করেন।

স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে ‘থিয়েটার’ গঠন করা হয়, যেখানে ছিল আবদুল্লাহ আল মামুন, রামেন্দু মজুমদার প্রমুখ। ফেরদৌসী মজুমদার সেই দলে যোগ দেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনের তিনি প্রায় তিনশ’র মতো নাটক করেন। এছাড়া মঞ্চ ও সিনেমায় অভিনয় করেছেন। ফেরদৌসী মজুমদারও একুশে পদক ও স্বাধীনতা পুরস্কার পেয়েছেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস/এনএ