Alexa রামসাগর উদ্যানের কাঠ উদ্ধোরে তদন্ত কমিটি

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৮ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

রামসাগর উদ্যানের কাঠ উদ্ধোরে তদন্ত কমিটি

দিনাজপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৮ ১৬ জুন ২০১৯  

দিনাজপুরের রামসাগর জাতীয় উদ্যান থেকে রাতের অন্ধকারে বনবিভাগের গাড়িতে কাঠ পাচারকালে স্থানীয় এলাকাবাসী গাড়িসহ কাঠ আটক পুলিশে সোর্পদ করা হলেও মামলা হয়নি।

রোববার জাতীয় উদ্যানের গাছ চুরির ঘটনায় এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে গাছ চুরির ঘটনায় পূর্নাঙ্গ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

রাম সাগার জাতীয় উদ্যোনের চুরি হওয়া গাছ আটকের পর দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় সরকারি গাড়িসহ আটক রাখা হয়েছে। পুলিশ বলছে বন বিভাগের কর্মকর্তারা নিজস্ব ভাবে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে তাই এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি ।  

রামসাগর জাতীয় উদ্যোনের সহকারী তত্ত্বাবধায়ক ফসিউর রহমান জানান, রামসাগরের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুস সালাম তুহিন মোবাইল ফোনে আমাকে নিদের্শ প্রদান করেন রামসাগর এলাকায় গচ্ছিত মিনজিরি ও ইপিলিট্যাস গাছের কাণ্ড গাড়িতে উঠিয়ে দেয়ার জন্য নিদের্শ দেন। আমি উনার সহকারী হিসবে উনার নির্দেশ মোতাবেক গাছের কাণ্ডগুলি উঠিয়ে দেই।  

রামসাগর বাজারের ডা. রিয়াজুল ইসলাম বলেন, রক্ষক যখন নিজেই ভক্ষকের দায়িত্ব দালন করে । সেই ক্ষেত্রে একালাবাসী হিসাবে এই সামান্য দায়িত্ব পালন করেছি মাত্র। রাম সাগরের দামি দামি গাছ দীর্ঘ ধরেই তত্ত্বাবধায়ক তুহিন রাতের অন্ধাকারে বিক্রি করে আসছে। তার এই গাছ চুরির সাথে রাম সাগর উদ্যোনের বেশ কয়েকজন কর্মচারী  জড়িত ।

এলাকাবাসী মামুনূর রশিদ মামুন বলেন, রামসাগর জাতীয় উদ্যানের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুস সালাম তুহিন নিজ গৃহের আসবাবপত্র তৈরি করতে তার বাসায় নিয়ে যাচ্ছিলো এই কাঠ। রামসাগর বাজারের অনেকেরই অভিযোগ ‘বিভিন্ন সময় আব্দুস সালাম তুহিন এখান থেকে কাঠ নিয়ে গেছেন। শনিবার রাতে যখন গাড়িতে করে কাঠ নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো তখন আমাদের সন্দেহ হয়। গাড়ির ড্রাইভারকে জিজ্ঞাসা করলে তার কাছে কোন সঠিক জবাব না পেয়ে আমরা গাড়ি আটক করে পুলিশকে এবং বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আব্দুর রহমানকে বিষয়টি ফোনে অবগত করি।

অভিযুক্ত রামসাগরের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুস সালাম তুহিন বলেন, দিনকয়েক পূর্বে ঝড়ে এই মিনজিরী গাছগুলো ভেঙে চলাচলের রাস্তায় পড়েছিলো। সেই ঝড়ে ভেঙে পড়া গাছগুলো হেড অফিসে আনা হচ্ছিলো। এলাকাবাসীর চাপে গাড়ির ড্রাইভার কাঠগুলো ছ’মিলে আনার কথা বলেছে। প্রকৃতপক্ষে আমি তাকে কাঠগুলো দিনাজপুর হেড অফিসে নিয়ে যেতে বলেছি।
    
এদিকে বনবিভাগের কর্মকর্তা মো. আব্দুর রহমান বলেন, সহকারী বন কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমানকে ঘটনাস্থলে যাবার নির্দেশ প্রদান করি। পরে নিজেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঝড়ে ভেঙে যাওয়া গাছের টুকরা উদ্ধার করে গাড়িসহ কতোয়ালী থানার এসআই বাবুল আক্তারের কাছে হস্তান্তর করি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম