রাবিতে ছাত্রলীগ নেতার শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

ঢাকা, সোমবার   ২০ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৬,   ১৪ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

রাবিতে ছাত্রলীগ নেতার শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

রাবি প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৯:২০ ২ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৯:২০ ২ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রোববার দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) দৈনিক খোলা কাগজের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি আলী ইউনুস হৃদয়ের ওপর হামলাকারীর বিচারের দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে।  

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবরুল জামিল সুস্ময়ের বহিস্কারের দাবিতে এ মানববন্ধনে অংশগ্রহন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

এতে ছাত্রলীগের সকল ধরনের ইতিবাচক সংবাদ বর্জনের ঘোষণা দেন সাংবাদিকরা। একই সাথে প্রক্টরের পদত্যাগও দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি শিহাবুল ইসলাম বলেন, হামলার ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত দোষী ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ও সাংগঠনিক কোনো ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টর। কিন্তু তারা সাংবাদিকের ওপর হামলা ঠেকাতে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। প্রক্টরের দ্রুত পদত্যাগ চাই।   

রাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সিরাজুচ সালেকিন বলেন,  আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে ছাত্রলীগ বারবার এ ধরনের হামলা চালাচ্ছে। এসময়   তিনি ছাত্রলীগের সকল ধরণের ইতিবাচক নিউজ বর্জনের ঘোষণা দেন।

রাবি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মানিক রাইহান বাপ্পির সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, রাবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জাহিদ, রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মর্তুজা নুর, প্রচার সম্পাদক আহমেদ ফরিদ, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মোল্লা মোহাম্মদ সাইদ, ছাত্র ইউনিয়নের সদস্য শাকিলা খাতুন।

এদিকে আলী ইউনুস হৃদয়ের ওপর হামলাকারী রাবি ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবরুল জামিল সুষ্ময়ের বহিস্কারের দাবিতে উপচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগী।

রোববার উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ এবং এর অনুলিপি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার, প্রক্টর, ছাত্র উপদেষ্টা ও জনসংযোগ দপ্তর বরাবর দেয়া হয়। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর।

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, অভিযোগপত্র হাতে পেয়েছি। উপাচার্য মহাদয়ের সঙ্গে কথা বলে তদন্ত সাপেক্ষে অতি দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ

 

 

 

Best Electronics