.ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৪ ১৪২৫,   ১২ রজব ১৪৪০

রাবিতে ছাত্রলীগের হামলা

রাবি প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ২১:৫৮ ১ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ২১:৫৮ ১ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ‘দহন’সিনেমার প্রদশর্নী বন্ধের দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রজোটের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। এসময় কর্তব্যরত সাংবাদিককেও মারধর করে ছাত্রলীগের এক নেতা। এ ঘটনায় অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে।

শনিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এতে ‘দৈনিক খোলা কাগজ’র রাবি প্রতিনিধি ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক আলী ইউনুস হৃদয়, প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমন্বয়ক মহব্বত হোসেন মিলন, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এ.এম. শাকিল হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মিঠুন চন্দ্র মহন্ত, ছাত্র ফেডারেশনের প্রচার সম্পাদক ইসরাফিল আলম, কর্মী রাশেদ রিমন, আশরাফুল আলম আহত হন।

আহত অবস্থায় সাংবাদিক আলী ইউনুস হৃদয়কে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

আন্দোলনকারীদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরের মদদেই এ হামলা চালানো হয়েছে। তবে অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেন প্রক্টর।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও আন্দোলনকারী ইসরাফিল আলম বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন চালাচ্ছিলাম। প্রক্টর স্যার এসে আমাদের আন্দোলন বন্ধ করতে বলেন। আমরা বন্ধ না করলে হঠাৎ করেই ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা আমাদের ওপর হামলা চালায়।

বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম রেজা শাকিলকে মারধর করেছে বলে দাবি করেন শাকিল।

মারধরের শিকার বিশ্ববিদ্যালয়ের রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক খোলা কাগজ-এর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি আলী ইউনুস হৃদয় বলেন, আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালালে মারধরের হাত থেকে বাঁচতে আন্দোলনকারী একজন আমার পিছনে অবস্থান নেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবিরুল জামিল সুস্ময় আমার কোমরে সজোরে লাথি মারে।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, আমরা ওখানে গিয়ে দেখি একটা ঝামেলা হয়েছে। এসময় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগেরও বাকবিতন্ডা হয়। শুনছি একজন সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করার ঘটনাও নাকি ঘটেছে। যদি সত্যি এ ঘটনা ঘটে থাকে, আমরা সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেব।

উল্লেখ্য, ‘দহন’ সিনেমাটি প্রদর্শনীর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছ থেকে কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনটি ভাড়া নিয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ১-৬ ডিসেম্বর সিনেমাটি প্রদর্শিত হবে বলে ফেসবুক পেইজে জানিয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। বিষয়টি জানার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা এর প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ