Alexa রাজবাড়ীতে ৪১ ডেঙ্গু রোগী

ঢাকা, বুধবার   ২১ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৬ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

রাজবাড়ীতে ৪১ ডেঙ্গু রোগী

রাজবাড়ী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৫৫ ২ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১৯:০২ ২ আগস্ট ২০১৯

ডেইলি বাংলাদেশ

ডেইলি বাংলাদেশ

রাজবাড়ীতে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত ৪১ জন শনাক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে ১৬ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন মাহজুফুর রহমান বলেন, রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ১২ জন, বালিয়াকান্দিতে ২ জন, গোয়ালন্দ উপজেলায় ১ জন ও পাংশা উপজেলায় ১ জন চিকিৎসাধীন আছে। সদর হাসপাতালে ডেঙ্গুর পরীক্ষা করা যাচ্ছে। শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত মোট ৪১ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। যে পরিমাণ কিট দেয়া হয়েছে তা প্রয়োজনের তুলনায় একেবারেই কম।

সরেজমিনে শুক্রবার বিকেলে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের জন্য একটি কর্নার করা হয়েছে। রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১২ জনের মধ্যে থেকে ১ জন রাজবাড়ী থেকেই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে।

রাজবাড়ী থেকে আক্রান্ত ব্যক্তির নাম রফিক মণ্ডল। তিনি রাজবাড়ী সদর উপজেলার শহীদ ওহাবপুর ইউনিয়নের ধুলদীজয়পুর গ্রামের বাসিন্দা। পেশায় ব্যবসায়ী। তিনি রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের ডেঙ্গু কর্নারে চিকিৎসাধীন আছেন।

রফিকের বোন রেজিয়া বেগম বলেন, আমার ভাই প্লাস্টিকের বিভিন্ন মালামাল ফেরি করে স্থানীয়ভাবে বিক্রি করে। সে কখনো ঢাকা যায়নি। চারদিন আগে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে। দুইদিন ধরে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি বালিয়াকান্দি উপজেলার অভয়নগর গ্রামের বাসিন্দা শাহিন মিয়া বলেন, আমি কোচিং করার জন্য ঢাকার মৌচাকে ছিলাম। সেখান থেকে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছি। ছয়দিন আগে বাড়িতে এসেছি। এরপর পরীক্ষা করে ডেঙ্গুর জীবাণু ধরা পড়ায় চারদিন ধরে চিকিৎসাধীন আছি। আমার পাশের ছিটে সাগর নামে একজন আটদিন ধরে চিকিৎসাধীন ছিলেন। আজ তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

রাজবাড়ী পৌর মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী বলেন, ওষুধ ছিটাচ্ছি ও এলাকা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছি। শুক্রবার সকালে শহরের ৭ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার নতুন বাজার ও জেলা কারাগারে ওষুধ ছিটানো হয়েছে। পৌরসভার মধ্যে এখন পর্যন্ত কেউ ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। যারা আক্রান্ত হয়েছে সবাই ঢাকা থেকে এসেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

Best Electronics
Best Electronics