Exim Bank
ঢাকা, বুধবার ২০ জুন, ২০১৮
Advertisement

রাজবাড়ীতে বেড়েই চলেছে ইট ভাটা

 রাজবাড়ী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:১৭, ১৩ মার্চ ২০১৮

১৫৬ বার পঠিত

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রাজবাড়ীতে দিনদিন ফসলের জমি নষ্ট করে তৈরি করা হচ্ছে ইট ভাটা। এতে করে কমে যাচ্ছে আবাদযোগ্য জমি। গত এক বছরে রাজবাড়ী জেলায় নতুন ভাটা তৈরি হয়েছে ১৮ টি সব মিলিয়ে ভাটা রয়েছে ৮০ টি। এ সব ইট ভাটার বেশির ভাগেরই নেই কাগজপত্র।

পরিবেশ অধিদপ্তর ফরিদপুর আঞ্চলিক কার্যালয়ের দেওয়া তথ্য মতে- রাজবাড়ীতে মোট ইটভাটা আছে কমপক্ষে ১৫০ টি। এর মধ্যে পরিচালিত হচ্ছে ৫৯ টি। অবৈধ ফিক্সড চিমনি ব্যবহার করছে ২৭ টি।

এসআইবি ব্রিকসের ব্যবস্থাপক আবদুল মান্নান বলেন, প্রতিদিন তাঁদের ভাটায় প্রায় পাঁচ টন কয়লা লাগে। কয়লার ওপর চাপ কমাতে কাঠ ব্যবহার করেন তাঁরা। ভাটায় কাঠ পোড়ানোর নিয়ম নেই এ কথা স্মরণ করিয়ে দিলে তিনি বলেন, অনেক সময় রাস্তার আশপাশের অনেক মরা গাছ লোকজন বিক্রি করে দেন। সাধারণত তাঁরা সেগুলো কেনেন।

পরিবেশ অধিদপ্তরের ফরিদপুর আঞ্চলিক কার্যালয়ের অতিরিক্ত উপ পরিচালক মো. আবু সাইদ বলেন, ‘ইটভাটায় কাঠ পোড়ানোর নিয়ম নেই। প্রতিবছর আমরা সব ইটভাটার মালিককে নোটিশ দিয়ে কাঠ পোড়াতে নিষেধ করছি। অবৈধভাবে কিছু প্রভাবশালী নতুন নতুন ভাটা তৈরি করছেন বলে স্বীকার করেন তিনি।

ফসলী জমিতে ইট ভাটা স্থাপন ব্যপারে রাজবাড়ী সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন জানান, ইট ভাটা তৈরিতে ভাটা মালিকদের কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর থেকে একটি প্রত্যায়ন পত্র নিতে হয়। নিয়ম হচ্ছে অনাবাদি জমিতে ইট ভাটা প্রস্তুত করা যাবে কিন্তু সেই নিয়ম না মেনে ইট ভাটা তৈরি করে কাজ শুরু হওয়ার পর আসে প্রত্যায়ন নিতে তখন আমরা গিয়ে দেখি ওই জমি আর আবাদযোগ্য নেই তখন প্রত্যায়ন দিতে হয়।

রাজবাড়ী ডিসি মো. শওকত আলী বলেন, বর্তমানে ৮০ টি ইট ভাটা রয়েছে। ১৫ টির কাগজপত্র বৈধ আর ৩১ টির হাইকোর্ট থেকে স্টে অর্ডার নিয়ে এসেছে বাকি ৩৪ টির কোন কাগজপত্র পরিবেশ অধিদপ্তরের ছারপত্র কিছুই নেই। নিয়ম না মানায় ইটভাটাগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। গত মাসে জেলায় ৯ টি ইট ভাটায় অভিযান পরিচালনা করে ১২ টি মামলা করা হয়েছে সেই সাথে সাড়ে চার লক্ষ টাকা জরিমানা করা হচ্ছে। এই অভিযান আগামীতেও অব্যহত থাকবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম/আরআর

সর্বাধিক পঠিত