.ঢাকা, বুধবার   ২০ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৫ ১৪২৫,   ১৩ রজব ১৪৪০

যে ফলগুলো খেলে পেটে গ্যাস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে

মেহেদী হাসান শান্ত

 প্রকাশিত: ১৫:০১ ৮ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ১৫:০১ ৮ আগস্ট ২০১৮

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

আজ যে ফলগুলোর কথা বলব সেগুলোকে আমরা সাধারণত স্বাস্থ্যকর হিসেবেই জানি। অথচ এই ফলগুলো খেলে আপনার পেট গ্যাসে ফুলে ফেঁপে উঠতেও সময় নেয় না। 

তরমুজ 

গ্রীষ্মের দাবদাহে তরমুজ যেন একটি স্বস্তির নাম । শরীরকে জুড়িয়ে নিতে তরমুজের যেমন জুড়ি নেই, তেমনি পেটে গ্যাস তৈরি করে পাকস্থলী ফাঁপিয়ে দিতেও এটি তুলনাহীন। তরমুজ ফ্রুক্টোজ নামক এক ধরণের শর্করায় পূর্ণ থাকে যা আমাদের পেটে গিয়ে আংশিক পরিপাক হয় ও বাকিটা গ্যাস সৃষ্টির জন্য দায়ী থাকে। বিশেষজ্ঞদের মতে প্রতি তিন জনে এক জন মানুষ ফ্রুক্টোজ শোষণে অক্ষম হন।

জাম 

জনপ্রিয় এই গ্রীষ্মকালীন ফলটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ। কিন্তু এতে চিনির বিকল্প হিসেবে থাকে পলিওলস। পেটে ব্যাথার জন্য অনেকাংশেই দায়ী থাকে এই পলিওলস। পলিওলস আমাদের পরিপাকতন্ত্রে অনেক সময় যাবত ঘুরে বেড়ায় এবং পুরোপুরি শোষিত হয় না। এর ফলে পেটে গ্যাস সৃষ্টি হয় এবং পেট ফেঁপে উঠতে পারে। 

আম 

আমে গ্লুকোজের থেকেও ফ্রুক্টোজের পরিমাণ বেশি থাকে। এই অসামাঞ্জাস্যের ফলে দেহ ফ্রুক্টোজ শোষণে আরো অপারগ হয়ে পড়ে। এর জন্য পেটে তৈরি হতে পারে গ্যাস। 

আপেল 

যাদের দেহে ফ্রুক্টোজ বিপাকে অসুবিধা আছে তাদের জন্য তরমুজ ও আমের মতো আপেলও হতে পারে গ্যাস ও পেট ফাঁপা সমস্যার কারণ ! আরেকটা কথা ফ্রুক্টোজ শোষণ সঠিকভাবে না হলে হতে পারে পেট খারাপ বা ডায়রিয়ার মতো রোগও ! 


পেঁয়াজ 

এর আগে আলোচিত ফলগুলোর মতো পেঁয়াজেও রয়েছে ফ্রুক্টোজ নামক প্রাকৃতিক শর্করা। মানুষের অন্ত্রে অবস্থানকারী ব্যাকটেরিয়া এ ফ্রুক্টোজকে ছড়িয়ে দেয় পরিপাকতন্ত্রের সব জায়গায়। পেঁয়াজ হলো উচ্চ 'ফুডম্যাপ' খাবারের অন্তর্গত; যার মানে এতে এমন কিছু শর্করা রয়েছে যা বিভিন্ন গ্যাস্ট্রো-ইন্টেস্টাইনাল সমস্যা যেমন- পেট ফাঁপার জন্য দায়ী।


ঘ্রাণযুক্ত সবজি 

পেঁয়াজকলি, রসুনের মতো ঘ্রাণযুক্ত সবজিতে প্রচুর পরিমাণে ফ্রুক্টান থাকে। ফ্রুক্টান এমন এক ধরণের আঁশ, যেটি মূলত ফ্রুক্টোজ অণু দিয়ে গঠিত। মানুষের দেহে ফ্রুক্টান ভাঙ্গার জন্য প্রয়োজনীয় এনজাইমের অভাব রয়েছে। সুতরাং প্রকৃতিগত ভাবেই আমাদের ফ্রুক্টান হজমের ক্ষমতা স্বল্প। এ কারণে পেটে তৈরি হয় গ্যাস। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই