Alexa যে কারণে হাজার বছর ধরে চলছে প্রেম দেবতার পূজা!

ঢাকা, শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬,   ০৪ রজব ১৪৪১

Akash

যে কারণে হাজার বছর ধরে চলছে প্রেম দেবতার পূজা!

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২১ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

প্রতিটি মানুষের জীবনেই কোনো না কোনো সময় প্রেম এসে হানা দেয়। ভালোবাসা ছাড়া কখনোই জীবনে সুখী হওয়া যায় না। তবে আগের মতো এখন আর সঙ্গী খুঁজতে এত কষ্ট হয় না।

কারণটি হচ্ছে, এখন প্রেম কিংবা রোমাঞ্চের জন্য অনলাইনে সঙ্গী খোঁজার চল শুরু হয়েছে। মোবাইল ফোনে বন্ধু খোঁজা এখনতো পুরান হতে চলেছে। তবে মজার কথা হলো, হাজার বছর আগে থেকেই তাইওয়ানে সঙ্গী খোঁজা শুরু হয়। তখন তো আর এখনের মতো সুবিধা ছিল না। তাই সেসময় উপযুক্ত সঙ্গীর জন্য দ্বারস্থ হতে হতো এক প্রেমের দেবতার।

প্রেমের দেবতা ইউ লাওজানা যায়, চীন পুরাণের বুক অব ম্যারেজে ইউ লাও নামে এই দেবতার কথা উল্লেখ আছে। তাইওয়ানবাসীদের কাছে তিনি প্রেম ও বিয়ের ঈশ্বর। সঙ্গী খোঁজার জন্য এখনো তিনি তাদের ভরসাস্থল।

কথিত আছে, চীনের তাং রাজবংশের (৬১৮-৯০৭) সময় এক ব্যক্তি প্রেম দেবতা ইউ লাওর কাছে বললেন, তার ভবিষ্যৎ স্ত্রীকে দেখাতে। তখন ইউ লাও তাকে এমন একজন নারীর কথা বললেন, যার নির্দিষ্ট চিহ্ন থাকবে। তবে ওই ব্যক্তি বিশ্বাস করতেন না যে, ইউ লাওর এ ব্যাপারে কোনো ক্ষমতা আছে।

প্রেম দেবতার উপাসনালয় কিন্তু একপর্যায়ে দেখা গেল, প্রেম দেবতার ভবিষৎবাণী ফলে গেলো। আর তার কথামতো সেই নির্দিষ্ট চিহ্ন ধারণকারী নারীর সঙ্গেই ওই ব্যক্তি বিয়ে হলো। সেই থেকে ইউ লাওর প্রতি সাধারণ মানুষের এ বিশ্বাস জন্ম নেয় যে, তিনি মানুষের ভবিষ্যৎ সঙ্গী খুঁজে দিতে পারেন।

এখনো তাইওয়ানবাসী প্রেমের দেবতা হিসেবে ইউ লাওর প্রার্থনা করে। এমনকি নতুন-পুরান মিলিয়ে তার একাধিক মূর্তিও রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বৃহৎ, নান্দনিক মূর্তিটি আছে রাজধানী থাইপেইর শিয়া হাই শহরে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ