Alexa আইসিইউ-সিসিইউ নিয়ে হাইকোর্টে স্বাস্থ্য অধিদফরের প্রতিবেদন

ঢাকা, সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ১ ১৪২৬,   ১৬ মুহররম ১৪৪১

Akash

আইসিইউ-সিসিইউ নিয়ে হাইকোর্টে স্বাস্থ্য অধিদফরের প্রতিবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৭ ২৮ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১৯:৩৬ ২৮ আগস্ট ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

দেশের ২টি জেলা সদর হাসপাতালে ১৪টি ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) ও ৫ জেলা সদরে ৫৯টি করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) বেড চালু রয়েছে বলে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। 

এ প্রতিবেদন উপস্থাপনের পর বুধবার বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য ২৩ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।
 
আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নুর উস সাদিক। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ড. বশির আহমেদ।

পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আজকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে। আদালত সন্তুষ্ট না হয়ে আইসিইউ ও সিসিইউ নিয়ে কার্যক্রমের প্রতিবেদন ২৩ অক্টোবরের মধ্যে চেয়েছেন।
 
স্বাস্থ্য অধিদফতরে হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোর পরিচালক ডা. মো. আমিনুল হাসানের দেয়া প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিটি জেলা সদর হাসপাতালে ৩০ বেডের আইসিইউ এবং সিসিইউ স্থাপনের মতো স্পেস (জায়গা) আছে কিনা এবং প্রয়োজনীয় জনবল আছে কিনা ইত্যাদি তথ্য নেয়া হচ্ছে। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে স্পেস এবং জনবলের সংকট থাকাতে প্রয়োজনীয় স্পেস তৈরি এবং জনবল পদায়নের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে নিড ও প্রায়োরিটি অ্যাসেসমেন্ট পূর্বক প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সরবরাহের পদক্ষেপ নেয়া হবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ১০টি আইসিইউ ও ৩০টি সিসিইউ বেড, নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে ২টি সিসিইউ বেড, কুষ্টিয়ার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ১৫টি সিসিইউ বেড, পাবনা জেলা সদর হাসপাতালে ৪টি আইসিইউ বেড ও ৮টি সিসিইউ বেড এবং ভোলা সদর হাসপাতালে ৪টি সিসিইউ বেড চালু রয়েছে।

এছাড়া কিশোরগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, নোয়াখালী, পটুয়াখালী, জামালপুর, রাঙামাটি, নেত্রকোনা, নওগাঁ, মাগুরা, চাঁদপুর ও হবিগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ ও সিসিইউ বেড স্থাপনে কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, উল্লেখিত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালগুলোর জন্য এখন পর্যন্ত আলাদাভাবে পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল ভবন চালু না হওয়ায় তাদের হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট সব কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট জেলা সদর হাসপাতালেই হয়ে থাকে, যেগুলোতে ৩০ বেডের আইসিইউ ও সিসিইউ ইউনিট স্থাপনের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। এসব জেলা সদর হাসপাতাল ছাড়াও বাকি সব জেলা সদর হাসপাতালে ৩০ বেডের আইসিইউ এবং সিসিইউ ইউনিট স্থাপনের কার্যক্রম চলমান আছে।

পরে ড. বশির আহমেদ বলেন, সারাদেশে সব জেলা সদর হাসপাতালে আইসিইউ ও সিসিইউ স্থাপনের প্রজেক্ট ২৩ অক্টোবরের মধ্যে ফাইল করতে নির্দেশ দিয়েছেন।
 
হিউম্যান রাইটস ল’ইয়ার্স অ্যান্ড সিকিউরিং এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি অব বাংলাদেশের পক্ষে কোষাধ্যক্ষ মো. শাহ আলম গত বছরের জুলাই মাসে এ রিট দায়ের করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএ/আরএইচ