যেভাবে ৩১ বছরে ৭ হাজার কোটি ডলারের মালিক হলেন এলন মাস্ক
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=198176 LIMIT 1

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ৭ ১৪২৭,   ০৪ সফর ১৪৪২

যেভাবে ৩১ বছরে ৭ হাজার কোটি ডলারের মালিক হলেন এলন মাস্ক

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৯ ৬ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৫:০১ ৬ আগস্ট ২০২০

স্পেস এক্স-র প্রতিষ্ঠাতা এলন মাস্ক

স্পেস এক্স-র প্রতিষ্ঠাতা এলন মাস্ক

৩১ বছরের চেষ্টায় সাত হাজার কোটি ডলার বা পাঁচ লাখ ৯৫ হাজার কোটি টাকার মালিক ৪৯ বছর বয়সী এলন মাস্ক। মার্কিন অ্যারোস্পেস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্স এবং বিলাসবহুল বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলারের সিইও তিনি। 

চলুন জানা যাক তার কোটিপতি ব্যবসায়ী হওয়ার গল্প-

ভাগ্য গড়তে মাত্র ১৮ বছর বয়সে আফ্রিকা থেকে কানাডায় যান ইলন মাস্ক। পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে প্রস্তুত করতে শুরু করেন। ১৯৯৫ সালে পিএইচডি'র জন্য ক্যালিফোর্নিয়া যান। স্টানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাপ্লাইড ফিজিক্সে পিএইচডি'র জন্য ভর্তির কথা থাকলেও তিনি ব্যবসায় নিজের ক্যারিয়ার গড়ার সিদ্ধান্ত নেন। 

এই সিদ্ধান্ত থেকেই তৈরি করেন সফটওয়্যার কোম্পানি, অনলাইন ব্যাংক। বাজারে ছাড়েন অনলাইন ব্যাংকিং পদ্ধতি পেপাল, যেটা ২০০২ সালে দেড়শ কোটি ডলারে কিনে নেয়  ই বে।

বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলা মোটরস যাত্রা শুরুর পর ২০০৪ সালে এই প্রতিষ্ঠানের সিইও হিসেবে যোগ দেন তিনি। ২০০৮ সালে টেসলাকে দেউলিয়া হওয়া থেকে রক্ষা করেন তিনি। ২০০৬ সালে সোলার সিটি তৈরিতে সাহায্য করেন তিনি। এরপর একের পর এক ছোট বড় প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী হতে থাকেন তিনি।

পেপাল বিক্রির অর্থ দিয়ে শুরু করেন নতুন কোম্পানি স্পেস এক্স। ২০০২ সালেই এলন মাস্ক উদ্বোধন করেন এরোস্পেস নির্মাণ ও মহাকাশে ভ্রমণ বিষয়ক কোম্পানি স্পেস এক্স। ২০০৮ সালে নাসার সঙ্গে স্পেস এক্সের দেড় হাজার কোটি ডলারের চুক্তি হয়। ২০১৫ সাল নাগাদ ২৪ টি রকেট মহাকাশে ছাড়ে প্রতিষ্ঠানটি।

২০১৬ সালে পৃথিবীতে আসে ফ্যালকন ৯। ২০১৮ সালে এই স্পেস ক্রাফট মেইডেন ফ্লাইট পরিচালনা করে। এরপর আর ফিরে দেখতে হয়নি। মাস্কের রকেট কোম্পানির মূল্য এখন তিন হাজার ৬০০ কোটি ডলার।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস