যুবদল নেতা ও স্কুল শিক্ষিকার কারাদণ্ড

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৪ ১৪২৬,   ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

তন্দ্রা হত্যা মামলা

যুবদল নেতা ও স্কুল শিক্ষিকার কারাদণ্ড

রংপুর প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪৪ ২১ মে ২০১৯   আপডেট: ১৫:১৬ ২১ মে ২০১৯

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

রংপুরের আলোচিত তন্দ্রা হত্যা মামলায় পৃথক তিনটি ধারায় চার যুবদল নেতা ও এক স্কুল শিক্ষিকাকে ১৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার রংপুর নারী শিশু ট্রাইবুনাল-১ এর বিচারক জাবিদ হোসেন এই রায় দেন। রায় প্রদানের সময় তিন আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন যুবদল নেতা মানিক, রতন বাবলা, রানা ও স্কুল শিক্ষিকা মালেকা বেগম। তারা সম্পর্কে খালা ভাগ্নে। আসামি রতন ও তারা খালা মালেকা পলাতক রয়েছেন। আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে।

মামলার নথি অনুযায়ী, ১৯৯৬ সালের ১ জুলাই সন্ধ্যায় তন্দ্রা তার বাড়ির পাশে মুদি দোকান থেকে ফেরার পথেগাছের আড়ালে লুকিয়ে থাকা আসামিরা তাকে জড়িয়ে ধরলে সে চিৎকার করে। পরে তন্দ্রা বাড়িতে গিয়ে কুড়াল নিয়ে আসামি মানিক, রানা ও বাবলাকে তাড়া করে।

এরপর অপর আসামী রতন তার বোন নাজমা ও খালা মালেকাসহ অন্যান্নরা তন্দ্রাকে ধরে মারধর করে। একপর্যায়ে সেখানে লোকজন জড় হলে তন্দ্রা বাড়িতে গিয়ে ক্ষোভে আত্মহত্যা করে।

এ ঘটনায় তন্দ্রার মা মাসুদা চৌধুরী ২ জুলাই ১৭ জন কে আসামি করে রংপুর কোতয়ালী থানায় মামলা করে। তদন্ত শেষে ৫ জনকে আসামী করে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে।

১৫ জনের স্বাক্ষর নেয়া শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আসামি মানিক, রতন বাবলা, রানা ও স্কুল শিক্ষিকা মালেকা বেগম আত্মহত্যার প্ররোচণার মামলায় ১০ বছর শ্লীলতাহানীর দায়ে ২ বছর ও মারপিটের ঘটনায় ১ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন। 

সাজা এক সঙ্গেই চলবে বলে সরকার পক্ষের আইনজীবী জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন বলেন, আমরা ন্যায় বিচার পেয়েছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস