যুগ যুগ ধরে যে গ্রামের নিচে হয় বৃষ্টি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০,   আশ্বিন ১৬ ১৪২৭,   ১৩ সফর ১৪৪২

যুগ যুগ ধরে যে গ্রামের নিচে হয় বৃষ্টি

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৩ ৮ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৮:১৪ ৮ আগস্ট ২০২০

ছবি: আল-হুতেইব গ্রাম

ছবি: আল-হুতেইব গ্রাম

বিশ্বের প্রায় সব দেশেই কমবেশি বৃষ্টি হয়। কোনো দেশে কম আবার কোথাও বেশি। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত কোথায় হয়? চেরাপুঞ্জির মওসিনরামে। এখানে বছরব্যাপী বৃষ্টিপাত হয়। তবে পৃথিবীতে এমনো জায়গা রয়েছে যেখানে বৃষ্টির দেখা মেলাই ভার! ইয়েমেনের একটি গ্রামে রহস্যময় এই ঘটনাটি ঘটে। তবে কেন সেখানে বৃষ্টি হয় না?

কৃষকরা বছরব্যাপী অপেক্ষা করে থাকে মৌসুমী বায়ুর জন্য, যাতে ফসল ভালো ফলে। তবে পশ্চিম-মধ্য এশিয়ার ইয়েমেনের এই গ্রামে দশকের পর দশক বৃষ্টি ছাড়াই কাটিয়ে যাচ্ছেন গ্রামবাসীরা। গ্রামটি ইয়েমেনের রাজধানী সানায় অবস্থিত। গ্রামটির নাম আল-হুতেইব। ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩২০০ মিটার উচ্চতায় লাল বালিপাথরের পাহাড়ের মাথায় গ্রামটি। জনসংখ্যা খুব একটা বেশি নয়। বর্তমানে গ্রামটি আকর্ষণীয় পর্যটনস্থল হিসেবে খ্যাত।

আল-হুতেইব গ্রামদিনের বেলায় গ্রামটির আবহাওয়া থাকে প্রচণ্ড গরম। রাতের দিকে হিমশীতল ঠাণ্ডা নেমে আসে গ্রামে। তবে সূর্য উঠতেই আবার আবহাওয়া উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এই গ্রামের বাসিন্দারা পাহাড়ের কোলে পাথর কেটে বাড়িগুলো তৈরি করেছে। যা সত্যিই নৈসর্গিক অনুভূতির যোগান দেয়। প্রাচীনের সঙ্গে আধুনিকতার মিশেল গ্রামটির সৌন্দর্য আরো বাড়িয়ে তুলেছে। এই গ্রামের আদিবাসীরা আল-বোহরা হিসেবে বিবেচিত।

ইয়েমেনের এই ছোট্ট গ্রামটির সঙ্গে অলৌকিকভাবে মুম্বাইয়ের নিবিড় যোগ রয়েছে। মহম্মদ বুরহানউদ্দিন এই গ্রামে ধর্মপ্রচারক হিসেবে কাজ করেছেন। ব্রিটিশ আমলে বম্বে প্রেসিডেন্সির সুরাতে জন্ম বুরহানউদ্দিনের। ২০১৪ সালে মুম্বইয়ে তার মৃত্যু হয়। তবে তার আগে প্রতি তিন বছর অন্তর এই গ্রামে গিয়ে দেখভাল করে আসতেন তিনি। ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩২০০ মিটার উচুঁতে হওয়ায় এখানকার আবহাওয়া রুক্ষ প্রকৃতির।

গ্রামটি অনেক উঁচুতে অবস্থিতগ্রামটি যে উচ্চতায় অবস্থিত, সেখান থেকে আরো উচ্চতায় মেঘ জমে না। মেঘ তার নীচের স্তরে জমে। ফলে মেঘ সৃষ্টি হলেও এই গ্রামে বৃষ্টি হয় না। এটাই আল-হুতেইব এর বিশেষ বৈশিষ্ট্য। ভারতের মৌসিনরামে এর ঠিক উল্টো ছবিটাই ধরা পড়ে। সেখানে বছরব্যাপী বৃষ্টি লেগেই থাকে। 

১৯৮৫ সালে ২৬ হাজার মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে সেখানে, যা এখনো অবধি রেকর্ড পরিমাণ। ভূপৃষ্ঠ থেকে ১৪৯৯ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত হওয়ার জন্য মৌসিমরামের আবহাওয়া আর্দ্র থাকে। বছরে সেখানে প্রায় ১১ হাজার ৮৭১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। সেখানে আল-হুতেইবে বৃষ্টির লেশমাত্র নেই! 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস