যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে ভালোভাবে করোনা সামাল দিতে পেরেছি: ট্রুডো
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=192900 LIMIT 1

ঢাকা, বুধবার   ০৫ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২১ ১৪২৭,   ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে ভালোভাবে করোনা সামাল দিতে পেরেছি: ট্রুডো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১০:০৪ ৯ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১১:৪৪ ৯ জুলাই ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে মহামারি করোনাভাইরাস ভালোভাবে সামাল দিতে পেরেছে কানাডা। এমনটাই দাবি করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। বুধবার তিনি এ দাবি করেন।

সংবাদ সংস্থা আল জাজিরার খবরে জানা যায়, কানাডার জনসংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রের দশ ভাগের এক ভাগ। তারপরও ১ লাখ ৬ হাজার ১৬৭ জন আক্রান্ত হয়েছে সেখানে। মারা গেছে ৮ হাজার ৭৩৭ জন। দেশটিতে এরইমধ্যে করোনাভাইরাসকে নাগালের মধ্যে নিয়ে এসেছে। এখন শুধুমাত্র বিজয় ঘোষণা দেয়া বাকি। 

অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৩১ লাখ ৫৮ হাজার ৯৩২ জন। মারা গেছে রেকর্য ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৬২ জন।

দুটি দেশের পার্থক্য উল্লেখ করে ট্রুডো বলেন, আমরা আমাদের মিত্রদের অনেকের চেয়ে ভালোভাবে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছি। বিশেষ করে আমাদের প্রতিবেশীদের থেকে। যা কানাডার সাফল্য অর্থনীতির পুনঃসূচনা করার প্রচেষ্টাকে সহায়তা করবে।

করোনাভাইরাসের কারণে মার্চ মাস থেকে কানাডা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে। ২১ জুলাইয়ের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে এই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হবে কিনা তা নিয়ে আলোচনা করছেন। 

কানাডার স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে, চলতি মাসের মাঝামাঝি দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৯০০ তে পৌঁছতে পারে। 

দেশটির ডেপুটি চিফ পাবলিক হেলথ অফিসার হাওয়ার্ড এনজু জানিয়েছেন, আমাদের দেশে মহামারি এখনো নিয়ন্ত্রনে আছে। তবে লকডাউন, কোয়ারেন্টাইনের মতো ব্যবস্থাগুলো প্রতি জোর দেয়া এখনো জরুরি। আমরা যদি খুব শীঘ্রই সব কিছু শিথিল করি তবে মহামারীটি আবার প্রত্যাবর্তন করবে এবং করোনার সংক্রমণ কয়েক গুণ বেড়ে যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ/টিআরএইচ