মোবাইল চুরির সন্দেহে যুবককে হত্যা 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১০ ১৪২৭,   ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২

মোবাইল চুরির সন্দেহে যুবককে হত্যা 

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫৩ ২৬ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৫:৫৪ ২৬ মার্চ ২০২০

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

ফরিদপুরে ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন এক ব্যক্তি। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলার চর হরিরামপুর ইউপির পূর্ব চর শালেপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এক তরুণকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। 

পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বৃহস্পতিবার দুপুরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে নিহতের বাবা বাদী হয়ে চরভদ্রাসন থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম সবুজ শেখ। তিনি চরভদ্রাসন উপজেলার চরসুলতানপুর ফকিরডাঙ্গী এলাকার মঙ্গল শেখের ছেলে। তিনি বাবা ও মায়ের একমাত্র সন্তান ছিলেন। তিনি রাজমিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন।

চরভদ্রাসন উপজেলার চর হরিরামপুর ইউপির তিন নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পূর্ব চর শলিপুর গ্রামের বাসিন্দা বেলাল শেখ জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে বের হওয়ার সময় সড়কের পাশে একটি চকের মধ্যে হৈ চৈ শুনতে পান। তিনি এগিয়ে গিয়ে দেখতে পান সবুজের ঘাড়ের দুই পাশে দুটি ছুরির আঘাত এবং সেখান থেকে রক্ত ঝরছে। এলাকার লোকজন ছুরিসহ চর শালেপুর গ্রামের এখলাস মোল্লাকে আটক করে রেখেছেন। পরে সবুজকে স্থানীয় এক গ্রাম্য চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে তিনি তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে এবং এখলাসকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এলাকাবাসী জানায়, তিন দিন আগে চর শালেপুর গ্রামে এক গৃহবধূর একটি  মোবাইল চুরি হয়। সবুজ ওই মুঠোফোন চুরি করেছে এ সন্দেহে এখলাসসহ এলাকার আরো দুই তরুণ সজীব শেখ ও সুজন শেখ সবুজকে আটক করে প্রথমে মারপিট করে ও পরে তার ঘাড়ের দুই পাশে ছুরিকাঘাত করে। এতে সবুজের মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চরভদ্রাসন থানার ওসি (তদন্ত) মো. আব্দুল গাফ্ফার বলেন, পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বৃহস্পতিবার দুপুরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে সবুজের বাবা মঙ্গল শেখ বাদী হয়ে আটক একলাসসহ কয়েকজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ