Alexa মোবাইল কোম্পানিতে চাকরির পর গড়ে তোলেন চোরচক্র!

ঢাকা, রোববার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬,   ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

মোবাইল কোম্পানিতে চাকরির পর গড়ে তোলেন চোরচক্র!

যশোর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:১৩ ২৭ জানুয়ারি ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

এক সময় মোবাইল কোম্পানিতে চাকরি করা চারজনের নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে আন্তঃজেলা মোবাইল টাওয়ার ব্যাটারি চোরচক্র।

যারা বিভিন্ন সময় মোবাইল টাওয়ার থেকে ব্যাটারি চুরি করে এর সিসা গলিয়ে এজেন্টের মাধ্যমে বিভিন্ন কোম্পানিতে বিক্রি করতেন। কখনো ইঞ্জিনচালিত ভ্যান ও রিকশায় চুরিকৃত ব্যাটারি ব্যবহৃত হতো।

যশোরে সম্প্রতি মোবাইল টাওয়ারে চুরির হওয়ায় পুলিশ তাদের ধরতে অভিযানে নামে। পুলিশের দুটি টিম গত ২৪ জানুয়ারি থেকে যশোর, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলায় অভিযান পরিচালনা করে চোরচক্রের মূল হোতাসহ সাতজন গ্রেফতার ও বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করে।

সোমবার দুপুরে এসপির কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

গ্রেফতাররা হলেন, যশোর শহরের বারান্দী মোল্লাপাড়া আমতলা এলাকার হারেজ মৃধার ছেলে হারুন অর রশিদ মিঠু, বকচর র‌্যাব অফিসের দক্ষিণে জনৈক ডা. মাহাবুব আলমের বাসার নিচ তলার ভাড়াটিয়া খায়েরুজ্জামানের ছেলে মেজবাহ উদ্দিন রাজু মিরাজ, শহরতরীর ঝুমঝুমপুরের ইউনুছ আলীর ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান রিমু, সীতারমপুরের আবদুর রহিম মোল্যার ছেলে রাকিবুল ইসলাম, এনায়েতপুর গ্রামের হিরু মোল্যার ছেলে খাইরুল ইসলাম, সাতক্ষীরার কলারোয়ার তুলসিডাঙ্গা গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রহিম মোল্যা, কলারোয়ার রঘুনাথপুর মোড়লপাড়ার ইউসুফ আলীর ছেলে নিজাম উদ্দিন।

তাদের থেকে চুরির কাজে ব্যবহৃত একটি ডাবল কেবিন পিকআপ, এক দশমিক পাঁচ ভোল্টের ১০০টি ব্যাটারি, সার্কিট ৪৯টি, কুলিং ফ্যান ২২টি, টাওয়ারের দরজা, ভাঙা তালা তিনটি ও তালা ভাঙার বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

যশোরের অতিরিক্ত এসপি মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম বলেন, গত ১২ জানুয়ারি বাঘারপাড়ার বল্লামুখ এলাকার গ্রামীণফোন লিমিটেড কোম্পানির টাওয়ারের ছয় লাখ টাকা মূল্যের ব্যাটারি চুরি হয়। ওই ঘটনায় বাঘারপাড়া থানায় ২২ জানুয়ারি মামলা হয়। মামলার তদন্ত করতে গিয়ে একটি ভিডিও ফুটেজ পাওয়া যায়। সেটি পর্যালোচনা করে চোর শনাক্ত করা হয়। এরপর গোয়েন্দা পুলিশের দুটি টিম যশোর, খুলনা ও সাতক্ষীরায় অভিযান শুরু করে। গত দুইদিনে অভিযান চালিয়ে চোরচক্রের সাত সদস্যকে আটক করা হয়।

তিনি আরো জানান, আসামি হারুন অর রশিদ ওরফে মিঠু, মেজবাহ উদ্দিন রাজু ওরফে মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান ওরফে রিমু ও রাকিবুল ইসলাম রাকিব ওরফে চঞ্চল আগে বাংলালিংক, গ্রামীণফোন ও রবি কোম্পানিতে বিভিন্ন পদে চাকরি করতেন। তারা মোবাইল ফোন টাওয়ারের ব্যাটারি নিয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করতেন। চঞ্চল, মিরাজের নেতৃত্বেই এই চোর চক্র গড়ে উঠে। তারা গত ১২ জানুয়ারি ডাবল কেবিন পিকআপ যোগে বাঘারপাড়ার বল্লামুখ এলাকায় যান। তারা টাওয়ারের রুমের দরজা ও তালা ভেঙে ব্যাটারি চুরি করেন। চোরাই ব্যাটারির সিসা গলিয়ে এজেন্টের মাধ্যমে বিভিন্ন কোম্পানিতে তারা বিক্রয় করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম