.ঢাকা, রোববার   ২৪ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৯ ১৪২৫,   ১৭ রজব ১৪৪০

মোটা হতে করণীয়

ফাতিমাতুজ্জোহরা

 প্রকাশিত: ১৬:২৯ ১৩ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৬:২৯ ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

রোগা থেকে মোটা হওয়া বেশ কিছু সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে বেশ কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে স্বাস্থ্য ভালো হয়। সে খাবারগুলো কী ও কীভাবে খাবেন? সে সম্পর্কে জেনে নিন-

যারা রোগা থেকে মোটা হতে চান তারা সকাল শুরু করবেন কিছমিছ, বাদাম আর খেঁজুর দিয়ে। কারণ এ খাবারগুলোতে ক্যালরির পরিমাণ অনেক বেশি থাকে। তাই এগুলো খেলে ওজন অনেক বেড়ে যাবে। আর এগুলো খেতেও বেশ সুস্বাদু। আপনি যে পরিমাণ খাবার খান তার থেকে চার ভাগের এক ভাগ পরিমাণ প্রতিদিন একটু একটু করে বাড়াতে হবে। খাবারের পরিমাণ বাড়াতে তা বলে কিন্তু বেহিসাবি খাবার নয়। যখন তখন যা ইচ্ছে খাবেন তা কিন্তু নয়। যদি আপনি এক কাপ ভাত খান তবে সেখানে চার ভাগের এক ভাগ বাড়াতে হবে। তাহলেই আপনার ওজন আস্তে আস্তে বৃদ্ধি পেতে শুরু করবে।

এছাড়াও আপনাকে উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার খেতে হবে। ঘি, মাখন, পনির, ডিম, কোল্ড ড্রংকস, চকলেট, কন্ডেসড মিল্ক, মিষ্টি জাতীয় খাবার, আনারস, আঙ্গুরের জুস, খাসির মাংস, আম, কাঁঠাল , লিচু, কলা, পাকা পেঁপে, মিষ্টি কুমড়ো, মিষ্টি আলু এবং কাঁচা কলা এ ধরণের ফলগুলো খেতে পারলে ওজন অনেক বেড়ে যাবে। কারণ এ ফলগুলোতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি থাকে। বারে বারে পেট ভরে খেতে হবে। চার ঘণ্টা পর পর খেতে হবে। তবে মেটাবলিজম কমে যাবে আর খাবারের ক্যালরি বাড়তি ফ্যাট হিসেবে জমা হবে।

যদি আপনি অল্প অল্প করে বারে বারে খান তবে মেটাবলিজম বেড়ে যাবে আর ওজন কমে যাবে। তাই ওজন বাড়াতে পেট ভরে চার ঘণ্টা পর পর খেতে হবে। সেই সঙ্গে প্রতিদিন শরীর চর্চা করতে হবে। তবে শরীর সক্রিয় থাকবে। আর এতে শরীরের পুষ্টি উপাদানগুলো ঠিকমত কাজ করবে। ব্যায়াম করলে যে শুধু ওজন কমে তা কিন্তু নয়। ওজন বাড়াতে সাহায্য করে ব্যায়াম। ব্যায়াম করলে ক্ষুধার পরিমাণ অনেক বেড়ে যায়। আর এতে করে খাওয়ার প্রতি আগ্রহও অনেক বেড়ে যায়। তাই ওজন বাড়াতে প্রতিদিন ব্যায়াম করা খুবই জরুরী।

পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। কমপক্ষে সাত থেকে আট ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। সবসময় চিন্তামুক্ত থাকতে হবে। ঠিকমত ঘুমালে এমনিতেই ওজন বাড়বে। একইসঙ্গে মনও খুব শান্ত রাখতে হবে। ওজন কমানোর জন্য প্রোটিন, ফ্যাট ও কার্বো হাইড্রেডের সমন্বয় রেখে খাবার খেতে হবে। যেমন: মাছ, মাংস, ডিম, দুধ ও দুধজাতীয় খাবার খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে। এগুলো খেলে পুষ্টি বৃদ্ধি পাবে সেই সঙ্গে ওজনও বাড়বে। ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকারক। যারা ধূমপান করেন তাদের এটা ছেড়ে দিতে হবে। কারণ ধূমপান ক্ষুধা নষ্ট করে দেয়।

দিনে আট থেকে দশ গ্লাস পানি অবশ্যই খেতে হবে। কারণ পানি দেহের খাদ্য হজম করতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে শরীরের সব রকম কাজকর্ম সচল রাখার জন্য পানি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে খাওয়ার মধ্যে বা খাওয়ার আগে বা পরেও পানি খাওয়া ঠিক নয়। খাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে বা পরে পানি খেতে হবে। তবে শরীরের অনেক উপকার হবে। আবার খুব বেশি মোটা হওয়ার চেষ্টা না করে সুস্থ থাকার চেষ্টা করুন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস