মৃত স্কুলছাত্রীর নাম হাতে লিখে প্রেমিকের আত্মাহুতি

ঢাকা, শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২১ ১৪২৬,   ১০ শা'বান ১৪৪১

Akash

মৃত স্কুলছাত্রীর নাম হাতে লিখে প্রেমিকের আত্মাহুতি

জয়পুরহাট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:২৭ ১১ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৭:৩০ ১১ মার্চ ২০২০

আত্মাহুতি দেয়া কলেজছাত্রের হাতে প্রেমিকার নাম

আত্মাহুতি দেয়া কলেজছাত্রের হাতে প্রেমিকার নাম

‘সরি বাবা, আমি তোমাদের মনের মত হতে পারলাম না।’ চিরকুট লিখে নিজ ঘরে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন স্কুলছাত্রী তাজনুবা নাবিলা নীড়। নাবিলার বাড়িতে যখন শোকের মাতম বাইছে, ঠিক তখনই আত্মহত্যার চেষ্টা করেন প্রেমিক ইমরান হোসেন। পরিবারের তৎপরতায় একদিন পৃথিবীতে ছিলেন তিনি। একদিন পর মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রে প্রেমিকার নাম হাতে লিখে ফাঁসিতে ঝুলে জীবনের মায়া ত্যাগ করেন ইমরান।

মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার সকালে জয়পুরহাট পৌর এলাকার পৃথক স্থানে মর্মান্তিক ঘটনা দুটি ঘটে। এতে উভয় পরিবারসহ প্রতিবেশীদের মাঝে শোকের ছায়া বইছে।

মৃত নাবিলা নীড় পৌর এলাকায় আরাফাত নগরের আব্দুস সামাদের মেয়ে। তাদের স্থায়ী ঠিকানা জামালগঞ্জের চকবিলা গ্রাম। নাবিলা জয়পুরহাট সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন। এদিকে প্রেমিক ইমরান পৌর এলাকার বামনপুর মহল্লার ফরিদুল ইসলামের ছেলে। তিনি শহীদ জিয়া কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, নাবিলার আত্মহত্যার খবর পেয়ে মাদকসেবী ইমরান মঙ্গলবার রাতেই আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার বাবা তাৎক্ষণিক বিষয়টি টের পেয়ে পৌর শহরের ট্রাক টার্মিনাল চত্বরে চেতনা মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করেন। তবে বেঁচে থাকা হয়নি ইমরানের। বুধবার সকালে ওই কেন্দ্রেই তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই সময় ইমরানের হাতে লেখা ছিল, ‘IMRAN + NABILA, আমার জন্য যে চলে গেল, আমিও তার জন্য চলে গেলাম।’

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি শাহরিয়ার খান জানান, ২৪ ঘণ্টার ভেতরে দুটি আত্মহত্যা খবর পেয়েছি। ঘটনাগুলো প্রেমঘটিত হতে পারে। ময়নাতদন্তের জন্য দুটি মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন হাতে এলে মৃত্যুর রহস্য খোলাসা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ