মৃত ভেবে ফেলে গেল শ্বশুরবাড়ির লোকজন, বেঁচে গেলেন যুবক!

ঢাকা, রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০,   চৈত্র ১৫ ১৪২৬,   ০৪ শা'বান ১৪৪১

Akash

মৃত ভেবে ফেলে গেল শ্বশুরবাড়ির লোকজন, বেঁচে গেলেন যুবক!

গাজীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০০ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

আরিফুল ইসলাম

আরিফুল ইসলাম

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এক যুবককে মারধরের পর মৃত ভেবে নির্জন স্থানে ফেলে গেল শ্বশুরবাড়ির লোকজন। কিন্তু ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান তিনি।

রোববার সন্ধ্যায় ওই উপজেলার গজারিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত আরিফুল ইসলাম একই উপজেলার তালুক শিমুলতলীর নুরুল ইসলামের ছেলে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করেছেন নুরুল ইসলাম।

আরিফুলের বাবা জানান, ছয় মাস আগে কালিয়াকৈরের গজারিয়া কাঞ্চনপুরের জসিম উদ্দিনের মেয়ে সেলিনা আক্তারকে বিয়ে করেন আরিফ। বিয়ের পর দাড়ি কাটা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ চলছিল। বিষয়টি নিয়ে দুই পরিবার মীমাংসায় ব্যর্থ হলে তালাকের সিদ্ধান্ত হয়। শুক্রবার তালাক হয় আরিফ-সেলিনার। এরপর থেকেই আরিফুলকে বিভিন্ন সময় হুমকি দিচ্ছিল সেলিনার পরিবার।

তিনি আরো জানান, রোববার সন্ধ্যায় কাজ থেকে ফেরার সময় গজারিয়ার একটি সিএনজি স্টেশনের সামনে লাঠি, রড, স্টিলের পাইপ ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আরিফুলের ওপর হামলা চালায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এতে অচেতন হয়ে পড়লে মৃত ভেবে তাকে একটি নির্জন স্থানে ফেলে পালিয়ে যায় তারা। পরে স্থানীয়রা আরিফকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

আরিফুলের মা আয়শা বেগম বলেন, হত্যার উদ্দেশ্যেই আমার ছেলেকে মারধর করেছে সেলিনার বাড়ির লোকজন। ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছে ছেলেটা।

কালিয়াকৈর থানার এসআই সোহেল রানা বলেন, আহত আরিফুলের বাবা কয়েকজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা করা হচ্ছে। মীমাংসা না হলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর