মৃত্যুর কয়েক ঘন্টা আগেই বিয়ে হয় হিটলার ও ইভা ব্রাউনের! 

ঢাকা, শনিবার   ০৪ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২০ ১৪২৭,   ১২ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

মৃত্যুর কয়েক ঘন্টা আগেই বিয়ে হয় হিটলার ও ইভা ব্রাউনের! 

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২৯ ১৮ মে ২০১৯   আপডেট: ১৩:৩০ ১৮ মে ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

হিটলারের নাম শুনে নি এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কমই আছে! তার নামের সঙ্গে আরেকটি নামও বেশ পরিচিত ইভা ব্রাউন। হিটলার ও ইভার গভীর প্রণয়ের সম্পর্কের বিষয়ে সবাই অবগত থাকলেও তাদের বিয়ে নিয়ে কিছুটা ধোঁয়াশা জনমনে রয়েই গেছে। ১৯৪৫ সালের ৩০ এপ্রিল আত্মহত্যা করেন হিটলার। মৃত্যুর ২৪ ঘন্টা আগে (মতান্তরে ৪০ ঘন্টা আগে) তিনি বিয়ে করেছিলেন তার দীর্ঘদিনের সহচরী ইভা ব্রাউনকে৷

১৯৪৫ সালের এপ্রিল মাসের শেষ দিক। হিটলারের নাৎসি বাহিনী সোভিয়েত বাহিনীর হাতে পরাজিত প্রায় নিশ্চিত। হিটলার রয়েছেন তখন বার্লিনের ফুয়েরার বাংকারে। ২৯ এপ্রিল সোভিয়েত সৈন্যরা সেই বাংকারের কাছাকাছি চলে আসে। পরাজয় নিশ্চিত জেনে হিটলার সেদিন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন পরাজিত হলে আত্মহত্যা করবেন। তখন তিনি কয়েকটি ব্যক্তিগত কাজ করতে চাইলেন। এর মধ্যে একটি হলো ইভা ব্রাউনকে বিয়ে করা।

সেদিন গভীর রাতে হিটলার ইভা ব্রাউনকে বিয়ে করেন। বিয়ের সময় হিটলারের বয়স ছিলো ৫৬। আর ইভার বয়স ছিলো ৩৩। তাদের বিয়ের রেজিস্ট্রি করেন গোয়েবলস পৌরসভার কাউন্সিলর ওয়াল্টার ওয়াক্সনার। বিয়ে রেজিস্ট্রি করার পর ব্যাংকারের মানচিত্র কক্ষে বিয়ে উপলক্ষে ছোট আকারের সিভিল সেরিমোনির আয়োজন করা হয়। বিয়ের পর হিটলার নবপত্নীর সঙ্গে নাশতা করেন। তারপর হিটলার তার অন্য ব্যক্তিগত কাজগুলো সমাধা করতে যান। বিয়ের পর হিটলার ও ইভা খুব অল্প সময়ই একসঙ্গে ছিলেন।

পরদিন ৩০ এপ্রিল সোভিয়েত বাহিনী ব্যাংকারের ৫শ’ গজ কাছে চলে আসে। হিটলার কীভাবে আত্মহনন করবেন সে পদ্ধতি আগেই ঠিক করে রেখেছিলেন। পরাজয় যখন নিশ্চিত, তখন হিটলার তার ব্যক্তিগত কর্মচারিদের কাছ থেকে বিদায় নেন। তারপর বেলা দুইটা ৩০ মিনিটে হিটলার ও ইভা হিটলারের ব্যক্তিগত পড়ার ঘরে প্রবেশ করেন। এর আধা ঘণ্টা পরই সে রুম থেকে পিস্তলের গুলির শব্দ শোনা যায়। স্টাফরা গিয়ে দেখলেন হিটলার ও ইভা ব্রাউনের নিথর দেহ পড়ে আছে। দুজনই আত্মহত্যা করেছেন। হিটলার আত্মহত্যা করেছিলেন ‘পিস্তল এ্যান্ড পয়োজন মেথড’ এর মাধ্যমে। আর ইভা আত্মহনন করেছিলেন সায়ানাইড ক্যাপসুল খেয়ে।

হিটলারের সাথে ইভার পরিচয় হয়েছিলো মিউনিখে ১৯২৯ সালে। তখন ইভার বয়স মাত্র ১৭। ইভা ছিলেন হিটলারের পার্সোনাল ফটোগ্রাফারের সহকারী। এর দুই বছর পর হিটলার ও ইভার নিয়মিত দেখা হতো। ১৯৩৬ সাল থেকে ইভা হিটলারের বার্গহফ বাড়িতে বসবাস করতে শুরু করেন। তখন থেকে হিটলারের জীবনেরই অংশ হয়ে উঠেন ইভা ব্রাউন। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত প্রায় দেড় দশক ইভা ব্রাউন হিটলারের সাথে ছিলেন। স্বল্প সময়ের এই নববধূ হিটলারের সাথেই আত্মহত্যা করেন।

ইভা হিটলারকে মনপ্রাণ দিয়ে ভালোবাসলেও হিটলার নিজের ইমেজ ক্ষুণ্ন হবে ভেবে তাকে বিয়ে করতে চাইতেন না। ইভা দীর্ঘদিন হিটলারের সঙ্গে থাকলেও তিনি লোকের সামনে খুব কমই আসতেন। হিটলারের ঘনিষ্ট লোকরা কেবল তাকে দেখতে পেতেন। বিয়ের পূর্বে ইভা জানতেন, কয়েক ঘণ্টার মধ্যে হিটলার সোভিয়েতদের হাতে পরাজিত হবে। এও জানতেন পরাজিত হলে হিটলার আত্মহত্যা করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবু ইভা বিয়ে করেছিলেন হিটলারকে। পরাজয় জেনে হিটলার ইভাকে ব্যাংকার ত্যাগ করতেও বলেছিলেন। কিন্তু হিটলারকে ছেড়ে ইভা ব্যাংকার ছেড়ে যান নি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস