‘মৃত্যুর অগ্রিম খবর জানায়’ যে প্রাণীগুলো!

ঢাকা, রোববার   ১৬ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৩ ১৪২৬,   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

‘মৃত্যুর অগ্রিম খবর জানায়’ যে প্রাণীগুলো!

সাতরঙ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৪০ ২৭ মে ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

প্যারানর্মালবাদীদের মতে, মৃত্যুর অগ্রিম খবর মানুষের আগে পায় জীবজন্তুরা। ২০০৭ সালের জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের একটি মেডিক্যাল জার্নালে প্রকাশিত হয় মৃত্যু বিষয়ে বিড়ালের সংবেদ নিয়ে একটি গবেষণা-নিবন্ধ। শুধুই বিড়াল নয়, এ রকম অনেক প্রাণী আছে যারা মৃত্যুকে আগাম জানিয়ে দিতে পারে। কোন প্রাণী কীভাবে এই কাজটি করে জেনে নেয়া যাক-

* পেঁচা গান (বিশেষ ডাক) গাইলে জানতে হবে, কারোর মৃত্যু আসন্ন- এমন একটি প্রাচীন প্রবাদ আছে। তাছাড়া ক্যাথলিক সন্ন্যাসীরা পেঁচাকে দীর্ঘকাল ধরে ‘ডেভিলের অ্যাসোসিয়েট’ বলে বর্ণনা করে এসেছেন।

* দক্ষিণ আমেরিকার মায়া ও আজটেক সভ্যতায় বাদুড়কে মৃত্যুর আগ্রদূত বলে মনে করা হত। আমাদের দেশেও বাদুড় নিয়ে মৃত্যু-সংক্রান্ত সংস্কার কম নেই।

* ভারতে মা লক্ষ্মীর বাহন মনে করা হয় সাদা পেঁচাকে। কিন্তু ইউরোপে তার উড়ানকে মৃত্যুর পূর্বাভাস বলে মনে করেন। এই ভাবনার নেপথ্যে কাজ করছে উইচক্রাফ্‌ট নিয়ে ইউরোপীয়দের বহু আগের সংস্কার।

* ইউরোপে কালো ঘোড়াকেও মৃত্যুর অগ্রদূত বলে মনে করা হয়। কোনো শবযাত্রায় কেউ যদি কোনো কালো ঘোড়াকে তার দিকে তাকিয়ে থাকতে দেখেন, তার ঘাড়ে মৃত্যু নিঃশ্বাস ফেলছে বলে ধরতে হবে।

* ২০০৭ সালের জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের একটি মেডিক্যাল জার্নালে প্রকাশিত হয়, রোজ আইল্যান্ডে অস্কার নামে একটি বিড়াল কারোর মৃত্যুর সময়ে আশ্চর্য আচরণ করে। একটি হাসপাতালে তাকে নিয়ে গিয়ে রাখা হয়। সেখানে কোনো রোগীর মৃত্যু আসন্ন হলে সে সেই মৃত্যুপথযাত্রীর বিছানার পাশে গিয়ে বসে থাক। এভাবে অস্কার ২৫টি মৃত্যুপথযাত্রীর মৃত্যুর খবর আগাম জানিয়ে দেয়। কেবল রোড আইল্যান্ডের অস্কার নয়, বিড়াল মাত্রেই মৃত্যুর পূর্বাভাস দেয়। তারা নাকি মৃত্যুর গন্ধ পায়।

* দিনের বেলায় যদি কোনো বাড়িতে শিয়াল ঢুকে পড়ে, তবে সেই বাড়িতে কারোর মৃত্যু সুনিশ্চিত বলে বিশ্বাস করা হয় ইউরোপে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে