Alexa মৃত্যুকামনা: কী বলেছেন নবী (সা.)?

ঢাকা, বুধবার   ২৯ জানুয়ারি ২০২০,   মাঘ ১৫ ১৪২৬,   ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

মৃত্যুকামনা: কী বলেছেন নবী (সা.)?

 প্রকাশিত: ১৬:৪৮ ২৮ এপ্রিল ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বিপদ-আপদে সবর করে থাকাই ঈমানের দাবি। আমাদের জীবনে সুবিধা-অসুবিধা বা বিপদ-আপদ আসবেই।

কিন্তু কেউ কেউ বিপদে পড়লে হা-হুতাশ শুরু করে দেন। নিস্তার পাওয়ার জন্য মৃত্যুকামনা করে বসেন। মনে করেন, মরে গেলেই বিপদ থেকে উদ্ধার পাওয়া যাবে।

মনে মনে না চাইলেও মুখে মুখে হলেও মওত কামনা করেন। এটা এক ধরনের পলায়নপর মনোবৃত্তি।

প্রিয় নবী হযরত মুহম্মদ (সা.) বলেন-

لاَ يَتَمَنَّى أَحَدُكُمُ المَوْتَ إِمَّا مُحْسِنًا فَلَعَلَّهُ يَزْدَادُ، وَإِمَّا مُسِيئًا فَلَعَلَّهُ يَسْتَعْتِبُ

‘তোমরা মৃত্যু কামনা করবে না। নেককার মানুষ হলে, সে বেঁচে থাকলে আরো বেশি নেককাজ করতে পারবে। সে যদি গুনাহগার হয়, হয়তো সে তওবাহ করে গুনাহ থেকে ফিরে আসবে।’ (সুহিহ বুখারী)

অন্য হাদীসে মৃত্যুর কথা স্মরণ করতে বলা হয়েছে। মৃত্যু কামনা করতে বলা হয়নি।

বিশেষ করে বিপদে পড়লে। বেঁচে থাকলে একসময় বিপদ কেটে যাবে। সুদিন ফিরবে। আরো ভালো ভালো কাজ করা যাবে।

আগে মন্দ কাজ-কর্ম করা হয়ে থাকলে ভবিষ্যতে তওবার সুযোগ মিলতে পারে। আর মৃত্যু আল্লাহর আওতায়। সেটা নিয়ে বান্দার ব্যতিব্যস্ত হওয়া কাম্য নয়।

তারপরও মাঝে মধ্যে কিছু সময় আসে, টিকে থাকা প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। বাঁচা-মরা সমান হয়ে যায়। বেঁচে থাকার চেয়ে মরে যাওয়াকেই বেশি সহজ মনে হয়।

এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে? প্রিয় নবীজি (সা.)- এর সমাধান দিয়ে গেছেন:

لاَ يَتَمَنَّيَنَّ أَحَدُكُمُ المَوْتَ مِنْ ضُرٍّ أَصَابَهُ، فَإِنْ كَانَ لاَ بُدَّ فَاعِلاً، فَلْيَقُلْ: اللَّهُمَّ أَحْيِنِي مَا كَانَتِ الحَيَاةُ خَيْرًا لِي، وَتَوَفَّنِي إِذَا كَانَتِ الوَفَاةُ خَيْرًا لِي

তোমরা বিপদে পড়লে মৃত্যু কামনা করবে না। যদি একান্তই এমন কিছু করতে হয়, তাহলে বেশির চেয়ে বেশি এটুকু বলতে পারো: হে আল্লাহ! যতদিন আমার বেঁচে থাকাটা কল্যাণকর, ততদিন আমাকে বাঁচিয়ে রাখুন! আর যদি মুত্যই আমার জন্য কল্যাণবহ হয়, তবে মৃত্যুই দিয়ে দিন (মুত্তাফাকুন আলাইহি)।

সাথে সাথে এটাও মনে রাখতে হবে:
মৃত্যু কামনা করা কিন্তু স্বাভাবিক অবস্থা নয়। মৃত্যুকামনা না করাই স্বাভাবিক প্রবণতা। মনকে এভাবেই গড়ে তুলতে হবে। বিপদ এলে আল্লাহর দিকে মনকে ফেরাতে হবে। সাহায্য চাইতে হবে! সবর করার তাওফীক কামনা করতে হবে!

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে