মুশফিকের যত অর্জন

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৭ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৪ ১৪২৬,   ১৩ শা'বান ১৪৪১

Akash

মুশফিকের যত অর্জন

মাসুদ রানা ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১৮ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৩:২৩ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ডাবল সেঞ্চুরির পর মুশফিকুর রহিমের গর্জন

ডাবল সেঞ্চুরির পর মুশফিকুর রহিমের গর্জন

বাংলাদেশ ক্রিকেটের বর্তমান সময়ের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান নিঃসন্দেহে মুশফিকুর রহিম। টেস্ট ক্রিকেটে তার পথচলাটা শুরু হয়েছিলো ঐতিহাসিক এক ভেন্যুতে। ক্রিকেটের মক্কাখ্যাত ঐতিহাসিক লর্ডসে ২০০৫ সালের ২৬ মে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে মি. ডিপেন্ডেবলের। গত দেড় দশক ধরে একের পর এক রেকর্ড করে গেছেন অসম্ভব পরিশ্রমী এই ক্রিকেটার। 

বাংলাদেশসহ বিশ্ব ক্রিকেটে ধ্রুপদির মতো আলো ছড়িয়েছেন মুশফিক। বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে ভরসার মূল স্তম্ভ হয়ে উঠেছেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরে নিজ কাঁধে বয়ে নিচ্ছেন টাইগারদের ব্যাটিং লাইনআপ। টাইগারদের ‘পঞ্চপাণ্ডব’ এর একজন মুশফিকুর রহিমের হাত ধরেই অনেক ‘প্রথম’ অর্জন পেয়েছে লাল-সবুজের বাংলাদেশ। 

মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চলমান টেস্ট ম্যাচে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৫৬০ রানের পাহাড় গড়েছে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত ব্যাটিং করে ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন মুশফিকুর রহীম। ২০৩ রানের দৃষ্টিনন্দন এ ইনিংস খেলার পথে একাধিক মাইলফলক অর্জন করেছেন দেশসেরা এ ব্যাটসম্যান।

দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালকে টপকে টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের মালিক এখন মুশফিক। ৬০ টেস্টে তামিমের রান ৪,৪০৫। অন্যদিকে ৭০ টেস্ট খেলা মুশফিকের সংগ্রহ এখন ৪৪১৩ রান। 

মুশফিকের বর্তমান শতকের সংখ্যা ৭। বাংলাদেশের পক্ষে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। সমান ৯টি শতক নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে আছেন তামিম ইকবাল ও মুমিনুল হক।

এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের হয়ে মোট ৫টি ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন টাইগাররা। এর মধ্যে ৩টিই মুশফিকই। ২০১৩ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে ২০০ রান করেছিলেন মুশফিক। বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি ছিলো সেটিই। ২০১৮ সালে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই দেশের সেরা ২০৯* রানের ইনিংস উপহার দিয়েছিলেন মি. ডিপেন্ডেবল। সর্বশেষ মিরপুরে চলমান টেস্টে খেললেন ২০৩ রানের অপরাজিত এক ইনিংস। দেশের হয়ে বাকি দুই ডাবল সেঞ্চুরির মালিক সাকিব আল হাসান (২১৭) ও তামিম ইকবাল (২০৬)। 

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে মুশফিকের চেয়ে বেশি ডাবল সেঞ্চুরি আছে মাত্র ২৪ জন ব্যাটসম্যানের। ৩টি ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে চেতেশ্বর পূজারা, জো রুট, আজহার আলী, রস টেইলর, ক্রিস গেইল, স্টিভেন স্মিথ ও সনাৎ জয়সুরিয়াদের ক্রিকেটারদের পাশে বসলেন মুশফিক। 

মুশফিক আজকে এই জায়গায় কিন্তু একদিনে আসেনি। অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে তিনি পরিণত হয়েছেন আজকের এই মুশফিকে। দেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে সবচেয়ে পরিশ্রমী ক্রিকেটার হলেন মুশফিকুর রহিম। যাকে আদর্শ হিসেবে মানেন তরুণ ক্রিকেটাররা। ঈদের দিনেও যিনি ছুটি নেন না ক্রিকেট থেকে। প্রিয় ২২ গজে পড়ে থাকেন ব্যাট-বল নিয়ে। এমন পরিশ্রমী ও নিবেদিত একজন ক্রিকেটারের হাতেইতো এমন ইতিহাস মানায়। রেকর্ড নিজে এসে ধরা দেয় তার হাতে। 

মুশফিক একমাত্র ক্রিকেটার যিনি টাইগারদের হোম অব ক্রিকেটে ২০০ রান করেছেন, তা-ও একবার নয়, দুইবার এই কীর্তি গড়েছেন তিনি। মিরপুরে বাংলাদেশের আর কারোর ‘ডাবল’ সেঞ্চুরি নেই। ইতিহাসের একমাত্র উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে দু’টি ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন মুশফিক। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চলমান টেস্টে তিনি গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে দাঁড়াননি। নাহলে সংখ্যাটি তিনে গিয়ে দাঁড়াতেই পারতো। 
 
বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের মধ্যে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ সময় ব্যাট করার রেকর্ডও মুশফিকের দখলে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৮ সালে অপরাজিত ২১৯ রানের ইনিংস খেলার পথে ক্রিজে ছিলেন প্রায় ১০ ঘণ্টা। ৫৮৯ মিনিট ব্যাট করে রেকর্ডটি নিজের করে নেন তিনি। এর আগে ৫৩৬ মিনিট টানা ব্যাট করেছিলেন পূর্বসূরী আমিনুল ইসলাম বুলবুল। 

মিরপুরের সর্বোচ্চ ইনিংস পাকিস্তানের আজহার আলীর ২২৬ রান। এদিন বাংলাদেশ ৫৬০ রানে যখন ইনিংস ঘোষণা করে, তখন মুশফিক ব্যাট করছিলেন ২০৩ রানে। নাহলে আজহার আলীকে টপকেমিরপুরে সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক হতে পারতেন মুশফিক। অবশ্য ২০১৮ সালেও ইনিংস ঘোষণার কারণে সে সুযোগটা হাতছাড়া করেছিলেন তিনি। 

মুশফিকুর রহিমের যত রেকর্ড:

*বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩টি ডাবল সেঞ্চুরি।
*প্রথম উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে ২টি ডাবল সেঞ্চুরি।
*হোম অব ক্রিকেটে প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরি।
*হোম অব ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস ২১৯।
*দেশের মাটিতে মুশফিকুর রহিমের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি, বাংলাদেশীদের মধ্যে তৃতীয়।
*বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ২১৯। 
*সবচেয়ে বেশি সময় ব্যাটিং করার রেকর্ড ৫৮৯ মিনিট। 
*চতুর্থ উইকেটে সর্বোচ্চ ২৬৬ রানের জুটি মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হকের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২২২ রানের জুটিও তাদের দখলে। 
*অষ্টম উইকেট জুটিতে মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে ১৪৪ রানের জুটি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এম