Alexa ‘মুজিববর্ষের পরিকল্পনায় ওয়ার্ল্ড ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপ’

ঢাকা, শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ৩ ১৪২৬,   ১৯ সফর ১৪৪১

Akash

‘মুজিববর্ষের পরিকল্পনায় ওয়ার্ল্ড ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপ’

এস আই রাসেল ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:১৮ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

ক্রিকেট, ফুটবলের পর দেশের প্রতিটা অঞ্চলে সব থেকে পরিচিত কোন খেলা থাকলে সেটা হলো ক্যারম। ইন ডোর গেমের মধ্যে সব থেকে বেশি প্রচলিত খেলাও এটি। কিন্তু সেভাবে এগোতে পারেনি বাংলাদেশ ক্যারম ফেডারেশন। তবে ক্যারমের প্রচার ও প্রসারে কাজ করছে ক্যারম ফেডারেশন।বিশ্ব দরবারেও ক্যারমকে তুলে ধরতে স্বচেষ্ট ক্যারম ফেডারেশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। ২০২০ সালে মুজিববর্ষে ওয়ার্ল্ড ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপের চেষ্টা চলছে।  বাংলাদেশের মাটিতে ক্যারম বিশ্বকাপ আয়োজনের কথা ভাবছে বাংলাদেশ ক্যারম ফেডারেশন। ডেইলি বাংলাদেশের কাছে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন বাংলাদেশ ক্যারম ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আহমেদ লিয়ন।

শুরুতেই তিনি প্রথম জাতীয় ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে বলেন, বাংলাদেশ ক্যারম ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় ৮ম বারের মত আয়োজিত হলো জাতীয় ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপ। যদিও আমি সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর এটাই প্রথম আয়োজন। এবার আমাদের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল ওয়ালটন গ্রুপ। আমরা খুব সুন্দরভাবেই সম্পন্ন করেছি প্রতিযোগিতা। বাংলাদেশের ক্রীড়া অভিভাবক যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন। সমাপনীতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ ক্যারম ফেডারেশনের সভাপতি জুনাইদ আহমেদ পলক প্রধান অতিথি থেকে চ্যাম্পিয়নদের হাতে ট্রফি ও প্রাইজমানি তুলে দেন।

জাতীয় ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপে আমাদের অর্জন কি?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : জাতীয় ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপের প্রধান অর্জন প্রথমবারের মত জাতীয় নারী চ্যাম্পিয়ন জামালপুর জেলা স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মাকসুদা। এছাড়া জাতীয় পুরুষ চ্যাম্পিয়ন হেমায়েত মোল্লা তো আগে থেকেই আছেন।  

ক্যারম চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতি সম্পর্কে বলেন?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : টুর্নামেন্টের আগে দীর্ঘ এক মাস খেলোয়াড়দের নিয়ে ক্যাম্প করা হয়েছে । তারা খেলার মধ্যেই ছিল। তাই তারা সবাই তাদের বেস্টটাই দিতে পেরেছে বলে আমি মনে করি। আর ক্যারম এমন একটা খেলা যে, পরিবর্তন হয় যে কোন সময়। আমাদের ফেডারেশনে ক্যারম ক্যাম্প এই প্রথমবার শুরু হয়েছে। আগে কখনো করা হয়ে ওঠেনি। সাধারণ খেলোয়াড়দের একটা মিলন মেলা বলা যায় এই ক্যাম্পকে।

নতুন খেলোয়াড় তৈরিতে কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন আপনারা?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : নতুন খেলোয়াড় তৈরিতে আমরা বেশ কিছু টুর্নামেন্ট করি। স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, সামার হিট ওপেন এ গুলো আমাদের রেগুলার ইভেন্ট। এছাড়া আমরা বিভিন্ন টুর্নেমেন্ট করে থাকি। বিভিন্ন বাছাই পর্বের মাধ্যমে এখন খেলোয়াড় নির্বাচন করি। তাই ভালো খেলোয়াড় উঠে আসছে। আর নতুন নতুন খেলোয়াড় বেড় হচ্ছে। 

তৃণমূল থেকে খেলোয়াড় তৈরি করার কোন কার্যক্রম আছে আপনাদের?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : আমরা ইন্টার ইউনিভার্সিটি টুর্নামেন্ট করে থাকি। এবার আমরা বিভিন্ন স্কুল-কলেজে ক্যারম ট্রেনিং শুরু করেছি। আমাদের আন্তর্জাতিক মানের ট্রেইনার গিয়ে ট্রেনিং দিচ্ছেন। আমরা চাই স্কুল কলেজ থেকেও খেলোয়াড় বেড় হয়ে আসুক। এতে ক্যারম সম্পর্কে অনেক আগ্রহী খেলোয়াড় তৈরি হচ্ছে। ক্যারমের একটা বেজ তৈরি হচ্ছে। আমি আশা করি একটা সময় বাংলাদেশের জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হতে হলে সবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করতে হবে। তখন ভালো মানের খেলোয়াড় থাকবে আমাদের।  

বর্তমানে আমাদের খেলোয়াড়রা কেমন করছেন? 

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : আগে আমাদের মুষ্টিমেয় কিছু খেলোয়াড় ছিল। কিন্তু এখন মূল খেলোয়াড় বাদে পাইপ লাইনে অনেক খেলোয়াড় আছে। আমাদের খেলোয়াড় সংকট কমে গেছে। আমাদের এখন এত খেলোয়াড় যে বাছাই টুর্নামেন্ট দিয়ে খেলোয়াড় নির্বাচন করতে হয়। আর এতেই উঠে আসছে নতুন নতুন খেলোয়াড়। প্রথম বারের মত নারী এককে জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন মাকসুদা। আমাদের যে ট্যাবু ছিল তা ধিরে ধিরে ভাঙছে। 

মুজিববর্ষ নিয়ে ক্যারম ফেডারেশনের পরিকল্পনা কি?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : আগামী বছরটা আমাদের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ বছর। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। মুজিববর্ষে আমরা ওয়ার্ল্ড ক্যারাম চ্যাম্পিয়নশিপ করতে চাই। যদিও এটা আগে থেকেই ঠিক থাকে। এবারের ভেন্যু মালয়েশিয়া। তারপরও আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি আমাদের দেশে আয়োজন করার জন্য। কোন ভাবে যদি সেটা বাতিল হয়। তাহলে আমরাই করবো। দ্বিতীয় পছন্দ হিসেবে আমরাই আছি। আর তা না হলে আমরা তিন দলের টেস্ট ক্যারম টুর্নামেন্টের আয়োজন করবো। 

আমাদের দেশে ক্যারম ওয়ার্ল্ডকাপ কবে হচ্ছে?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : ২০২২ সালে অনুষ্ঠিত হবে ক্যারমের বিশ্বকাপ। আমাদের সভাপতির ইচ্ছা বাংলাদেশ এবার বিশ্বকাপ আয়োজন করুক। তারই চেষ্টায় আছি আমরা। সেভাবে কথা-বার্তা চলছে আন্তর্জাতিক ক্যারম ফেডারেশনের সঙ্গে। আশাকরি আমরা সফল হবো।

ক্যারমকে সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে আপনাদের পরিকল্পনা কি?

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : ক্যারম গ্রাম গঞ্জের পরিচিত খেলা, কিন্তু আমরা এখনো তা জাতীয় ভাবে ছড়িয়ে দিতে পারিনি। আমাদের কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। আমাদের ছোট ফেডারেশন, বরাদ্ধও কম। আমাদের কোন স্পন্সরও নেই। আমরা চাইলেও অনেক কিছু করতে পারি না। তবে আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা আছে। আমরা সামনে ভালো কিছু করতে পারব বলে মনে করি। যদিও বর্তমান যুব ও ক্রীড়া ও প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল ক্যারমের খোজ খবর রাখেন। এনএসসি ও আমাদের সাপোর্ট দিচ্ছে। আমরা চেষ্টা করবো আমাদের ক্রীড়াবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একটি আন্তর্জাতিক পদক উপহার দিতে।

ডেইলি বাংলাদেশকে সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

আশরাফ আহমেদ লিয়ন : ডেইলি বাংলাদেশকে ও ধন্যবাদ।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস