Alexa মুখোমুখি ক্রিকেটার-বিসিবি, লাভ কার?  

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯,   কার্তিক ২৯ ১৪২৬,   ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

মুখোমুখি ক্রিকেটার-বিসিবি, লাভ কার?  

এস আই রাসেল ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:১০ ২২ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২১:৪৯ ২২ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

দাবি আদায়ের লক্ষ্যে অনির্দিষ্টকালের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন ক্রিকেটাররা। গতকাল বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত জানান তারা। দেশীয় ক্রিকেটের বর্তমান বিভিন্ন অব্যবস্থাপনার কারণেই দাবিগুলো উঠে এসেছে। তবে আজ এর পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা বক্তব্য দিলেন বিসিবিকর্তা। যেন মুখোমুখি ক্রিকেটাররা ও বিসিবি।

সোমবার মিরপুর শের-ই বাংলা একাডেমি মাঠে নিজেদের বেতন-ভাতাসহ ক্রিকেটের স্বার্থে নিজেদের ১১ দফা দাবি সাংবাদিকদের সামনে উত্থাপন করেন সাকিব-তামিমরা।

এর মধ্যে কোয়াবের কমিটি পুনর্গঠন, বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক বাড়ানো, গ্রাউন্ডসম্যানদের সুযোগ-সুবিধা ও আন্তর্জাতিকমানের বল দেয়া, প্রথম শ্রেণির ম্যাচ ফি এক লাখ করা, ক্রিকেটারদের ফিটনেস পরীক্ষা আলাদা আলাদা বিভাগে অনুষ্ঠিত করা, ঘরোয়া ওয়ানডে ম্যাচ বাড়ানো, বিপিএলের আগে আরেকটি টি-টোয়েন্টির আয়োজন, বার্ষিক ক্যালেন্ডার নির্দিষ্ট করা ইত্যাদি। 

আর এতেই আগুন লেগে যায় পুরো ক্রিকেট বিশ্বে। জরুরি সভা ডাকেন বিসিবি বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। দীর্ঘ ২-৩ ঘণ্টা বোর্ড মিটিংয়ের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বোর্ড কর্তারা। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট। 

শুরুতেই নাজমুল হাসান পাপন বলেন, টেলিভিশনে-পত্রিকায় দেখলাম খেলোয়াড়রা ধর্মঘট ডেকেছে। দাবিগুলো যৌক্তিক। তারা সব খেলা থেকে বিরত থাকার ঘোষণাও দিয়েছে। তবে আমার এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না। 

আমার সঙ্গে প্রতিটা খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত যে সম্পর্ক তা সবাই জানেন।  কারণ, আমার মতো খেলোয়াড়দের সঙ্গে এত যোগাযোগ কেউ মেইন্টেন করে না।

কোন খেলোয়াড় কি একটা কথা বলতে পারবে যে আমাদের কাছে কিছু চেয়ে পায়নি? ২৪ কোটি টাকা আমরা এই ১৫ জনকে বোনাস দিয়েছি। তারপরও টাকার জন্য তারা খেলা থেকে বিরত থাকবে। আমার এইটা বিশ্বাস হচ্ছে না।

প্রথম দাবি সম্পর্কে পাপন বলেন, এতে বোর্ডের কোনো সম্পর্ক নেই। এই ব্যাপারে আমার কী করার আছে। টাকা পরিশোধের ব্যাপারে তিনি বলেন, বিসিবি ক্লাবকে চাপ দিয়ে টাকা আদায় করে দিয়েছে। গতবার মাত্র একটা ক্লাবের টাকা বাকি আছে। বিসিবি নিজে ক্লাবের টাকা পরিশোধ করেছে। এবারো করবে।

বিপিএল সম্পর্কে যুক্ত করে বলেন বিপিএল এবারের আসরের পরে আবারো আগের মতো হবে। এইটা তো বলাই আছে। এবার বঙ্গবন্ধুর নামে হবে বিপিএল। তাই বিসিবি নিজেরা করছে।

বেতন ও ফ্যাসিলিটি বাড়ানোর ব্যাপারে সভাপতি বলেন, আম্পায়ার-গ্রাউন্ডসম্যান সবার বেতন বাড়িয়েছি। ফ্যাসিলিটি তো বাড়াচ্ছি। চট্টগ্রামে জিম করেছি, সিলেটে করেছি। 

পাপন উল্টো প্রশ্ন করে বলেন, আমি আপনাদের কাছে দুইটা প্রশ্ন রাখতে চাই। আমাদের সঙ্গে এত সম্পর্ক থাকার পরেও আমাদের কেন বললো না দাবিগুলোর কথা? এতে কী হলো বিশ্ব দরবারে আমাদের ক্রিকেটের ভাবমূর্তি নষ্ট হলো। আইসিসি, এসিসি বিভিন্ন বোর্ড থেকে আমাকে ফোন করছে।

তিনি ক্রিকেটারদের কাজের ব্যাপারে বলেন, তারা তাদের জায়গায় সাকসেস। তারা পারছে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে। ভারতে এখন পর্যন্ত কোনো ফুল সিরিজ হয়নি। এই প্রথম একটা পূর্ণাঙ্গ সিরিজ আনা হচ্ছে।

আমি বিশ্বাস করি এখানে দুই একজন ছাড়া বাকি সবাই না বুঝেই এই কাজ করছে। তবে যারা দেশের বিরুদ্ধে দেশের ক্রিকেটের বিরুদ্ধে কাজ করছে আমরা তাদের খুঁজে বের করবো।

তিনি খেলোয়াড়দের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা যদি না খেলতে চাও তো আমার কি করার আছে, তবে এতে কারা লাভবান হচ্ছে সেইটা দেখতে বলেছেন বিসিবি বস।

কাল থেকে ক্যাম্প শুরু যারা আসতে চায় আসবে। না চাইলে আসবে না। এইটা একটা বড় ষড়যন্ত্রের অংশ। আসলে ইন্ডিয়া ট্যুরটা নষ্ট করার জন্যই এই ষড়যন্ত্র। সামান্য কিছু টাকার জন্য দেশের ক্ষতি করবে এইটা আমি মানতে পারি না।

এ পরিস্থিতিতে আসলে লাভ-ক্ষতিটা কার হবে? ক্রিকেটের বৃহত্তর স্বার্থে এর সঠিক সমাধান জরুরি বলে মনে করছেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/সালি/এসআই