মিরসরাইয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যুর কারণ নিয়ে রহস্য

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭,   ০৯ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

মিরসরাইয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যুর কারণ নিয়ে রহস্য

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৪:২২ ৭ এপ্রিল ২০২০  

স্বজনদের আহাজারি (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

স্বজনদের আহাজারি (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ে কুলসুম আক্তার মুন্নি নামে এক প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। রোববার রাতে শ্বশুরবাড়ি থেকে ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

গৃহবধূর ভাইয়ের দাবি, শ্বশুরবাড়ির লোকজন পরিকল্পিতভাবে তার বোনকে হত্যার পর ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছে। এ ঘটনায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে নিহতের স্বজনরা।

নিহত মুন্নি উপজেলার করেরহাট ইউপির মহাজন গ্রামের মোহাম্মদ সওদাগর বাড়ির কাতার প্রবাসী মোক্তার হোসেনের স্ত্রী ও একই গ্রামের মো. হারুনের মেয়ে। মুন্নির তিন বছরের একটি ছেলে রয়েছে।

নিহতের মা শাহানা বেগম বলেন, কয়েক মাস ধরে মুন্নির সঙ্গে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। ঘটনার দুইদিন আগেও মুঠোফোনে স্বামীর সঙ্গে মুন্নির ঝগড়া হয়। পরে রোববার বিকেলে ছেলেকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে যায় তার মেয়ে। সন্ধ্যায় তার মৃত্যুর খবর পেয়ে ওই বাড়িতে যাওয়া হয়। কিন্তু এর আগেই মুন্নির কক্ষের দরজা ভেঙে ফেলে শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

মুন্নির ছোট জা কাওছার সুলতানা বলেন, রেববার সন্ধ্যায় তার মুঠোফোনে স্বামীর সঙ্গে কথা বলেন মুন্নি। একপর্যায়ে স্বামীকে লাইনে রেখে নিজের কক্ষের দরজা বন্ধ করে দেন তিনি। পরে তাকে কক্ষে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখেন শাশুড়িসহ বাড়ির লোকজন। এ সময় তারা দরজা ভাঙলে মুন্নির মা ও ভাই আসেন। তারা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

জোরারগঞ্জ থানার এসআই নিবাস কুমার ভট্টাচার্য বলেন, মরদেহ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর